LatestsNews
# পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে দেশীয় শ্রমিকদের ক্ষোভের নেপথ্যে চীনাদের 'অকথ্য নির্যাতন'# চাঁপাইনবাবগঞ্জে মনিরুল হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড# ডিআইজি মিজানের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ# খুলনা শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে লাগাতর কর্মসুচি শুরু# অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হারল বাংলাদেশ# দিনাজপুরের হিলিতে দেশের প্রথম লৌহ খনির সন্ধান পাওয়া গেছে। # রাজধানীর পরিবাগে একটি ভবনে ভয়াবহ আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে।# রাজধানীতে ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে র‌্যাব ও ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।# দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় লতিফ সিদ্দিকী কারাগারে# রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভুল পদক্ষেপ নিয়েছে জাতিসংঘ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী# মানবিক কারণে আশ্রয় দেয়া হলেও রোহিঙ্গাদের কারণে বনাঞ্চল ধ্বংস হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী# ভবিষ্যতে দেশের সব নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা।# দক্ষিণ আফ্রিকাকে জিততে দিলেন না উইলিয়ামসন# খুলনার শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে অবস্থান ধর্মঘট পালিত# নড়াইলে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে লোহাগড়ায় মানববন্ধন# নওগাঁয় ২ লাখ ৩২ হাজার জাল টাকা উদ্ধার, গ্রেফতার-১# দিনাজপুর বিরলে দেওয়ানজীদিঘী পুকুরে পোনা মাছ অবমুক্তকরণ # শার্শায় অস্ত্র-গুলিসহ আটক ১ # গাজীপুর শ্রীপুরে পল্লী বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটার বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন# নোয়াখালীতে ভুয়া চিকিৎসককে আদালতের নির্দেশে কারাগারে প্রেরণ
আজ বৃহস্পতিবার| ২০ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

৬৮ বছরে আওয়ামী লীগ



৬৮ বছরে আওয়ামী লীগ। যে আদর্শ আর উদ্দেশ্য নিয়ে আওয়ামী লীগের সৃষ্টি, তা থেকে মোটেও দূরে সরে যায়নি দলটি। তবে, সময় বদলেছে; বদলেছে প্রেক্ষাপটও। মনে করেন, দলটির শীর্ষ নেতা তোফায়েল আহমেদ। আরেক নেতা ড. আব্দুর রাজ্জাক বলছেন, আওয়ামী লীগের সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠান। 

বাঙালী জাতির মুক্তির বারতা নিয়ে ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন, ঢাকার টিকাটুলির রোজ গার্ডেনে আত্মপ্রকাশ আওয়ামী লীগের। সভাপতি মজলুম নেতা মাওলানা ভাসানী আর সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক। তৎকালীন পূর্বপাকিস্তানভিত্তিক প্রথম এই বিরোধী দল...আওয়ামী মুসলিম লীগ নামে যাত্রা শুরু করলেও, পরে ধর্মনিরপেক্ষ দল হিসেবে নাম বদলে হয় আওয়ামী লীগ।

৫২ র ভাষা আন্দোলন, ৬৬র ছয় দফা আর ৬৯ এর গণঅভ্যূত্থানে নেতৃত্ব দিয়ে গণমানুষের হৃদয়ে দ্রুতই জায়গা করে নেয় দলটি। যার প্রতিফলন ঘটে ৭০ এর নির্বাচনে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের নেতৃত্বে নিরঙ্কুশ জয়..বাঙ্গালী জাতিকে নিয়ে যায় স্বাধীনতার দ্বারপ্রান্তে। ৭১-এর মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়ে, দেশকে স্বাধীনতা এনে দেয় দলটি।

৭৫ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে হত্যার পর, দলে কিছুটা ভাটা পড়লেও, আবারও গতি পায় ১৯৮১ সালে। ওই বছর দেশে ফিরে দলের নেতৃত্বের ভার নেন তারই সুযোগ্য কণ্যা শেখ হাসিনা। টানা ৩৬ বছর ধরে সভাপতির দায়িত্ব পালন করলেন তিনি।
 
দল হিসেবে আওয়ামী লীগের অর্জনের পাল্লা ভারি হলেও, ৬৮ তম বছরে তাদের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ সবার কাছে গ্রহণযোগ্য জাতীয় নির্বাচনের আয়োজন। এই নেতার মতে, ইশতেহারে ঘোষিত যুদ্ধাপরাধীর বিচার, ডিজিটাল বাংলাদেশের মতো প্রতিশ্রুতিগুলো বাস্তবায়ন হওয়ায়, এবার নতুন করে ভাবতে হচ্ছে দলকে।

আর বর্ষিয়ান নেতা তোফায়েল আহমেদের মতে, ২০০৯ ও ২০১৪ এর নির্বাচনে ক্ষমতায় আসার প্রেক্ষাপট ছিলো মুক্তিযোদ্ধের পক্ষের শক্তিকে একত্রিত করা। এবার পরিস্থিতি ভিন্ন, তাই উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরেই নির্বাচনের মাঠে এগিয়ে থাকতে চায় আওয়মী লীগ। 

এ দু-নেতাই মনে করেন, গেল দুই মেয়াদে দেশের অগ্রগতি আর উন্নয়নের কারণে জনরায় আওয়ামী লীগের পক্ষে থাকবে, আবারো ক্ষমতায় যাবে উপমহাদেশের প্রাচীনতম দলটি।


1