LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ রবিবার| ২৫ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

প্রকৃতি থেকে হারিয়ে যাচ্ছে মানব দেহের উপকারী মৌমাছি



শহিদুল ইসলাম,বেনাপোল প্রতিনিধি

মানব দেহের জন্য পৃথীবির সবচেয়ে উপকারী ও সুস্বাদু এবং কোন ভাবেই পচনশীল নয় এমন একটি আশ্চার্য খাবারের নাম মধু। সম্পূর্ণ  প্রাকৃতিক ভাবে এই খাবারের তৈরীর গারিগরের নাম মৌমাছি। ছোট্র একটি ক্ষুদ্র প্রাণি পরিশ্রমী ও উপকারী পতঙ্গটি আজ প্রকৃতি থেকে কমে গেছে অধিকাংশ হারে।

কয়েক রকম বিশেষ উপাদানের সংমিশ্রনে তৈরী হয় মধু। আর এমন একটি খাবার শুধু মাত্র এই ছোট্র প্রাণি মৌমাছির দ্বারা সম্ভব। মৌমাছি সাধারণত দলগত ভাবে চলাচল এবং বসবাস করে। মধু তৈরীর এক অভাবনীয় কৌশল আল্লাহ তাআলা এই মৌমাছি পতঙ্গটিকে শিখিয়ে দিয়েছেন। মধু তৈরীর যে কৌশল একটু ভেবে দেখলে বুঝা যায় কেন মধু এত উপকারী এবং আশ্চর্যজনক।

তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, মৌমাছিরা ফুলের মিষ্টি রস শুষে নিয়ে পাকস্থলির উপরে মধু থলি নামক এক বিশেষ অঙ্গে জমা রাখে। এই মিষ্টি রস মধু থলিতে জমা করার সময় এর সঙ্গে তাদের মুখের লালা থেকে বিভিন্ন উৎসেচক মেশায়। এর ফলে এই মিষ্টি রস আংশিক মধুতে পরিনত হয় যা চাকে এনে ঢেলে দেয়। এরপর ঐ চাকে থাকা তরুণ মৌমাছিরা ছুটে এসে ঢেলে রাখা মধু গুলো মুখে ভরে নেয় এবং তাদের লালার সঙ্গে মিশিয়ে তৈরী করে আসল মধু এরপর ঐ মধু জমা করে মধু রাখার খোপে।
শ্রমিক মৌমাছিরা ডানা নেড়ে নেড়ে রক্ষিত মধু থেকে বাড়তি উৎসৃষ্ট্র সরিয়ে দিয়ে খাটি ও ঘন মধুতে রুপান্তরিত করে। মৌচাক থেকে মধু সংগ্রহের সময় সাধারণত চাকটিকে নষ্ট করে ফেলা হয়। এ কাজের সময় অনেক ক্ষেত্রে বিপুল সংখ্যক মৌমাছি মারা পড়ে। এছাড়াও চাকে অবস্খিত ডিম ও বাচ্চা নষ্ট হয়। এরকম অবস্থার ফলে দিন দিন মৌমাছির সংখ্যা কমে যাচ্ছে। ইদানিং ফসলের ক্ষেতে মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশক ব্যবহারের ফলে লোকালয়েও আশঙ্খাজনক হারে মৌমাছির সংখ্যা হ্রাস পাচ্ছে।

পাশাপাশি ফসলের ও মানবদেহের ক্ষতি হচ্ছে। তবে মৌমাছি পালনের মাধ্যমে মৌমাছির সংখ্যাকে বাড়ানো সম্ভব। এরপরে আছে মধুর পুষ্টিগুন ছাড়াও নানাবিধ রোগ উপশমকারী ক্ষমতা। ফুলে ফুলে ঘুরে বেড়ানোর সময় মৌমাছিরা তাদের পা এবং বুকের লোমে ফুলের অসংখ্য পরাগরেণু বয়ে নিয়ে বেড়ায়। এক ফুলের পরাগরেণু অন্য ফুলের গর্ভমুন্ডে পড়লে পরাগায়ন ঘটে, যার ফলশ্রুতিতে উৎপন্ন হয় ফল।
এভাবে মৌমাছিরা পরাগায়নের মাধ্যমে ফল ও ফসলের উৎপাদন বাড়ায়। বিশেষ বিশেষ মৌসুমে মৌমাছির চাষকে বাড়াতে পারলে একদিকে যেমন প্রচুর মধু সংগৃহীত হবে অন্যদিকে ফল বা ফসলের উৎপাদনও বৃদ্ধি পাবে অধিকহারে। তাই প্রকৃতি থেকে মৌমাছি নামক বহুল উপকারী বন্ধু এই ছোট্র পতঙ্গকে টিকিয়ে রাখতে নিজে সচেতন ও অন্যকে সচেতন হওয়া খুবই জরুরি মলে মনে করেন সচেতন মহল।


1