LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ শনিবার| ২৪ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

সাতক্ষীরায় স্বাস্থ্য বিভাগের ১৮ কোটি টাকা লুট : তদন্ত শুরু



হেলাল উদ্দীন সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালসহ ৭টি উপজেলা কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য যন্ত্রাংশ ক্রয়ের নামে ১৮ কোটি টাকা লোপাটের অভিযোগে ভয়েস অব সাতক্ষীরাসহ বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রচারের পর বিভাগী তদন্ত শুরু হয়েছে।সোমবার দুপুরে খুলনা বিভাগীয় ডেপুটি ডাইরেক্টর তদন্ত কমিটির প্রধান ডা. সৈয়দ জাহাঙ্গীর হোসেন, এ্যাসিসটেন্ট ডাইরেক্টর মন্জুরুল মুরশিদ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাহাতাপ হোসেন এই তদন্ত কার্য সম্পন্ন করেন।

এসময় তদন্ত দলের সঙ্গে আসেন খুলনা বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. রাশেদা সুলতানা।তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে অসঙ্গতিপূর্ণ কাগজপত্র দেখে ও সার্ভে বোডের লিখিত বক্তব্য নিয়ে অনিয়মের বিষয়টি সত্য বলে মনে হয়েছে। তিনি আরও বলেন, কোন সিভিল সার্জন তার চেয়ারে বসে স্বাস্থ্য যন্ত্রাংশ বুঝে না নিয়েই বিল পরিশোধ করেছেন এবং সেটি সৎ উদ্দেশ্যে করেছেন তা প্রমাণিত হয়না।

যদিও তদন্ত রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ এসব মন্তব্য করা সঠিক হবেন।তদন্ত কমিটির ৩ সদস্যকে সঙ্গে নিয়েই খুলনা বিভাগীয় প্রধান (স্বাস্থ্য) ডা. রাশেদা সুলতানা সোমবার দুপুর ১২টার দিকে সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসে আসেন।এসময় উপস্থিত সকলের সামনেই ডা. রাশেদা সুলতানা বলেন, তদন্ত কমিটি আমি গঠন করেছি। আমি কমিটিতে নেই। কোন নয় ছয় যাতে না হয় সেজন্য পত্রিকায় খবর পড়ে ইচ্ছে করেই এসেছি।

ভালভাবে জানতে ও দেখতে। কারণ এই বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে গরম গরম খবর আসছে। তবে খবরের সত্যতা পেয়েছেন নানাভাবে এমনটি তিনি উল্লেখ করেই বলেন, আমি আমার দীর্ঘ চাকরি জীবনে প্রথমে কালিগঞ্জ ও পরে দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দায়িত্ব পালন করেছি। ফলে সাতক্ষীরার প্রতি আমার আলাদা ভালবাসা আছে।

সব সংকট অচিরেই কেটে যাবে এমন আশ্বাস দিয়ে বলেন, দীর্ঘ এই চাকরি জীবনে আমি এমন সমস্যা দেখিনি। সরকারি মাল বুঝে পাওয়ার আগেই বিল পরিশোধ করা হয়। এসময় তিনি আরও বলেন, আমি এখানে এসে একজনকে দেখেই বুঝেছি ঝামেলা আছে। কারণ চুয়াডাঙ্গায় থাকাকালিন সেখানেও একই প্রকৃতির অনিয়ম করেছিল ফজলুল হক। তিনি সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা: রফিকুল ইসলামকে জানান, আপনি উপরে এখুনি বার্তা প্রেরণ করেন এবং এদেরকে সরিয়ে দেন, নাইলে আপনিও ঝামেলায় পড়ে যাবেন।


উল্লেখ্য: গত ১৭-১৮ অর্থ বছরে জেলায় স্বাস্থ্য যন্ত্রাংশ ক্রয়ের জন্য তৎকালিন সিভিল সার্জন ডা. তৌহিদুর রহমান, হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন ও স্টোরকিপার একেএম ফজলুল হক যোগসাজস করে বরাদ্দের ১২ কোটি টাকার পুরোটাই লোপাট করে।

পরে একই টেন্ডারের আওতায় আবারো বরাদ্দ বাড়িয়ে মোট ১৮ কোটি টাকা গায়েব করলে গত ৯ এপ্রিল ঢাকা থেকে উপ-সচিব হাছান মাহমুদ আকর্ষিক সাতক্ষীরায় এসে এসব যন্ত্রাংশ খোঁজ নিলে তা দেখাতে পারেননি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

বিষয়টি নিয়ে ভয়েস অব সাতক্ষীরা, বিভিন্ন আঞ্চলিক ও জাতীয় দৈনিকসহ বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে সংবাদ প্রকাশ হয় এবং জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন।এদিকে দুদক খূলনার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা সিভিল সার্জন অফিসে এসে প্রাথমিক অনুসন্ধান শুরু করলে পরিস্থিতি বুঝে স্টোরকিপার একেএম ফজলুল হক অফিস চলাকালিন সময়ে পালিয়ে যান।

গণমাধ্যমের কাছে দেয়া সাক্ষাৎকারে দুদক কর্মকর্তারা বলেন, প্রাথমিক অনুসন্ধানে সত্যতা পাওয়া গেছে। তদন্তটিমে থাকা তরুণ কান্তি জানান, রিপোর্ট দুদকের প্রধান কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে। অনুমোদন আসলেই মামলা রুজু করা হবে।

এদিকে সার্বিক পরিস্থিতি বুঝে খুলনা বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) পরদিন ২৫ এপ্রিল বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করেন। কিন্তু ঘর্ণিঝড় ফণীর কারণে তদন্তকার্য পিছিয়ে গিয়েছে জানিয়ে বলেন, আগামী ১৫দিনের মধ্যে এই কমিটির রিপোর্ট উচ্চ পর্যায়ে জমা দেয়া হবে।


1