LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ সোমবার| ২৬ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

একটি ছবি, পেইন্টিং কিংবা ভাস্কর্য যে কী পরিমাণ অর্থবহ,



ডা. মাহবুবর রহমান

 

একটি ছবি, পেইন্টিং কিংবা ভাস্কর্য যে কী পরিমাণ অর্থবহ, বাগ্ময়, হৃদয় ভেঙ্গে যাবার মত বেদনার হতে পারে তা গতকাল আবার অনুভব করলাম। জেনেভা শহরের বিশাল লেকপাড়ে মেলানকলি নামের এই ভাস্কর্যটি স্থাপন করেন রোমানিয়ার বংশোদ্ভূত সুইজারল্যান্ডের ভাস্কর আলবার্ট জর্জিও। একজন বয়োজ্যেষ্ঠ পুরুষ চরম বিষন্নতায় জর্জরিত হয়ে সবকিছু হারিয়ে বুকভরা অসীম শূন্যতা নিয়ে নতমুখে শেষবারের মত ভেঙ্গে পড়ার অপেক্ষায় আছেন। তাঁর শূন্যবক্ষ, জীর্ণ শরীর, নুয়ে পড়া দেহভঙ্গি সর্বস্ব হারানোর ইঙ্গিত দিচ্ছে।

ভাস্কর্যটি সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশের সাথে সাথে লক্ষ লক্ষ সন্তানহারা মা বাবা (এখন পর্যন্ত ২১ মিলিয়নের বেশি মানুষ ) তাঁদের কষ্টের কথা, কান্নার কথা বলে চলেছেন। নিজে বেঁচে থাকা অবস্থায় সন্তান হারানো যে কী দুঃসহ অসীম বেদনার তা কেবল ভূক্তভোগীরাই উপলব্ধি করতে পারেন। কয়েকটি মন্তব্য কেবল তুলে ধরছি:

১। শিল্পী আমার বেদনার স্থান স্পর্শ করেছেন। আমার পাঁচ বছরের প্রিয়তম স্যামু্য়েলকে ২০১২ সালে হারিয়ে আমি এখন নিঃস্ব।
২।গতবছর আমার ছেলেটি হারাই যখন আমার বয়স ৩৮। আমি এখন বৃদ্ধা। আমার বুক এই ভাস্কর্যর মত। আমি এখন মৃত্যুর অপেক্ষায় আছি।

 

৩। যাঁদের সন্তান অকালে মারা যায়, আত্মহত্যা করে, মাদকাসক্ত হয় তাঁদের বেদনা মূর্ত হয়ে উঠেছে।

৪। আমার ছেলে জাস্টিনের মৃত্যুতে সহস্র পৃষ্ঠার বই লিখতে পারি কিন্তু এই ভাস্কর্যটি তারচেয়েও বেশি বলে দেয়।

৫। যে নিষ্ঠুর গর্ত আমার বক্ষবিদির্ণ করেছে তা আর কিছুতেই পূর্ণ হবার নয়। এটি যেন আমারই কংকাল।

৬। আমাদের কারো জীবনেরই কোন নিশ্চয়তা নেই। তাই আসুন সবাই একে অন্যের কষ্টে সমব্যথী হই, সান্ত্বনার পরশ নিয়ে পাশে দাঁড়াই।

আমার বন্ধু বেলাল আর কেতকীর কথা মনে পড়ে গেল। তাদের বক্ষবিদির্ণ করে অকালে কেমন করে ধ্রুব চলে গেল ! কোন সান্ত্বনাই তাদের কষ্ট লাঘব করবে না। কিন্তু তারপরও বলতে ইচ্ছে হয় -

“তোমার অসীমে প্রাণমন লয়ে যত দূরে আমি ধাই -
কোথাও দুঃখ, কোথাও মৃত্যু, কোথা বিচ্ছেদ নাই।”

লেখক: সিনিয়র কনসালটেন্ট ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট ও সিসিউ ইনচার্জ
ল্যাবএইড কার্ডিয়াক হাসপাতাল

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)


1