LatestsNews
# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের। # ফিল্মি স্টাইলে মেহেদিকে ছিনিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা, গ্রেফতার ৪# মুন্সীগঞ্জে প্রতিদিন শাপলা তুলে লাখ টাকা আয় করে কৃষক শ্রেণীর লোকেরা# ব্যাচেলর খ্যাত সালমান খান অবশেষে বিয়ের জন্য নায়িকা পাত্রী খুঁজে পেয়েছেন# সন্ত্রাসীদের অতর্কিত হামলায় ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আহত # নকশা জালিয়াতির অভিযোগে কাসেম ড্রাইসেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাসভীর-উল-ইসলামকে গ্রেফতার।# ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে নার্স ও স্টাফদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা# রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে মিয়ানমারকে আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।# হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর জাতীয় পার্টির বিভক্তি আরো স্পষ্ট হয়ে উঠছে।# ডেঙ্গু মোকাবিলায় সতর্কতা ও সচেতনতা আরো বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা# ঈদের আগে পরে মোট ১৩ দিনে এবার সড়ক, নৌ ও রেল পথে ২৪৪টি দুর্ঘটনায় মোট ২৫৩ জন নিহত ও ৯০৮ জন আহত।# গাইবান্ধা আধুনিক হাসপাতালের বেহাল অবস্থা # ভারতে নিহত মাইনুল ও তানিয়া মরদেহ দেশে আনা হয়েছে# যেভাবে চামড়ার দাম কমানো হয়েছে তা দূরভিসন্ধিমূলক:মসিউর রহমান রাঙ্গা।# বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে রূপপুরে নির্মাণাধীন পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প দেশের দ্বিতীয় মুক্তিযুদ্ধ।
আজ মঙ্গলবার| ২০ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

মুন্সীগঞ্জের স্টেডিয়ামের পরিত্যাক্ত ভবন এখন নেশাখোরদের অভয়াশ্রম



রুবেল মাদবর মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি Channel 4TV :
মুন্সীগঞ্জ জেলা স্টেডিয়ামের পরিত্যাক্ত ভবন এখন নেশাখোরদের অভয়াশ্রমে পরিণত হয়েছে। এখানেরাত যত বৃদ্ধি পায় তত নেশাখোরদের উৎপাত বাড়ে। নেশাখোররা নির্বিঘ্নে নেশা করার জন্য এই পরিত্যাক্ত ভবনটি বেছে নিয়েছে।পরিত্যক্ত ভবনটির দিয়ে ২৪ ঘন্টা খোলা থাকায় মাদকসেবীরা এই জায়গাটি বেছে নিয়েছে। এই ভবনটির দোতালা ছিল গণগ্রন্থগার। এখনপরিত্যাক্ত ভবনের সিড়ি দিয়ে দোতালায় চলে অসামাজিক কাজ ও মাদকব্যবসা।  সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ফেনসিডিলের বোতলের অভাব নেই ওখানে, ইয়াবা খাওয়ার সরঞ্জাম, নেশাজাতীয় বিভিন্ন ওষধ কোম্পানীর সিরাপের বোতলও পড়ে থাকতে দেখা যায় প্রতিনিয়ত।মুন্সীগঞ্জ জেলা স্টেডিয়াম একটি নাম, একটি সু-নামের জায়গা, যেখানে তৈরি হয়েছে আমাদের জাতীয় ফুটবলার তৈরীর অন্যতম একটি নাম মুন্সীগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থা। বলা যায়, বাংলাদেশের সেইনামের অংশে শ্রী স্বপন দাশ, মুকুল দাশ, নওশার, প্রতাপ সংকর হাজরা, আরিফুজ্জামান, রবিন, তারেক, আলফাজ ডন, নজরুল, খোকা, পিকলুছ, বাচ্চু, তারিক কাশেমখান মুকুল, রিপন সহ আরো অনেকেই জাতীয় দলের সুনাম অর্জন করে মুন্সীগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থাকেসারাবিশ্বে পরিচয় করিয়ে দিছে। কারো মতে বলা হয় বাংলাদেশে ফুটবল মানেই মুন্সীগঞ্জ খেলোয়াড় ও দর্শকবৃন্দ। আর এতো কৃতিমান খেলোয়াড়দের জন্ম ভুমির স্টেডিয়ামের পেভিলিয়ান জরাজির্ণ, পরিত্যাক্ত। আর সেই পরিত্যাক্ত রুমে চলে নেশার আড্ডা, অনৈতিক কার্যকলাপসহ আরো অনেক কিছুাই যাহা আমাদের পুলিশ সুপার মহোদয়ের বাসভবোনের সামনেই। তাহলে বিষয়টি কি এমন যে, অনৈতিক কাজ যারা করছে তারা প্রশাসনকে ভয় পায় না? বা প্রশাসন দেখেও না দেখার ভান করেন? অথবা স্টেডিয়াম কতৃপক্ষেরকোন দায় নাই? জরার্জিন প্যাভিলিয়নের এই পরিত্যাক্ত ভবনটিতে এখন এমন কোন নেশা নেই যা চলছে না। সবনেশার আলামত সরোজমিনে গিয়ে দেখা মিললো। এতো গুনিজন, নামী দামী খেলোয়াড়দের স্টেডিয়াম। কেন এতো অবহেলা আর অযত্ন? নানা মানুষের নানান কথা, নানা প্রশ্ন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে জৈনিক ব্যাক্তি বলেন অসাধু লোকদের দিয়ে ক্রিড়া সংস্থার কমিটি করাই এক ধরনের বোকামি। কিছু স্বার্থান্বেষী মহল, রাজনৈতিক ব্যাক্তিগন যুগে যুগে মাঠের দুর্ণীতিকে লালন করে জেলা স্টেডিয়ামের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করে দিেেয়ছে।বাংলাদেশের নামী দামী খেলোয়াড় তৈরী হয়েছিলো মুন্সীগঞ্জ। আজ সেই মুন্সীগঞ্জ জেলায় কোন জাতীয় মাঠ নেই। কেন নেই? এমন প্রশ্ন করে বসলেন অনেকে। আর যাও আছে তা তো দেখছেনই, কতো সুন্দর নেশা করার জন্য খুবই নিরাপদ জায়গা।বিষয়টি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক, শিক্ষা ও আইসিটি) মোহাঃ হারুন অর রশিদ মহোদয়কে অবহিত করলে তিনি বলেন, নেশার বিষয়টি আমি এই প্রথম জানলাম, কেউ আমাকে কিছুই বলেনি, আমি বিষয়টি পুলিশ সুপার মহোদয়কে দিয়ে খুবদ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।


1