LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ সোমবার| ২৬ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

আমদানি রপ্তানি বাণিজ্য সহজ ও গতিশীল করতে ১২টি স্থল বন্দর নির্মাণ করলেও ব্যবহার সন্তোষজনক নয়।



আমদানি রপ্তানি বাণিজ্য সহজ ও গতিশীল করতে সরকার ১২টি স্থল বন্দর নির্মাণ করলেও কয়েকটি ছাড়া বাকীগুলোর ব্যবহার সন্তোষজনক নয়। এতে বেনাপোল বন্দরের ওপর চাপ বেশি পড়ায় পণ্য খালাসে খরচ বাড়ছে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ ,অবকাঠামো সমস্যার পাশাপাশি নির্দিষ্ট পণ্য আমদানি -রপ্তানির বাধ্যবাধকতা থাকায় অনেক স্থল বন্দরই তারা ব্যবহার করতে পারছে না। এছাড়া রাজনৈতিক বিবেচনায় কিছু স্থলবন্দর নির্মিত হলেও ব্যবহার হচ্ছে নামমাত্র।

বাংলাদেশের তিন দিকেই ভারতের অবস্থান। চীনের পর প্রতিবেশী এই ‌দেশটি থেকে সবচেয়ে বেশি পণ্য আমদানি করে বাংলাদেশ। স্থলপথে ভারত সহ অন্যান্য প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমার, নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে বাণিজ্যিক কার্যক্রম চালাতে পর্যায়ক্রমে ১২টি স্থলবন্দর গড়ে উঠেছে। এর মধ্যে টেকনাফ ছাড়া ১১টি স্থলবন্দর দিয়ে বাণিজ্য হয় ভারতের সাথে। আর সবচেয়ে বেশি পণ্য আমদানি-রপ্তানি হয় বেনাপোল দিয়ে। ফলে ট্রাক জটের কারণে পণ্য খালাসে দেরি হয়। আর বুড়িমারী, ভোমরা, হিলি ও তামাবিল স্থল বন্দর দিয়ে বেশ কিছু পণ্য আমদানি-রফতানি হলেও নানা সীমাবদ্ধতার কারণে অধিকাংশই সক্ষমতা অনুযায়ী ব্যবহার হচ্ছেনা।

ইন্দো বাংলাদেশ চেম্বারের সভাপতি মাতলুব আহমাদ বলেন, 'বেনাপোল থেকে আমি কতগুলো পণ্য আনতে পারবো কিন্তু আমি যদি হলি থেকে পণ্য নিয়ে আসি তাহলে খুব বেশি আনতে পারবো না। এই যে সীমাবদ্ধতার কারণে আমরা ল্যান্ডপোর্ট ব্যবহার করতে পারছি না।  ল্যান্ডপোর্ট তৈরি হয়েছে অথচ ওয়ার হাউজ নাই। কিংবা কাস্টম অফিসারদের বসার জায়গা নাই। ব্যাংক নেই। বেনাপোল এজন্য ওভার ব্যবহার হচ্ছে। আমরা যারা ইনপোর্ট করছি তাদের খরচ বেড়ে যাচ্ছে।'

ব্যবহারকারীরা বলছেন, কুমিল্লার বিবিরবাজার ও শেরপুরের নাকুগাঁও স্থল বন্দরের মতো রাজনৈতিক বিবেচনায় কিছু স্থলবন্দর নির্মিত হয়েছে। যেগুলো ব্যবহার হচ্ছে নামমাত্র।

তবে স্থলবন্দরগুলো আধুনিকায়নের পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের সুবিধা অনুযায়ী পণ্য আমদানির অনুমোদন দিতে এনবিআরকে সুপারিশ করা হয়েছে বলে জানান কর্তৃপক্ষ।

স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান তপন চক্রবর্তী বলেন, 'এনবিআরকে আমরা সব সময় অনুরোধ করি ব্যবসায়ীদের সুযোগ সুবিধা বিবেচনা করে অনুমোদন যেনো দেই। তারা মাঝে মাঝে এগুলো যাচাই করে এবং অনুমোদন দেয়ও।'
১২টি স্থল বন্দরের মধ্যে নিজস্ব তত্ত্বাবাধানে ৭টি ও বেসরকারিভাবে পরিচালিত হয় ৫টি। এসব স্থলবন্দর থেকে বছরে ১৪৮ কোটি টাকা মাশুল পায় স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষ।


1