LatestsNews
# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার# গাজীরহাট ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয় # শিরোমণি স্পোর্টিং ক্লাব আয়োজিত ৮দলীয় মিনি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন# শৈলকুপায় অর্ধশত বছরেও আলোর মুখ দেখেনি স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসা!# কালীগঞ্জে পিতা হত্যার দায়ে পুত্রের যাবজ্জীবন কারাদন্ড# ‘আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের কাজে মন্থর গতি’# রাজধানীর সদরঘাটে লঞ্চের ধাক্কায় ডিঙি নৌকা ডুবে নিখোঁজ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।# ঢাকা-উত্তরবঙ্গ রেলরুটে আন্তঃনগর রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়ে সকল প্রকার ট্রেন চলাচল বন্ধ # পলিথিন থেকে জ্বালানি তেল উৎপাদন উদ্ভাবক জামালপুরের তৌহিদুল ইসলাম।# সিলিন্ডার পুনঃপরীক্ষার সনদ ছাড়া গ্যাস মিলবে না গাড়িতে# প্রতিযোগিতায় এগিয়ে রাখতে দেশীয় মোবাইল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রস্তাবিত বাজেটে বেশকিছু শুল্ক সুবিধা পাচ্ছে।# প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মান বন্ধ রয়েছে গ্রামবাসীদের আবেদন জায়গা পুনঃনির্ধারন# মেহেরপুরের গাংনীতে দু’পক্ষের গোলাগুলিতে মাদক ব্যবসায়ী নিহত# ‘নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সংহতি’ বিষয়ে আলোচনা সভা# পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে দেশীয় শ্রমিকদের ক্ষোভের নেপথ্যে চীনাদের 'অকথ্য নির্যাতন'# চাঁপাইনবাবগঞ্জে মনিরুল হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড# ডিআইজি মিজানের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ# খুলনা শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে লাগাতর কর্মসুচি শুরু# অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হারল বাংলাদেশ# দিনাজপুরের হিলিতে দেশের প্রথম লৌহ খনির সন্ধান পাওয়া গেছে।
আজ বুধবার| ২৬ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

চুয়াডাঙ্গায় এক বছরে ৩১১৭ বিবাহ বিচ্ছেদ। খতিয়ে দেখার দাবি সচেতন মহলের।



মাহফুজ চুয়াডাঙ্গা
চুয়াডাঙ্গায় আশঙ্কাজনক হারে দাম্পত্য বিচ্ছেদের সংখ্যা বাড়ছে। গত এক বছরে চুয়াডাঙ্গায় বিয়ের সংখ্যা যেখানে ৪ হাজার ৭শ ৮৩টি, সেখানে বিচ্ছেদের সংখ্যা ৩ হাজার ১শ ১৭টি। দাম্পত্য বিচ্ছেদের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণ কি? সুস্পষ্ট জবাব না মিললেও অনেকের অভিমত সেলফোন ও তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে সম্পর্ক গড়ে বিয়ে করা অধিকাংশেরই দাম্পত্য শেষ পর্যন্ত টিকছে না।

তাড়াছা পুরুষের বেকারত্ব সমস্যাও বিচ্ছেদের কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে কোন কোন ক্ষেত্রে। তবে, চুয়াডাঙ্গায় বেশ কয়েকজন ঘটকের দাবি, ঘটকালীর মাধ্যমে বা পারিবারিকভাবে বিয়ে না হওয়ার কারণেই বাড়ছে বিচ্ছেদের ঘটনা।চুয়াডাঙ্গার বেশ কয়েকজন কাজীর সঙ্গে কথা বলতে গেলে তারা বিয়ে এবং বিচ্ছেদ নিয়ে কোন মন্তব্যই করতে চাননি। বলছেন, আমরা এখন বাল্যবিয়ে পড়াই না।

বাল্যবিয়ের কারণে এক সময় তালাকের সংখ্যা বেশি দেখা যেতো। এখন কেন বিচ্ছেদ তা খতিয়ে দেখা দরকার।চুয়াডাঙ্গা জেলা রেজিস্টার অফিস সূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা জেলায় ২০১৮ সালে বিয়ে হয়েছে মোট ৪ হাজার ৭শ ৮৩টি। তলাক তথা বিচ্ছেদ হয়েছে ৩ হাজার ১শ ১৭টি। এর মধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় বিয়ে ১ হাজার ৭শ ৭০টি। বিচ্ছেদ ১ হাজার ৭শ ১৬টি। স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে তালাক ৬শ ৭টি, স্ত্রী কর্তৃক দাম্পত্য বিচ্ছেদ তথা স্বামী তালাক দেয়া হয়েছে ৮৯২টি।

উভয়পক্ষের সম্মতিতে দাম্পত্য বিচ্ছেদ হয়েছে ৭শ ১৭টি।আলমডাঙ্গা উপজেলায় বিয়ে হয়েছে ১ হাজার ৭শ ৬৬টি। বিচ্ছেদ হয়েছে ৩শ ৪টি। স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে তালাকের সংখ্যা ৪২টি হলেও স্ত্রী কর্তৃক স্বামীকে তালাকের সংখ্যা ৩শ ৮২টি। উভয়পক্ষের সম্মতিতে বিচ্ছেদ হয়েছে ৩শ ৪ দম্পতি।


দামুড়হুদা উপজেলায় মোট বিয়ে ৯শ ৪৯টি। স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে তালাক হয়েছে ৩০টি, স্ত্রী ১শ ৭৯ জন স্বামীকে তালাক দিয়েছে। উভয়পক্ষের সম্মতিতে বিচ্ছেদ হয়েছে ১শ ৫০টি।জীবননগর উপজেলায় এক বছরে মোট বিয়ে ৫শ ৯৮টি। স্বামী কর্তৃক তালাক ৪৭টি, স্ত্রী তালাক দিয়েছে ১শ ২৬টি।

উভয়পক্ষের সম্মতিতে দাম্পত্য বিচ্ছেদ হয়েছে ১শ ৪৭। এ সংখ্যাকে আশঙ্কাজনক বলে মন্তব্য সচেতন মহলের।চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার কলাবাড়ি রামনগরের ঘটক ইউনুচ আলী জানান, ঘটকালী শুরু করে শতাধিক বিয়ে দিয়েছি। দিন দিন ঘটকালীর মাধ্যমে বিয়ের সংখ্যা কমতে কমতে এখন শূন্যের কোঠায় চলে এসেছে। এখন মাসে দু একটি বিয়েও আমাদের মাধ্যমে হয় না। অথচ কাজী বসে নেই।

বিয়ে আর তালাকে কাজীর বাণিজ্য জমজমাট। প্রতি হাজার দেনমোহরে সাড়ে ১২ টাকা করে পান কাজী। তবে, দেনমোহর ৪ লাখ টাকা হলে কাজী পান ৫ হাজার। ৪ লাখের উপরে দেনমোহর হলে তখন লাখে একশ টাকা করে বাড়তে থাকে।


1