LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ রবিবার| ২৫ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

বাগেরহাটে রাস্তার বেহাল দশা হাজার হাজার শিক্ষার্থী জনসাধারনের ভোগান্তি চরমে



এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির,

বাগেরহাটেমোড়েলগঞ্জ উপজেলার ১২নং জিউধরা, নিশানবাড়িয়া-খাউলিয়ায় সাড়ে ৩ কি.মি. রাস্তার কর্দমাক্ততার জন্য ৭টি প্রতিষ্ঠানের ৩ হাজার শিার্থীসহ জনসাধারনের চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। বৃষ্টি হলেই রাস্তার কাদাঁয় শিক্ষার্থী সহ জনসাধারণ চলাচল বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়ে ওঠে।

১২ নং জিউধরা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের একরামখালী গ্রামের রাম হাওলাদারের বাড়ি থেকে খান বাজার পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার রাস্তাটি গর্ত ও জোয়ারের পানিতে মৎস্য ঘের তলিয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে ইউসুফিয়া মাদ্রাসা ও একরামখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মীরবাড়ি জামে মসজিদসহ মাদ্রসা বাজারের কলেজগামী-ছাত্র-ছাত্রীদের চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ওই ইউনিয়েনের এলাকাবাসীর পক্ষে একরামখালীর বাসিন্দা মো. মিজান তালুকদারের অভিযোগে এলাকাবাসির স্বাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে দিয়েছেন।


এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান ১২নং জিউধরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে সরেজমিন তদন্ত পরিদর্শন প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহনের নির্দেশ দেন। এলাকাবাসীর দাবী রাস্তা মেরামত সহ ইট দ্বারা স্বলিং করন এবং একটি পুল নির্মাণের জোর দাবী করেছে।

নিশানবাড়িয়া-খাউলিয়া সীমান্তবর্তী এ রাস্তাটি নিশানবাড়িয়ার রাস্তা নামে পরিচিত। জনগুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটি সৃষ্টি পরবর্তী কোন উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। ব্যবস্থা করা হয়নি ইট সোলিং কিংবা কার্পেটিংয়ের। দুই ইউনিয়নের টানা পোড়নের এ রাস্তাটি উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। এ রাস্তা দিয়ে নিশানবাড়িয়া তাছেন স্মৃতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নিশানবাড়িয়া দাখিল মাদ্রাসা, খাউলিয়া-নিশানবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দেড় হাজার শিার্থীরা প্রতিদিন কাঁদা-মাটি ভেঙ্গে প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করে। বিশেষ করে শিশুদের কাঁধে ব্যাগ, হাতে স্যান্ডেল আর কাঁদা থেকে চলাচলে হিমহিম খেতে হয়। অধিকাংশ অভিভাবক এ বৃষ্টি মৌসুমে তাদের শিশুদের বিদ্যালয় পাঠাতে চাচ্ছেনা। যার কারনে বৃষ্টি মৌসুমে এ তিনটি বিদ্যালয় শিার্থীর উপস্থিতির হার কমে যায়। বৃষ্টি হলে শিার্থীদের ছাতা, বই, ব্যাগ সামলানো কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়ে।


১৭০ নং নিশানবাড়িয়া তাছেন স্মৃতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মতিন মিয়া  বলেন, একদিকে রাস্তার কাঁদা অপরদিকে তার বিদ্যালয় প্রাঙ্গন বৃষ্টি মৌসুমে জলাবদ্ধতা ও কর্দমাক্ততার জন্য শিশু শিক্ষার্থীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়।



সহকারী উপজেলা শিক্ষাঅফিসার মো. জাকির হোসেন  জানান, এ রাস্তার কাদাঁ মাটি ভেঙ্গে হাতে স্যান্ডেল আর কাদাঁ থেকে প্যান্ট সামলিয়ে বিদ্যালয় পরিদর্শনে যেতে হয়েছে।


এ ব্যাপারে নিশানবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু  বলেন, রাস্তাটির ব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে। শ্রীঘ্রই এর সমাধান হবে বলে আশা করছি।


নিশানবাড়িয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা শহিদুল ইসলাম জানান, বৃষ্টির মৌসুমে এ রাস্তা দিয়ে মোটর গাড়ি, ভ্যান সহ কোন যানবাহন চলতে না পারায় শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর দুর্দশার শিকার হতে হয়।


1