LatestsNews
# খুলনার শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল অচলাবস্থা রোগী ও তাদের স্বজনদের চরম ভোগান্তি# ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় আমবোঝাই ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা নিহত ২# ভারতের গুজরাটে ১৮ বছরের নিচে মোবাইল নিষিদ্ধ# একই পাঞ্জাবির দামে হেরফেরের দায়ে আড়ংয়ে আবারও পাঞ্জাবি কাণ্ড, ফের জরিমানা# যুক্তরাষ্ট্র থেকে এক বাংলাদেশি অভিবাসন ইস্যুতে বহিষ্কার।# রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশকে গঠনমূলক সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে চীন।# রোহিঙ্গা সংকটের জন্য মিয়ানমার সরকারই দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার।# নরসিংদীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ১৩ দিন লড়াই করে হার মানলেন দগ্ধ ফুলন# নোয়াখালীতে ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড # ঝিনাইদহে প্রভাবশালীরা ঘের ও পুকুর কেটে চলেছেন, অবৈধ পুকুর খননে কৃষকরা হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত# লোহাগড়ায় ৫’শ পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারী আটক# বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মাহমুদুলকে যোগদানে দিনভর উত্তেজনা # শিরোমনি উত্তরপাড়ায় খেলতে গিয়ে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যুঃ এলাকায় শোকের ছায়া# নোয়াখালীর চৌমুহনীতে আধিপত্য বিস্তারের জেরে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীদের গুলিতে যুবকের মৃত্যু# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার# গাজীরহাট ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয় # শিরোমণি স্পোর্টিং ক্লাব আয়োজিত ৮দলীয় মিনি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন# শৈলকুপায় অর্ধশত বছরেও আলোর মুখ দেখেনি স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসা!# কালীগঞ্জে পিতা হত্যার দায়ে পুত্রের যাবজ্জীবন কারাদন্ড# ‘আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের কাজে মন্থর গতি’
আজ বুধবার| ১৭ জুলাই ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

টিনের চালায় মা ও শিশু সেবা কেন্দ্র হাতীবান্ধায় ধাত্রীর ভুল চিকিৎসায় নব-জাতকের মৃত্যু



লালমনিরহাট প্রতিনিধি

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা এলাকায় ফিরোজা বেগম নামে এক ধাত্রীর ভুল চিকিৎসার কারণে নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে এমন একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই নব জাতকের পিতা নুরে এলাহী বাদী হয়ে গত ১৫ আগষ্ট হাতীবান্ধা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ উঠেছে, ওই ধাত্রী ফিরোজা বেগম তার বাড়িতে টিনের চালায় ৩ বছর ধরে মা ও শিশু সেবা কেন্দ্র খুলে বসেছেন। তার ভুল চিকিৎসার কারণে প্রায় সময় নব জাতকের মৃত্যু হয়ে থাকে।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, বড়খাতা রেলওয়ে কলোনী এলাকার ফজুল হকের মেয়ে ফিরোজা বেগম নিজেকে একজন দক্ষ ধাত্রী দাবী করে তার বাড়িতে মা ও শিশু সেবা কেন্দ্র খুলে বসেছে। তিনি তার বাড়িতে নিয়মিত গর্ভবতী মায়েদের সন্তান প্রসব করা পাশাপাশি বাচ্চা নষ্ট (এম আর) করে থাকেন। গত ৭ আগষ্ট ওই উপজেলা দোলাপাড়া এলাকার নুরে এলাহীর স্ত্রী জেমি বেগমের প্রসব ব্যাথা উঠলে তারা ফিরোজা বেগমের বাড়ি নিয়ে আসে। এক দিন পর ৮ আগষ্ট একটি ছেলে বাচ্চা প্রসব করেন। বাচ্চা জন্মেও পর প্রচন্ড অসুস্থ হয়ে যায়। পরে নুরে এলাহী মা ও নব জাতককে প্রথম লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল পরে রংপুর মা ও শিশু হাসাপাতলে ভর্তি করায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৯ আগষ্ট ওই নব জাতকের মৃত্যু ঘটে।

নুরে এলাহী অভিযোগ করে বলেন, ধাত্রী ফিরোজা বেগমের ভুল চিকিৎসার কারণেই তার বাচ্চার মৃত্যু হয়েছে। তাকে রংপুর মা ও শিশু হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, জন্মের সময় নব জাতক মাথায় আঘাত পেয়েছেন। এ ঘটনায় তিনি বিচার চেয়ে স্থানীয় থানায় একটি অভিযোগও করেছেন। কিন্তু ৩ দিনেও পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করছেন না। উল্টো একটি মহল বিষয়টি মিমাংশা করতে আমাকে চাপ দিচ্ছে।

সড়ে জমিনে দেখা যায়, ধাত্রী ফিরোজা বেগম তার বাড়িতে একটি টিনের চালে মা ও শিশু সেবা কেন্দ্র খুলে বসেছে। পাশেই নলকুপ ও গরুর মলসহ পচা পানির ডোবা। যার দুন্ধ চার দিকে ছড়িয়ে পড়ছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, সচেতনতার অভাবে গ্রামের দুস্ত লোকজন তার কাছে চিকিৎসা নিতে আসে। তার ভুল চিকিৎসার কারণে প্রায় সময় নব জাতকের মৃত্যু হয়ে থাকে। অথচ ফিরোজা বেগমের এ মা ও শিশু সেবা কেন্দ্রের বিষয়ে কিছুই জানেন না উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

ধাত্রী ফিরোজা বেগম বলেন, বিভিন্ন এনজিওতে মা ও শিশু সেবা নিয়ে চাকুরী করেছি। সেই অভিজ্ঞতা থেকে বাড়িতে সন্তান প্রসব করে থাকি। তবে সিভিল সার্জন বা স্বাস্থ্য বিভাগের কোনো অনুমতি পত্র নেই।

হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ রমজান আলী জানান, বিষয়টি অবগত হয়েছি, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ফিরোজা বেগমের মা ও শিশু সেবা কেন্দ্র নামে কোনো প্রতিষ্ঠানের অনুমতি নেই।

হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


1