LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ শুক্রবার| ২৩ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

মাছ রপ্তানিতে ৩৮৩৭ কোটি টাকা আয়



চলতি ২০১৬-১৭ অর্থবছরের ১১ মাসে (জুলাই থেকে মে) হিমায়িত ও জীবিত মাছ রপ্তানিতে আয় হয়েছে ৪৭ কোটি ২৮ লাখ ৫০ হাজার ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ৩ হাজার ৮৩৭ কোটি টাকা।

বাংলাদেশ রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) জুন মাসে প্রকাশিত হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদন অনুসারে এটি এ সময়ের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ দশমিক ০৪ শতাংশ কম। এর মধ্যে অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে শুধু চিংড়ি রপ্তানিতে আয় হয়েছে ৩৯ কোটি ৫৯ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার; যা মোট হিমায়িত ও জীবিত মাছ রপ্তানি আয়ের ৮৩ দশমিক ৭৪ শতাংশ।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে হিমায়িত ও জীবিত মাছ রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৫৩ কোটি ৫৭ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার। চলতি অর্থবছরে এই খাতের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৫৪ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার। এর মধ্যে প্রথম ১১ মাসে ৪৮ কোটি ৭৬ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার আয়ের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে আয় হয়েছে ৪৭ কোটি ২৮ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার। এটি লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১ দশমিক ৮৯ শতাংশ কম।

২০১৫-১৬ অর্থবছরের জুলাই-মে মেয়াদের তুলনায় চলতি অর্থবছরের একই মেয়াদে হিমায়িত ও জীবিত মাছ রপ্তানি আয় ১ দশমিক ৮৯ শতাংশ কমেছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে এ খাতের পণ্য রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৪৮ কোটি ১৯ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার।

২০১৬-১৭ অর্থবছরেরর প্রথম ১১ মাসে জীবিত মাছ রপ্তানিতে আয় হয়েছে ৮০ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার; যা এই সময়ের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১০ দশমিক ৫৪ শতাংশ কম। আলোচ্য সময়ে এই খাতে বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৯০ লাখ ১০ হাজার মার্কিন ডলার। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জুলাই-মে মেয়াদে জীবিত মাছ রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৭৫ লাখ ৮০ হাজার মার্কিন ডলার। অর্থাৎ আগের অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসের তুলনায় চলতি অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে জীবিত মাছ রপ্তানি আয় ৬ দশমিক ৩৩ শতাশ কমেছে।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে হিমায়িত মাছ রপ্তানিতে আয় হয়েছে ৪ কোটি ১১ লাখ মার্কিন ডলার; যা এ সময়ের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ দশমিক ০২ শতাংশ এবং আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৭ দশমিক ৪৫ শতাংশ কম। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জুলাই-এপ্রিল মেয়াদে হিমায়িত মাছ রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৪ কোটি ৪৪ লাখ ১০ হাজার মার্কিন ডলার।

চলতি অর্থবছরের ১১ মাসে চিংড়ি রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৪০ কোটি ৫৬ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার। তবে এই সময়ে আয় হয়েছে ৩৯ কোটি ৫৯ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২ দশমিক ৩৯ শতাংশ কম। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে চিংড়ি রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৪০ কোটি ১৮ লাখ ১০ হাজার মার্কিন ডলার। অর্থাৎ বছরের ব্যবধানে চিংড়ি রপ্তানি আয় ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ কমেছে।

চলতি অর্থবছরে কাঁকড়া রপ্তানিতে আয় হয়েছে ১ কোটি ৭৯ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার; যা এ সময়ের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২০ দশমিক ৩৬ শতাংশ কম। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে এই খাতের পণ্য রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ২ কোটি ১৩ লাখ ২০ হাজার মার্কিন ডলার। অর্থাৎ বছরের ব্যবধানে কাঁকড়া রপ্তানি আয় ১৫ দশমিক ৮১ শতাংশ কমেছে।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই-মে মেয়াদে অন্যান্য হিমায়িত মাছ রপ্তানিতে আয় হয়েছে ৯৭ লাখ ৮০ হাজার মার্কিন ডলার; যা এ সময়ের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩৫ দশমিক ৬৪ শতাংশ বেশি। এর আগের ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসের তুলনায় এই খাতে চলতি অর্থবছরের একই সময়ের আয় ৪২ দশমিক ৯৮ শতাংশ বেড়েছে। গত অর্থবছরে অন্যান্য হিমায়িত মাছ রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৬৪ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার।


1