LatestsNews
# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার# গাজীরহাট ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয় # শিরোমণি স্পোর্টিং ক্লাব আয়োজিত ৮দলীয় মিনি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন# শৈলকুপায় অর্ধশত বছরেও আলোর মুখ দেখেনি স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসা!# কালীগঞ্জে পিতা হত্যার দায়ে পুত্রের যাবজ্জীবন কারাদন্ড# ‘আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের কাজে মন্থর গতি’# রাজধানীর সদরঘাটে লঞ্চের ধাক্কায় ডিঙি নৌকা ডুবে নিখোঁজ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।# ঢাকা-উত্তরবঙ্গ রেলরুটে আন্তঃনগর রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়ে সকল প্রকার ট্রেন চলাচল বন্ধ # পলিথিন থেকে জ্বালানি তেল উৎপাদন উদ্ভাবক জামালপুরের তৌহিদুল ইসলাম।# সিলিন্ডার পুনঃপরীক্ষার সনদ ছাড়া গ্যাস মিলবে না গাড়িতে# প্রতিযোগিতায় এগিয়ে রাখতে দেশীয় মোবাইল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রস্তাবিত বাজেটে বেশকিছু শুল্ক সুবিধা পাচ্ছে।# প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মান বন্ধ রয়েছে গ্রামবাসীদের আবেদন জায়গা পুনঃনির্ধারন# মেহেরপুরের গাংনীতে দু’পক্ষের গোলাগুলিতে মাদক ব্যবসায়ী নিহত# ‘নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সংহতি’ বিষয়ে আলোচনা সভা# পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে দেশীয় শ্রমিকদের ক্ষোভের নেপথ্যে চীনাদের 'অকথ্য নির্যাতন'# চাঁপাইনবাবগঞ্জে মনিরুল হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড# ডিআইজি মিজানের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ# খুলনা শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে লাগাতর কর্মসুচি শুরু# অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হারল বাংলাদেশ# দিনাজপুরের হিলিতে দেশের প্রথম লৌহ খনির সন্ধান পাওয়া গেছে।
আজ বুধবার| ২৬ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

‘যায় বাঁধ করে দেবে, হামা তাক ভোট দিমো’



আসাদুজ্জামান সাজু, লালমনিরহাট 

“প্রতি বারে বন্যাত হামার বাড়ি নদীত ভাংগি যায়, যে বার ভাংগি যাইবে না সেই বার বাড়িত পানি উঠি থাকপে ১৫ দিন। এই হলো হামার দশা। যায় হামার তিস্তা নদীত বাঁধ করি দিবে, হামা তাকে ভোট দিমো” এ ভাবেই কথা গুলো বললেন লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ডাউয়াবাড়ী চর এলাকার বাসিন্দা ৬৮ বছর বয়সী শরীফ মোল্লা। 

একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে তিস্তা চরাঞ্চলের ভোটারদের বেশ কদর বেড়ে গেছে। প্রতিদিন প্রার্থীর পক্ষ নিয়ে কর্মীরা যাচ্ছে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। দিচ্ছে নানা ধরনের প্রতিশ্রুতিও। তবে এখানকার ভোটারদের কথা একটাই, যে প্রার্থী তাদের তিস্তা নদীতে বাঁধ ও চলাচলের জন্য রাস্তা তৈরি করে দেবে তাকেই এমপি বানাবেন তারা। দীর্ঘ দিন ধরে ভোট আগে প্রার্থী তিস্তা নদীর বাম তীরে বাধঁ নিমার্ণের প্রতিশ্রুতি দিলেও নির্বাচনের পর তা ভুলে যায়। 

সুত্র মতে,  লালমনিরহাট জেলার উপর দিয়ে বয়ে গেছে তিস্তা, ধরলা ও সানিয়াজানসহ বেশ কয়টি নদী। প্রতি বছর তিস্তা ও ধরলা নদীর ভাঙ্গনে জেলার ৫ উপজেলার হাজার হাজার পরিবার গৃহহারা হয়ে পড়ে। তা ছাড়া বন্যার সময় তিস্তা ও ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি হওয়ায় জেলার অনেক বসত বাড়িসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও আবাদী জমির ফসল নষ্ট হয়। গত ৫০ বছরে জেলার প্রায় দেড় লক্ষাধিক মানুষ বসত-বাড়ি হারিয়ে গৃহহীন হয়ে পড়েছে। তাদের অনেকেই বিভিন্ন রাস্তার ধারে আশ্রয় নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। তবে ওই সব গৃহহীন পরিবারের বেশি ভাগ জীবন যাপনের প্রয়োজনে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে চলে গেছেন। নদী ভাঙ্গন ও বন্যায় সব চেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয় জেলার হাতীবান্ধা উপজেলা। ওই উপজেলার ৬ টি ইউনিয়ন ইতোমধ্যে নদী গর্ভে চলে গেছে। ফলে লালমনিরহাট জেলার নদী ভাঙ্গা মানুষ গুলো দীর্ঘ দিন ধরে হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারাজ থেকে সদর উপজেলার তিস্তা সড়ক সেতু পর্যন্ত তিস্তা নদীর বাম তীরে বাধঁ নিমার্ণের দাবী করে আসছে। 

সরে জমিনে কথা হয় তিস্তা চরাঞ্চলের ৭৫ বয়সী আলিমুদ্দিনের। তিনি বলেন, ‘হামার আরকি বাহে! দিনতো হামার শেষ, কবে মরি যাইমু জানেং না। ভোট আসিল কয়জন বাড়িত আইসে। এ্যালা হামার একটা কথা, যে তিস্তায় বাঁধ ও রাস্তা বানায়ে দেবে তাকেই এবার ভোট দিমো।’ আলিমুদ্দিন লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার ভোটমারী ইউনিয়নের শৈলমারী তিস্তা চরাঞ্চলের বাসিন্দা।

ওই এলাকার নানু মিয়া, জব্বার আলি ও ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘আমাদের জীবন যেন ভাঙা গড়ার খেলার মধ্য দিয়ে চলতে থাকে। বর্ষাকালে নদী ভাঙনের সময় আমাদের মাথা গোজার কোনো জায়গা থাকে না। ভোট আসে, ভোট যায়। কিন্তু প্রতিশ্রুতি শেষ হয় না। তাই এবার যে প্রার্থী তিস্তায় বাঁধ ও রাস্তা করে দেবে তাকেই ভোট দেব।

তিস্তা নদীর বাম তীরে বাঁধ নির্মাণ আন্দোলন গণ-কমিটি’র আহবায়ক রোকুনুজ্জামান সোহেল বলেন, লালমনিরহাট বাসীর প্রাণের দাবী তিস্তা নদীর বাম তীরে বাঁধ নির্মাণ। এ দাবী নিয়ে আমরা দীর্ঘ দিন ধরে আন্দোলন করছি। লক্ষ্য করছি, প্রার্থীরা তাদের ইশতেহারে এবার তিস্তা নদীর বাম তীরে বাঁধ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। 

 


1