LatestsNews
# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার# গাজীরহাট ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয় # শিরোমণি স্পোর্টিং ক্লাব আয়োজিত ৮দলীয় মিনি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন# শৈলকুপায় অর্ধশত বছরেও আলোর মুখ দেখেনি স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসা!# কালীগঞ্জে পিতা হত্যার দায়ে পুত্রের যাবজ্জীবন কারাদন্ড# ‘আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের কাজে মন্থর গতি’# রাজধানীর সদরঘাটে লঞ্চের ধাক্কায় ডিঙি নৌকা ডুবে নিখোঁজ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।# ঢাকা-উত্তরবঙ্গ রেলরুটে আন্তঃনগর রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়ে সকল প্রকার ট্রেন চলাচল বন্ধ # পলিথিন থেকে জ্বালানি তেল উৎপাদন উদ্ভাবক জামালপুরের তৌহিদুল ইসলাম।# সিলিন্ডার পুনঃপরীক্ষার সনদ ছাড়া গ্যাস মিলবে না গাড়িতে# প্রতিযোগিতায় এগিয়ে রাখতে দেশীয় মোবাইল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রস্তাবিত বাজেটে বেশকিছু শুল্ক সুবিধা পাচ্ছে।# প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মান বন্ধ রয়েছে গ্রামবাসীদের আবেদন জায়গা পুনঃনির্ধারন# মেহেরপুরের গাংনীতে দু’পক্ষের গোলাগুলিতে মাদক ব্যবসায়ী নিহত# ‘নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সংহতি’ বিষয়ে আলোচনা সভা# পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে দেশীয় শ্রমিকদের ক্ষোভের নেপথ্যে চীনাদের 'অকথ্য নির্যাতন'# চাঁপাইনবাবগঞ্জে মনিরুল হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড# ডিআইজি মিজানের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ# খুলনা শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে লাগাতর কর্মসুচি শুরু# অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হারল বাংলাদেশ# দিনাজপুরের হিলিতে দেশের প্রথম লৌহ খনির সন্ধান পাওয়া গেছে।
আজ মঙ্গলবার| ২৫ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

বাণিজ্য ঘাটতি মোকাবেলায় ভারতের কাছে বাংলাদেশের কী দরকার?



 

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি মোকাবেলায় সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন ভারতের বাজারে বাংলাদেশী পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকারের ক্ষেত্রে আরোপিত বাধাগুলো দুর করা। এছাড়া দু’দেশের মধ্যে যোগাযোগ ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির ক্ষেত্রে প্রতিবেশী দেশটির প্রয়োজন বাংলাদেশকে সহায়তা করা। এতে করে পণ্য উৎপাদনে বাংলাদেশের সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে, রপ্তানিও বাড়বে। এমনটাই মনে করেন বাংলাদেশের বাণিজ্য সংশ্লিষ্ট শীর্ষস্থানীয়রা।

চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলেছেন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাস্ট্রিজের সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমেদ এবং সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের(সিপিডি) ফেলো এবং সাবেক নির্বাহি পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান।

বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের প্রায় ১০ শতাংশ হয়ে থাকে ভারতের সঙ্গে। একক দেশ হিসেবে সবচেয়ে বড় বাণিজ্য অংশীদারও প্রতিবেশী দেশটি। তবে দুই দেশের বিশাল বানিজ্য ঘাটতির কারণে ভারত বাংলাদেশ থেকে যতটা সুবিধা নিচ্ছে বাংলাদেশ সেটা পারছে না।এ ঘাটতি দুরীকরণে এই মুহূর্তে ভারতের কাছে বাংলাদেশের আসলে কী দরকার?

আবদুল মাতলুব আহমেদ চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, বাংলাদেশের পণ্য ভারতে প্রবেশের ক্ষেত্রে শুল্কমুক্ত সুবিধা প্রাপ্তির বাধাগুলো(নন ট্যারিফ ব্যারিয়ার) দুর করতে হবে। এতে বাংলাদেশের পণ্য ভারতে রপ্তানি করা অনেক সহজ হবে। ফলে বাংলাদেশ ভারতের বাজারে আরও বেশি পণ্য রপ্তানি করতে পারবে।’

ভারতের যেসব ব্রান্ডের পণ্য বাংলাদেশে উৎপাদিত হয় সেসব পণ্য ভারতেও বিক্রি করার সুযোগ দিলে বাংলাদেশ লাভবান হবে উল্লেখ করে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ‘ভারতের যেসব পণ্য বাংলাদেশে উৎপাদিত হয় যেমন, ডাবুর, ইমামি এসব পণ্য ভারতেও রপ্তানি করার সুযোগ দিতে হবে। কেননা ভারতে এসব ব্রান্ড পরিচিত বলে সহজেই ক্রেতাদের কাছে পৌছানো যাবে।’

শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকারের বাধাগুলো দুর করা জরুরী বলে মনে করেন সিপিডির ফেলো মোস্তাফিজুর রহমানও।

চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি বলেন, ‘শুল্কমুক্ত পণ্য প্রবেশাধিকারে যে বাধাগুলো সম্প্রতি আরোপ করা হয়েছে, যেমন ‘এন্টি ডাম্পিং শুল্ক’ এসব দুর করতে রপ্তানিকে সহজ করতে হবে।’

আন্তঃরাষ্ট্রিক যোগাযোগ ও বিনিয়োগকে দুই দেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণে সবচেয়ে বড় নিয়ামক হিসেবে উল্লেখ করে সিপিডির সাবেক এই নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘বাঁধাগুলো দূর হলেই যে রাতারাতি দুই দেশের বাণিজ্য ঘাটতি কমে যাবে, এমন নয়। এজন্য প্রয়োজন উৎপাদনে সক্ষমতা বাড়ানো।বাণিজ্য ঘাটতি মোকাবেলার সবচেয়ে বড় উপায় পণ্য উৎপাদনে সক্ষমতা বাড়ানো। এই সক্ষমতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় ভুমিকা রাখতে পারে যোগাযোগ ও বিনিয়োগ।’

‘বাংলাদেশ-ভারত যে রেল যোগাযোগ রয়েছে, তা আরও সম্প্রসারণ করলে বা নতুন নতুন যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে। এছাড়া ভারত থেকে বিদ্যুৎ আমদানির যে কথা শোনা যাচ্ছে তা যদি বাস্তবায়িত হয়, তবে আমাদের শক্তি(এনার্জি) ঘাটতি কমবে।আর শক্তি ঘাটতি কমলে তা সক্ষমতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় সহায়ক হবে’ বলেন মোস্তাফিজুর রহমান।

বর্তমানে ভারত এবং বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতি ৪ হাজার ৭৬১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ভারতে বাংলাদেশের রফতানির পরিমাণ ছিল ৬৮৯ দশমিক ৬২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যার বিপরীতে ৫৪৫০.৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য আমদানি করা হয়। অর্থাত্ ভারত এবং বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ ৪৭৬১.০৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চলমান ভারত সফরে অন্যান্য বিষয়ের পাশাপাশি বাণিজ্য ঘাটতি কমানো এবং শুল্ক-অশুল্ক বাধাগুলো দূর করার বিষয়েও ভারতের সঙ্গে আলোচনা হবে বলে আশা অর্থনীতি বিশ্লেষকদের।


1