LatestsNews
# রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে মিয়ানমারকে আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।# হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর জাতীয় পার্টির বিভক্তি আরো স্পষ্ট হয়ে উঠছে।# ডেঙ্গু মোকাবিলায় সতর্কতা ও সচেতনতা আরো বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা# ঈদের আগে পরে মোট ১৩ দিনে এবার সড়ক, নৌ ও রেল পথে ২৪৪টি দুর্ঘটনায় মোট ২৫৩ জন নিহত ও ৯০৮ জন আহত।# গাইবান্ধা আধুনিক হাসপাতালের বেহাল অবস্থা # ভারতে নিহত মাইনুল ও তানিয়া মরদেহ দেশে আনা হয়েছে# যেভাবে চামড়ার দাম কমানো হয়েছে তা দূরভিসন্ধিমূলক:মসিউর রহমান রাঙ্গা।# বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে রূপপুরে নির্মাণাধীন পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প দেশের দ্বিতীয় মুক্তিযুদ্ধ।# চলনবিলে পর্যটকের ঢল# চলনবিলে পর্যটকের ঢল# সৌদি আরবে বাংলাদেশি হাজিদের বহনকারী একটি বাস দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন# সৌদি আরবে বাংলাদেশি হাজিদের বহনকারী একটি বাস দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন# পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন বাংলাদেশের দুজন নাগরিক। # জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ‘ফ্রেন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ বা ‘বিশ্ববন্ধু’ হিসেবে আখ্যা দেয়া হলো# ডেঙ্গু প্রতিরোধ-সচেতনতায় 'স্টপ ডেঙ্গু' অ্যাপ চালু # অবশেষে টাইগারদের নতুন কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার রাসেল ডোমিঙ্গাকে।# পশ্চিমবঙ্গে বজ্রপাতে ৬ বাংলাদেশিসহ আহত ২৪, নিহত ৭# রাজধানীর মিরপুরে চলন্তিকা মোড়ের বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে# বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ আট শহরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বর্ষ উদযাপন করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।# ময়মনসিংহের গৌরীপুরে বাসের চাপায় প্রাণ গেল একই পরিবারের ৫ জনের
আজ রবিবার| ১৮ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

দেশীয় পদ্ধতিতে গরু মোটা তাজা করণে ব্যাস্ত মুন্সীগঞ্জের খামারীরা



রুবেল মাদববর মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি :
আসন্ন কুরবানির ঈদকে সামনে রেখে ব্যাস্ত হয়ে পড়েছে মুন্সীগঞ্জের গরুর খামারীরা। দেশীয় পদ্ধতিতে গরু মোটা তাজা করণে ব্যাস্ত সময় পার করছে জেলার অসংখ্য খামারী। দেশীয় পদ্ধতিতে এ অঞ্চলের গবাদী পশুর মোটা তাজা করণ করায় কোরবানির হাটে চাহিদাও থাকে অনেক বেশী। তাই বরাবরের মতো এবারও এ খানকার খামারীরা বলছে এবার ভারত থেকে গরু আসা বন্ধ থাকলে লাভবান হবেন বলে আশা রাখেন। 
মুন্সীরহাট, পঞ্চসার ও মিরকাদিম পৌরসভা এলাকার বেশ কয়েকটি গরুর খামারে গিয়ে দেখা যায়, পরম যতেœ গরুগুলো দেখ ভাল করছেন খামরীরা। তারা গরুর সুঠাম দেহ আর সৌন্দর্য্য বৃদ্ধিতে ব্যাস্ত সময় পার করছেন। তার কারণ হিসাবে খামারীরা বলেন, গরু দেখতে যতো আকর্ষনীয় হবে, তার দাম হবে তত বেশী। তাই গরুর খাদ্য তালিকা বেশ সমৃদ্ধ। তবে কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা কৃত্রিম উপায়ে গরু মোটা তাজা করছে।
মিরকাদিম পৌর এলাকার বাসিন্ধারা বলছেন, এ অঞ্চলের বেশির ভাগ খামরীরা দেশীয় পদ্ধতিতে গবাদী পশু মোটা তাজা করছেন। ইনজেকশন  ও মোটা তাজা করণে ট্যাবলেট পরিহার করে ঘাস খড়ের পাশাপাশি কৈল গুড়া, ভূষি খাদ্য হিসাবে খায়োনো হচ্ছে। আর বেশির ভাগ খামারে রয়েছে দেশীয় গরু। বাজারে দেশীয় গরুর ব্যাপক চাহিদা থাকায়  ছোট বড় খামারের পাশাপাশি প্রতিটি কৃষক পরিবারে ঈদকে সামনে রেখে গরু মোটা তাজা করেছে। কৃষক পরিবারের যারা গরু লালন পালন করেন তারাও দেশী পদ্ধতিতে মোটা তাজা করে ব্যাস্ত সময় পার করছেন। 
মুন্সীগঞ্জে সদর উপজেলার খামারী জাকির হোসেন বলেন, বর্তমানে আমার খামারে ৫০টি গরু রয়েছে। এর মধ্যে ৪০টি গরু আসনন্ন কোরবানির হাটে বিক্রির উদ্দেশ্যে যতœ নেওয়া হচ্ছে। ঈদের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। তাই এখন থেকে গরুর বেশি যতœ নিচ্ছি। যাতে ভালো দামে বিক্র করতে পারি।
স্থানীয় খামারীরা প্রিয়.কম-কে বলেন, গো খাদ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় এবার কুরবানির হাটে দেশী গরুর দাম তুলনা মূলক বৃদ্ধি পাবে। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী গরু মোটা তাজা করণে ডেকাসন, পিকটিম জাতীয় এ ধরনের ঔষধ ব্যবহার করছেন বেশি লাভের আশায়। 
খামারী জালাল হোসেন জানান, গরুর পেছনে দৈনিক তিন’শ টাকা খরচ লাগছে। আগে যেভাবে ঈদকে সামনে রেখে গরুর খামারগুলোতে গবাদী পশু লালন পালনে প্রতিযোগতিা শুরু হতো তা এখন আর নেই। অনেকেই গরু লালন পালনে খরচ বেড়ে যাওয়ায় এই পেশা ছেড়ে সরে দাঁড়াচ্ছেন। তাছাড়া আগের মতো গরু লালন পালন করার জন্য রাখালও পাওয়া যাচ্ছেনা।
জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. ফজলুল হক শেখ জানান, খামারী ও কৃষকরা যাতে বিষাক্ত কোন রাসানিক ব্যবহার না করে সে জন্য নানা রকম পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে । পাশাপাশি তাদের গরুর সঠিক চিকিৎসা দেওয়া জন্য আমরা খোঁজ নিচ্ছি


1