LatestsNews
# ব্যাচেলর খ্যাত সালমান খান অবশেষে বিয়ের জন্য নায়িকা পাত্রী খুঁজে পেয়েছেন# সন্ত্রাসীদের অতর্কিত হামলায় ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আহত # নকশা জালিয়াতির অভিযোগে কাসেম ড্রাইসেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাসভীর-উল-ইসলামকে গ্রেফতার।# ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে নার্স ও স্টাফদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা# রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে মিয়ানমারকে আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।# হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর জাতীয় পার্টির বিভক্তি আরো স্পষ্ট হয়ে উঠছে।# ডেঙ্গু মোকাবিলায় সতর্কতা ও সচেতনতা আরো বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা# ঈদের আগে পরে মোট ১৩ দিনে এবার সড়ক, নৌ ও রেল পথে ২৪৪টি দুর্ঘটনায় মোট ২৫৩ জন নিহত ও ৯০৮ জন আহত।# গাইবান্ধা আধুনিক হাসপাতালের বেহাল অবস্থা # ভারতে নিহত মাইনুল ও তানিয়া মরদেহ দেশে আনা হয়েছে# যেভাবে চামড়ার দাম কমানো হয়েছে তা দূরভিসন্ধিমূলক:মসিউর রহমান রাঙ্গা।# বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে রূপপুরে নির্মাণাধীন পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প দেশের দ্বিতীয় মুক্তিযুদ্ধ।# চলনবিলে পর্যটকের ঢল# চলনবিলে পর্যটকের ঢল# সৌদি আরবে বাংলাদেশি হাজিদের বহনকারী একটি বাস দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন# সৌদি আরবে বাংলাদেশি হাজিদের বহনকারী একটি বাস দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন# পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন বাংলাদেশের দুজন নাগরিক। # জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ‘ফ্রেন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ বা ‘বিশ্ববন্ধু’ হিসেবে আখ্যা দেয়া হলো# ডেঙ্গু প্রতিরোধ-সচেতনতায় 'স্টপ ডেঙ্গু' অ্যাপ চালু # অবশেষে টাইগারদের নতুন কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার রাসেল ডোমিঙ্গাকে।
আজ সোমবার| ১৯ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

বেড়েছে সংকট এক বছরেও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে নেই কার্যকর কোন উদ্যোগ



বেড়েছে সংকট। আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ানোর পরামর্শ পর্যবেক্ষকদের

২৫ আগস্ট থেকে ২৫ আগস্ট। এক বছর পূর্ণ করলো- রোহিঙ্গা ঢল। গত বছরের শেষ থেকেই শোনা যাচ্ছিলো দ্রুতই প্রত্যাবাসন করা হবে রোহিঙ্গাদের। প্রক্রিয়াগতভাবে কাজ এগিয়েছে জানা গেলেও মাঠ পর্যায়ে সেই উদ্যোগে নেই দৃশ্যমান অগ্রগতি। এ অবস্থায় মিয়ানমারের উপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে পর্যবেক্ষকরা।

রাষ্ট্রীয়ভাবে জাতিগত নিধন কতটা বর্বর হতে পারে তার উদাহরণ রোহিঙ্গারা। নিষ্ঠুর দমন পীড়নের মুখে কখনো সাগরে ভেসে, কখনো নাফ নদী পাড়ি দিয়ে, কখনোবা মাইলের পর মাইল পাহাড় ডিঙ্গিয়ে; তাদের ঠাঁই এখন বাংলাদেশে।

গত বছরের শেষ থেকেই শোনা যাচ্ছিলো মিয়ানমার ফিরিয়ে নেবে রোহিঙ্গাদের। সেই উদ্যোগে গঠিত হয়েছে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ। সম্প্রতি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীও মিয়ানমার ঘুরে এসেছেন। এসব ছাড়াও আন্তর্জাতিক মহলে বিভিন্ন পর্যায়ে জোর আলোচনা আছে, রোহিঙ্গাদের প্রতি অনুকম্পা দেখানোর বড় বড় আয়োজনও আছে, কিন্তু মিয়ানমারের নানা অজুহাতে কার্যত থেমেই আছে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া।

এক মাস দু'মাস করে এক বছর ধরে রোহিঙ্গাদের ভার বইছে বাংলাদেশ, কিন্তু এর শেষ কোথায়? সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তবে কি ব্যর্থ বিশ্ব সম্প্রদায়?

সাবেক রাষ্ট্রদূত হুমায়ুন কবির বলেন, সব ব্যর্থ হয়েছে, বলা যাবে না। তবে প্রক্রিয়াগতভাবে আমরা একটু একটু করে এগিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু এর সমাধানে জায়গাটায় অথবা তাদের প্রত্যাবাসনের বিষয়টি ব্যাপারে কোন সুনির্দিষ্ট অগ্রগতি লক্ষ্য করছি না।

রাখাইনে রোহিঙ্গারা গিয়ে যে থাকতে পারবে সেই পরিস্থিতি এখনও যে নেই তা বোঝা যায় ফেসবুকের হাজারো পোষ্টে। সম্প্রতি রয়টার্সের প্রতিবেদন বলছে সেখানে এখনো রোহিঙ্গাদের নিয়ে ছড়ানো হচ্ছে হিংসা ও বিদ্বেষ। এ অবস্থায় ১০ লাখ মানুষকে নিয়ে হিমসিম খাচ্ছে বাংলাদেশ।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসনের যুগ্ম কমিশনার মিজানুর রহমান বলেন, শুধুমাত্র থাকার জায়গা না, তাদের সব কিছুর ব্যবস্থা করতে হবে। আমরা চাই রোহিঙ্গারা নিজস্ব সম্মানে তারা দেশে ফিরে যাক।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, রোহিঙ্গাদের নিয়ে বাংলাদেশের যা করার ছিলো বাংলাদেশ তা করেছে, এখন দায়িত্ব বিশ্ব সম্প্রদায়ের। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে চাপ অব্যাহত রাখার আহ্বান করছেন তারা।

সাবেক রাষ্ট্রদূত হুমায়ুন কবির আরো বলেন, মিয়ানমার ৫০০ লোক নিয়ে বলল আমরা নিচ্ছি না। এর প্রক্রিয়া শুরু হওয়া যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি এটা সম্পূর্ণ করাও গুরুত্বপূর্ণ। কাজেই বাংলাদেশের পক্ষ থেকে যেটুকু চাপ রাখা দরকার। সেটা বজায় রাখতে হবে। সেই সাথে আন্তর্জাতিক চাপও অব্যাহত রাখতে হবে।

মিয়ানমার যাতে কোনোভাবেই দায়িত্ব এড়াতে না পারে সেই নজরদারি নিশ্চয়ই বাংলাদেশের একার নয়।


1