LatestsNews
# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার# গাজীরহাট ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয় # শিরোমণি স্পোর্টিং ক্লাব আয়োজিত ৮দলীয় মিনি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন# শৈলকুপায় অর্ধশত বছরেও আলোর মুখ দেখেনি স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসা!# কালীগঞ্জে পিতা হত্যার দায়ে পুত্রের যাবজ্জীবন কারাদন্ড# ‘আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের কাজে মন্থর গতি’# রাজধানীর সদরঘাটে লঞ্চের ধাক্কায় ডিঙি নৌকা ডুবে নিখোঁজ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।# ঢাকা-উত্তরবঙ্গ রেলরুটে আন্তঃনগর রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়ে সকল প্রকার ট্রেন চলাচল বন্ধ # পলিথিন থেকে জ্বালানি তেল উৎপাদন উদ্ভাবক জামালপুরের তৌহিদুল ইসলাম।# সিলিন্ডার পুনঃপরীক্ষার সনদ ছাড়া গ্যাস মিলবে না গাড়িতে# প্রতিযোগিতায় এগিয়ে রাখতে দেশীয় মোবাইল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রস্তাবিত বাজেটে বেশকিছু শুল্ক সুবিধা পাচ্ছে।# প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মান বন্ধ রয়েছে গ্রামবাসীদের আবেদন জায়গা পুনঃনির্ধারন# মেহেরপুরের গাংনীতে দু’পক্ষের গোলাগুলিতে মাদক ব্যবসায়ী নিহত# ‘নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সংহতি’ বিষয়ে আলোচনা সভা# পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে দেশীয় শ্রমিকদের ক্ষোভের নেপথ্যে চীনাদের 'অকথ্য নির্যাতন'# চাঁপাইনবাবগঞ্জে মনিরুল হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড# ডিআইজি মিজানের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ# খুলনা শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে লাগাতর কর্মসুচি শুরু# অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হারল বাংলাদেশ# দিনাজপুরের হিলিতে দেশের প্রথম লৌহ খনির সন্ধান পাওয়া গেছে।
আজ মঙ্গলবার| ২৫ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

মুন্সীগঞ্জের সদরে কারাগারে অন্তরীণ গর্ভবর্তী কয়েদীর সদর হাসপাতালেএ্যাবোশন!



রুবেল মাদবর মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রতিনিধ Channel 4TV :
চিকিৎসার অভাবে কারাগারে অন্তরীণ গর্ভবর্তী ময়নার গর্ভের সন্তান নষ্ট হলো। কিন্তু কেউই মুখ খুলছে না। কারাকর্তৃপক্ষও বিষয়টিকে অন্যখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছেন। অপরদিকে কয়েদী ময়নাকে পুলিশি কড়া পাহারায় হাসপাতালে এ্যাবোশন করিয়ে ১৩নং মহিলা ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। রবিবার সকালে এ্যাবোশন করার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ময়নাকে। গভীর রাতে তাকে হাসপাতালের ১৩নং বেডে কড়া পাহারায় শুয়ে থাকতেদেখা যায় ময়নাকে।মুন্সীগঞ্জ কারাগারের ২বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী ময়না (৩৫) গর্ভবর্তী অবস্থায় জেলা কারাগারে বন্দী হন। ময়নার স্বামী সিরাজ। ময়নার গর্ভের সন্তান কারাকর্তৃপক্ষের অবহেলায় নষ্ট হয়েছে এমন ধারনা হাসপাতালে দেখতে আসা লোকদের। জানা যায়, করাগারেই তার শারীরিক সমস্যা হওয়ায় মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালেএনে এ্যাবোশন করা হয়। কারাগার মহিলা পুলিশ জানান ময়না ৪/৫মাসের গর্ভবতী। ১মাস হয় আমাদের কারাগারে চুরি মামলায় জেলহাজতে আটক আছেন।বিষয়টি নিয়ে নানাজনের নানান কথা, ময়নাকে একপলক দেখার জন্য প্রায় ৫ ঘন্টা অপেক্ষার পর মূমূর্ষ অবস্থায় দেখা মিলে হাসপাতালের ট্রলিতে। কয়েদী ময়না হাসপাতালের ১৩ নাম্বার বেডে রয়েছেন কারারক্ষী ও পুলিশ পাহারায়।হাসপাতালে কারা পুলিশ ও থানা পুলিশের কড়া পাহাড়ায়  ময়নার গর্ভপাত ঘটানো হয়েছে। হাসপাতালের রেজিঃ খাতায় ময়নার তেমন কোনপরিচয় লেখা হয় নাই, যা আছে তাহা মাত্র কারাগারের ঠিকানা। মহিলা কারা রক্ষীসহ জেলা পুলিশ সদস্যও ছিলেন হাসপাতালে। এ বিষয় কারা পুলিশ (মহিলা) সংবাদ কর্মীদের সাথে খারাপ আচরণ করেন। আসামীর দেশের বাড়ী কোথায় কি মামলা তা তেমন কিছুই কারা কর্তৃপক্ষ জানাতে রাজী হননি। জৈনিক পুলিশ নাম না বলার শর্তে বলেন একমাস হয় এই মহিলাকে কারাগারে আনা হয়, তাহার বিরুদ্বে চুরির মামলা রয়েছে বলে জানান তিনি।এমন সময় হাসপাতাল আসা আবুল হোসেন রোগীর ভিজিটর বলেন কারো কথার সাথে কোন কথার মিল নাই, সকাল থেকে মহিলা আসামী হাসপাতালে। বড় কিছু না হলে কারাগার গেট থেকে বাহিরে আনবে কেন? এর আগেও কারাগারে আরো এক মেয়ে আসামীকে ধর্ষণ করার সংবাদ পত্র পত্রিকায় ছাপা হয়।মুন্সীগঞ্জ জেলা কারাগারের জেলার ফরিদুল হাসান রুবেলকে ফোন করলে তিনি বলেন আমরা মহিলা আসামীদের রুটিন মাফিক গায়ীনি চেকাপ করে থাকি। সেই হিসেবে ময়নাকেও চেকাপ করার জন্য হাসপাতাল পাঠানো হয়েছে। ময়নার তেমন কিছুই হয় নাই। ময়নাকে এই নিয়ে তিনবার রুটিন চেকাপ করানো হয়েছে। প্রয়োজনে আমার অফিসে এসে যে কোন তথ্য জেনে নিতে পারেন। কিছুই হয়নি তবে কেনইবা সকাল থেকে হাসপাতালে ময়নাকে এবোশন রুমে রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। কেনইবা হাসপাতালের ১৩নং বেডে ভর্তি করানো হয়েছে। যদি এই রুগীর এবোশন না করা হয়? এমন প্রশ্ন ময়নাকে দেখতে আসা অনেক ভিজিটর।কারাগার ফার্মাসিস্ট নাজনিনকে ফোন করলে তিনি বলেন মহিলা কয়েদী দুই বছরের সাজা নিয়ে জেলখানাতে গর্ভ অবস্থায় আসেন। আমি বিষয়টি গত দের/ দুই মাস আগেই তাহার বিষয় অবগত আছি। মহিলা কয়েদীর যার চিকিৎসা মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালেই করছেন।


1