LatestsNews
# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের। # ফিল্মি স্টাইলে মেহেদিকে ছিনিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা, গ্রেফতার ৪# মুন্সীগঞ্জে প্রতিদিন শাপলা তুলে লাখ টাকা আয় করে কৃষক শ্রেণীর লোকেরা# ব্যাচেলর খ্যাত সালমান খান অবশেষে বিয়ের জন্য নায়িকা পাত্রী খুঁজে পেয়েছেন# সন্ত্রাসীদের অতর্কিত হামলায় ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আহত # নকশা জালিয়াতির অভিযোগে কাসেম ড্রাইসেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাসভীর-উল-ইসলামকে গ্রেফতার।# ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে নার্স ও স্টাফদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা# রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে মিয়ানমারকে আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।# হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর জাতীয় পার্টির বিভক্তি আরো স্পষ্ট হয়ে উঠছে।
আজ বুধবার| ২১ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

জয়পুরহাটে-চাল নিয়ে চালবাজি-মূল্য বৃদ্ধি অব্যাহত-নিয়ন্ত্রন নেই প্রশাসনের।



জেলা ব্যুারো প্রধান:জয়পুরহাট:- চালের মূল্য বৃদ্ধি, চাল কল মালিকগনের চাল সংরক্ষন,সরকারী খাদ্য গুদামে চাহিদার চেয়ে কম মজুত সহ চাল নিয়ে জয়পুরহাটে চলছে চালবাজী।

গত ১৮-২০ সেপ্টেম্বর তিন দিনে জয়পুরহাট  বাজারে সব রকম চাল কেজি প্রতি ৫-৮ টাকা মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে।

আজ ২১ সেপ্টেম্বার বৃহস্পতিবার জয়পুরহাট আমতলী পাইকারি চাল বাজারে নাজিরশাল চাল বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৬৫ টাকা, হাইব্রিড ৫৫, বিআর(২৮) ৪৮, স্বর্না ৫৮,লোকাল মোটা চাল ৪৩ টাকা দরে। যা গত সপ্তাহের তুলনায় ৫-৮ টাকা বেশী।

জয়পুরহাট জেলায় চালের মূল্য বৃদ্ধির সঠিক কারন কেউ বলতে না পারলেও খুচরা বিক্রেতা পাইকারী বিক্রেতাকে, পাইকারী বিক্রেতা চাল কল মালিক গনকে দায়ী করছে নিয়মিত। এছাড়াও সরকারি গুদামে চাল মজুত না থাকা এবং সেই সুযোগ নিয়ে জয়পুরহাটের চাল কল মালিকগন সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চালের মূল্য বৃদ্ধি করছে বলেও জানান -কিছু ছোট ছোট চাল ব্যবসায়ীগন।

জেলা খাদ্য  গুদামের দায়িত্বরত সংরক্ষন ও চলাচল কর্মকর্তা(এসএমও) সৈয়দ আতিকুল হক জানান- এ মৌসুমে চাল সংরক্ষনের টার্গেট ছিল ৪৭৭০ মেট্রিক টন। যার বিপরিতে চাল কলের সাথে চুক্তি হয় মাত্র ২০৮২ মেট্রিক টন।যার বিপরিতে আজ পর্যন্ত সংগ্রহ হয় ১৫৩৫ মেট্রিক টন। যার মধ্যে বর্তমান(২১ সেপ্টেম্বর) চাল সংরক্ষিত আছে ১৩৬১.৩১৮ মেট্রিক টন।যা গত কয়েক বছরের তুলনায় কম।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান-জয়পুরহাট জেলায় চুক্তি ভূক্ত চাল কলের মধ্যে *মন্ডল এগ্রো অটো রাইস মিল* তার চুক্তির ৫৩৯.১০০ মেট্রিক টন চাল সরবরাহ করেছে। প্রত্যেক চুক্তি ভুক্ত চাল কলের চাল সংরক্ষন মৌসুমে সরকারি খাদ্য গুদামে চাল দেওয়ার নিয়ম থাকলেও* মন্ডল এগ্রো অটো রাইস মিল* ছাড়া কোন মিলই তার চুক্তি মোতাবেক চাল জয়পুরহাট সরকারী খাদ্য গুদামে এখনও সরবরাহ করে নাই। এর মধ্য *আরাফাত আটো রাইস মিলের* সাথে ৪৩২.২৪০ মেট্রিক টন চালের চুক্তি থাকলেও তার বিপরিতে এক টন চালও সরবরাহ করে নাই।

এর কারন হিসাবে তিনি সরকার নির্ধারিত মূল্য কম থাকার কারনে এ মৌসুমে চাল কল মালিকগন সরকারী গুদামে চাল না দেওয়া এবং বেশী মুনাফার আশায় তা খোলা বাজারে বিক্রি করাকে দায়ী করলেন।

জয়পুরহাট সরকারি জেলা খাদ্য গুদামের তালিকা অনুযায়ী জয়পুরহাট জেলায় সরকার কর্তৃক চুক্তি ভুক্ত চাল কল আছে ৬ টি। এর মধ্যে ১/২ টি ছাড়া প্রায় সব চাল কল সরকার কর্তৃক চুক্তি ভুক্ত হওয়ার পরও চাল সরকারী খাদ্য গুদামে না দিয়ে তা বেশী মুনাফার উদ্দ্যেশে  সংরক্ষন করে রেখেছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যপারে জয়পুরহাট (নাম প্রকাশ না করার শর্তে) এক অটো রাইস মিল মালিক বলেন বেশী মুনাফার উদ্দ্যেশে চাল সংরক্ষনের কথা সঠিক না। এ বছর প্রাকৃতিক দূর্যোগ, চাহিদা মতো বিদ্যুৎ সরবরাহ না থাকা, সরকার নির্ধারিত মুল্য কম থাকা সহ বেশ কিছু কারনে অটো রাইস মিল মালিকগন সময় মতো চাল উৎপাদন করতে না পারায় সাময়িক চালের বাজার একটু অস্থির।

তবে উক্ত অটো রাইস মিল  মালিকের কথা আর বাস্ত্যব চিত্র আলাদা। খোজ নিয়ে জানা যায়-বাজারে চালের সরবরাহ কম থাকলেও প্রায় প্রতিটি চাল কলের গুদামে যথেষ্ঠ পরিমান চাল মজুত আছে।

এ দিকে চাল মজুত করা এবং বেশী দামে তা বাজারজাত করার অপরাধে সরকার নঁওগা,কুষ্টিয়া,যশোহর সহ বেশ কিছু জেলার চাল কল মালিক এবং প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানূগ ব্যবস্থা গ্রহন করার প্রতিবাদে অনেক মালিকগন সর্ম্পুন নিজ ইচ্ছায় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বাজারে চাল সরবরাহ কমিয়ে কৃত্রিম ভাবে চালের মুল্যবৃদ্ধি করছে বলেও জানা যায়।

এক প্রশ্নের জবাবে (নাম না প্রকাশের শর্তে) জয়পুরহাট সরকারি খাদ্যগুদামের এক কর্মকর্তা জানান জয়পুরহাট জেলার চাহিদা অনুযায়ী সরকারি খাদ্যগুদামে চাল সংরক্ষিত না থাকলেও জেলার প্রায় সব চাল কলে চাল মজুত আছে যথেষ্ট।সরকারের সঠিক তদারকির অভাবে এবং কিছু কর্মকর্তা ও সরকার দলীয় কিছু নেতার অসৎ কর্মকান্ডের কারনেই মুলোতো জয়পুরহাট জেলায় চালের মুল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এক প্রশ্নের জবাবে বাজার কমিটি জানায়-সরকার তার নির্ধারিত বাজার মনিটরিং সংস্থা,আইনশৃঙ্খলা বাহিনি এবং জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে প্রতিটি চাল কল পরিদর্শন নিয়মিত করন এবং অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন সহ দুর্নিতীমুক্ত বাজার মনিটরিং করলে চাল সহ সব ধরনের খাদ্য সামগ্রীর মূল্য নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব।

এদিকে চাল সহ প্রায় সব ধরনের খাদ্য সামর্গ্রীর দাম উর্ধোগতির কারনে জয়পুরহাট জেলার নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ পড়েছে বিপাকে। অনেকে চালের মূল্য বৃদ্ধির কারনে পরিবারে খাবারের পরিমান কমিয়ে ফেলতেও বাধ্য হচ্ছেন।

এমন পরিস্থিতিতে এখনই চালের মূল্য নিয়ন্ত্রন করতে না পারলে সরকার আগামী নির্বাচনে সমস্যায় পড়তে পারে বলেও মনে করেন অনেকে।


1