LatestsNews
# আমিরাতে প্রথম বাংলাদেশির গোল্ডেন ভিসা অর্জন# 'মোবাইল রিচার্জে শুল্ক বাড়ানোয় ক্ষতিগ্রস্ত হবে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা'# কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী শহিদুল্লাহ সবুজ নির্বাচিত# লাকসামে স্কুলছাত্রী ধর্ষনের শিকার, ধর্ষনকারী গ্রেপ্তার# দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া কঠিন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম।# রাজধানীতে বিশৃঙ্খলভাবে দেয়াল লিখন ও গাছে বিজ্ঞাপন লাগালে কঠোর ব্যবস্থা'# পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ বা পঞ্চম ধাপের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে এখন চলছে গণনা।# খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি নির্ভর করছে আদালতের ওপর।# রাজধানীর কল্যাণপুরের রাজিয়া পেট্রোল পাম্পে আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।# সালথায় জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্র শিক্ষকদের মাঝে পুরস্কার বিতরন# ঝিনাইদহে মসজিদের মোয়াজ্জিনকে কুপিয়ে ও গলাকেটে হত্যা !# অবশেষে বড় অংকের অর্থের বিনিময়ে মিশরের ইজিপ্ট এয়ার থেকে লিজ নেয়া নষ্ট দুটি উড়োজাহাজ ফেরত দেয়া হচ্ছে।# শুধু সেমির আশা বাঁচিয়ে রাখার জন্যই নয়, দলের আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার জন্য জয়ই দরকার ছিল# রাজশাহীতে জমে উঠেছে হরেক রকম আমের বেচাকেনা।# রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় ব্যর্থ বলে দায় স্বীকার করেছে জাতিসংঘ।# ২৩ উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে# নোয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো ইভিএম পদ্ধতীতে ভোট গ্রহণ # নোয়াখালীর হাতিয়ায় অস্ত্র ও গুলিসহ শীর্ষ জলদস্যু ফরিদ কমান্ডারকে গ্রেপ্তার করেছে কোস্টগার্ড# বেনাপোলে হুন্ডি করে অর্থ পাচারের অভিযোগে ৩ পুলিশ ক্লোজড # নড়াইলে শিক্ষার্থীদের গুলি করে হত্যার হুমকিতে ৪ জনের নামে মামলা দায়ের
আজ বুধবার| ১৯ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের প্রক্রিয়া আটকে আছে আইনি জটিলতায়



 

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধুর দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ খুনির বহু স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের প্রক্রিয়া আটকে আছে আইনি জটিলতার কারণে। ২০১০ সালে গঠিত সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের টাস্ক ফোর্স বর্তমান আইনমন্ত্রীর নেতৃত্বে সচল হয়। বিগত তিন বছরে বঙ্গবন্ধুর কয়েকজন খুনির কিছু সম্পত্তি সরকার বাজেয়াপ্ত করেছে। তবে বাজেয়াপ্ত করার কাজ পুরোপুরি বাস্তবায়ন করতে দীর্ঘ সময় লাগবে।

 

বঙ্গবন্ধুর অন্যতম খুনি কর্নেল ফারুক ২০১০ সালে আরো চারজন খুনির সঙ্গে ফাঁসিতে ঝোলে। অভিজাত এলাকা হিসেবে পরিচিত বনানীতে সামরিক বাহিনীর আবাসিক এলাকা পুরোনো ডিওএইচএস-এ তার জমি ও বাড়ি আছে। ১৯৯৬ সালে সে মায়ের নামে হস্তান্তর করে এই স্থাবর সম্পত্তি। তা ছাড়া ক্যান্টনম্যান্ট বোর্ডের অধীনে হওয়ায় এ সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা সম্ভব হচ্ছে না রাজউকের। ফাঁসিতে ঝোলানো পাঁচ খুনির স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির মালিকানা পরিবর্তন হওয়ায় সেগুলো বাজেয়াপ্ত করতে আইনি বিধানের প্রয়োজন বলে জানালেন আইনমন্ত্রী।

 

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেন, “মারা যাওয়ার পরে স্বাভাবিকভাবেই তাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার জন্য একটা আইন লাগবে। এবং সেক্ষেত্রে এ আইনটা কীভাবে করা যায়, আইনের যে গাইডিং প্রিন্সিপালস (দিকনির্দেশনা) সেগুলো যাতে ক্ষুণ্ণ না হয়, সেই চিন্তাভাবনা করেই সংসদে এ আইন করার একটা অঙ্গীকার আমি দিয়েছ। এ আইন করার ব্যবস্থাো গ্রহণ করা হচ্ছে।”

 

বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আরো সাত আসামি পলাতক রয়েছে। তাদের একজন আজিজ পাশা ২০০২ সালে জিম্বাবুয়েতে মারা গেছে। বাকি ছয়জন নানান দেশে অবস্থান করছে। তাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের ক্ষেত্রে আইনি জটিলতা নেই। তবে এদের সবাই সম্পত্তির মালিকানা হস্তান্তর করায় বাজেয়াপ্তের  প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে বেশি সময় লাগছে ।

 

ইতিমধ্যেই কর্ণেল রশীদ ও মেজর ডালিমের সম্পত্তি বহুলাংশে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বলে জানিয়ে আইনমন্ত্রী আরো বলেন, ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত অনেক আসামিই হয়তো বেনামে তাদের সম্পত্তি রক্ষা করেছে। সেগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

 

বঙ্গবন্ধু হত্যায় দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ খুনির স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তির তালিকা তৈরির কাজ এখনও চলছে। পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রস্তুত করা সময়সাপেক্ষ ব্যপার। ফাঁসিতে ঝোলা কর্নেল ফারুকের ৩০ হাজার শেয়ার আছে জুবলি ব্যাংকে। এখানে পলাতক খুনি কর্নেল রশীদের আছে ৫৫ হাজার শেয়ার। এ ছাড়াও রশীদের গুলশানের প্লট আছে ভিন্ন নামে। গাজীপুরের চান্দিনায় ছয় একর জমি এখনও রশীদের নিজ নামে আছে। কানাডায় পলাতক নুর চৌধুরীর গুলশানের প্লট ২০১৩ সালে রাজউক বাতিল করে। তবে গুলশানে তার আরো সম্পত্তির খোঁজ পেয়েছে সরকার। এই অভিজাত এলাকায় মেজর ডালিমের প্লট এখনও বাজেয়াপ্ত করতে পারা যায়নি। ধানমণ্ডি ও মোহাম্মদপুরে ডালিমের আরও  ১৫ কাঠা জমির খোঁজ পেয়েছে সরকার।

 

এক বছর আগে জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের যে প্রস্তাব পাশ হয়, তার উত্থাপনকারী সংসদ সদস্য নিজেও খোঁজ রাখছেন এসব কাজের অগ্রগতির ব্যাপারে। আইনমন্ত্রীর সাথে নিয়মিত কথা হয় বলে জানিয়ে সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি দ্রুত খুনিদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

দেশের যে জায়গায়ই বঙ্গবন্ধুর খুনীদের সম্পত্তির খোঁজ মিলছে, সেগুলো স্থানীয় জেলা প্রশাসনের সহায়তায় বাজেয়াপ্ত করার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।
 

 

 


1