LatestsNews
# মৌলভীবাজারে ক্ষতিগ্রস্থ প্রত্যেক ঘর পাকা করে দেওয়া হবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী# কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ব্রহ্মপূত্রের ভাঙনে রৌমারী-রাজিবপুর প্লাবিত# শিক্ষা সহায়ক স্বপ্নপূরন সংগঠনের উদ্যোগে দরিদ্র দুই শিক্ষার্থীকে সহায়তা প্রদান # শৈলকুপায় কৃকদের নিকট থেকে ধান কিনছেন ইউএনও# ঝিনাইদহ জেলা জুড়েই পোষ্ট অফিসের কর্মচারী কর্মকর্তাদের চলছে বেহালদশা# খুলনার শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল অচলাবস্থা রোগী ও তাদের স্বজনদের চরম ভোগান্তি# ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় আমবোঝাই ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা নিহত ২# ভারতের গুজরাটে ১৮ বছরের নিচে মোবাইল নিষিদ্ধ# একই পাঞ্জাবির দামে হেরফেরের দায়ে আড়ংয়ে আবারও পাঞ্জাবি কাণ্ড, ফের জরিমানা# যুক্তরাষ্ট্র থেকে এক বাংলাদেশি অভিবাসন ইস্যুতে বহিষ্কার।# রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশকে গঠনমূলক সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে চীন।# রোহিঙ্গা সংকটের জন্য মিয়ানমার সরকারই দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার।# নরসিংদীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ১৩ দিন লড়াই করে হার মানলেন দগ্ধ ফুলন# নোয়াখালীতে ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড # ঝিনাইদহে প্রভাবশালীরা ঘের ও পুকুর কেটে চলেছেন, অবৈধ পুকুর খননে কৃষকরা হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত# লোহাগড়ায় ৫’শ পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারী আটক# বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মাহমুদুলকে যোগদানে দিনভর উত্তেজনা # শিরোমনি উত্তরপাড়ায় খেলতে গিয়ে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যুঃ এলাকায় শোকের ছায়া# নোয়াখালীর চৌমুহনীতে আধিপত্য বিস্তারের জেরে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীদের গুলিতে যুবকের মৃত্যু# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার
আজ বৃহস্পতিবার| ১৮ জুলাই ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

বহাল তবিয়তে দাপটের সাথে চট্টগ্রামের নিউমুরিং অবৈধ বিদ্যুৎ চুরির মূল হোতা জসিম হাওলাদার।



বহাল তবিয়তে দাপটের সাথে চট্টগ্রামের অবৈধ বিদ্যুৎ চুরির মূল হোতা জসিম হাওলাদার। এখনও দাপটের সাথে চালিয়ে যাচ্চে নিউমুরিং বিদ্যুৎ অফিসের দুর্নীতি। উচ্চ মহলের কিছু কর্মকর্তা কে ম্যানেজ করে বদলী না হওয়ার জন্য খরচ করলেন ৩০ লক্ষ টাকা। এ দিকে পিডিবির হয়রানীর মুখে চট্টগ্রাম বন্দর দক্ষিণ হালি শহর বাসি। প্রতি মাসের বাড়তি ভুতুড়ে বিলে অতিষ্ট গ্রাহকরা। এ ছাড়া বিদ্যুৎ  উন্নয়ন বোর্ড চট্টগ্রাম দক্ষিণ হালিশহর নিউমুরিং শাখার বিরুদ্ধে অবৈধ মিটার স্থাপন করে বিদ্যুৎ এর ভুতুরে বিলের অভিযোগ অহরহ ঘটছে। এসব এলাকার গ্রাহকরা প্রতি মাসে গুনছেন দ্বিগুণ বিল। অত্র এলাকার বিদ্যুৎ ভোগান্তি  নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। গ্রাহক অভিযোগ কে তুয়াক্কা না করে প্রতি মাসে কোন না কোন গ্রাহক কে গুনতে হচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। টাকা পরিশোধ না করলে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন্য করন সহ মামলার ভয় দেখিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা যার মুল হোতা জসিম হাওলাদার। অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে জি ই সি মোড়ে করেছেন ফ্লাট বাড়ি,কলসি দীঘি পাড়ে বরিশাল কলোনি নামে গড়েছেন বিশাল ভাড়া বাড়ি পতেঙ্গা প্লাস্টিক ফ্যাক্টরীর পাশ্বে এবং পতেঙ্গা জেলেপাড়ায় রয়েছে কোটি টাকার জায়গা । নামে বেনামে করেছেন বিভিন্ন্য ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান। কোটি কোটি টাকার বিশাল সম্পদের পাহাড় গড়েছেন এই জসিম হাওলাদার। গ্রাহকের মিটারে বর্তমান রিডিং ৩৮০৭ থাকলেও তা বৃদ্ধি করে হয়ে যায় ৫১৫০ রিডিং । এ ব্যাপারে মিটার রিডার জসিম হাওলাদারের বিরুদ্ধে নিউমুরিং শাখায় অতিরিক্ত রিডিং  দিয়ে হয়রানির প্রসঙ্গে অভিযোগ রয়েছে শত শত।বিদ্যুৎ বিলে চরমভাবে গরমিল ও অবৈধ মিটার স্থাপন করে প্রতিমাসে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এই জসিম হাওলাদার ও তার সিন্ডিকেটরা। ডিজিটাল মিটার খুলে ডিসপ্লে চেন্স করে নতুন ডিজিটাল মিটারের ডিসপ্লে লাগান এই জসিম হাওলাদার। যার মিটার নাম্বার ৩২৭৪৪৫। মিটার রিডিং ঘুরানো, ডিজিটাল মিটার বাড়তি বিল আসলে জমা ইউনিট ফেলে দিয়ে নতুন মিটার লাগিয়েছেন তিনি। মিটার নাম্বার নিল লিখে বিল করে যাতে সহজেই কারচুপি করতে পারে।সহকারী প্রকৌশলী মোঃ  শাহাদত হোসেন বাদী হয়ে বিদ্যুৎ চুরির মামলা করেন যার মামলা নং ৫২১/১৭। বিদ্যুৎ  উন্নয়ন বোর্ড ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জসিম হাওলাদারের বিরুদ্ধে ৫ লক্ষ ১৮ হাজার ২৩ টাকা জরিমানা করেন জেল হাজতে প্রেরন করে। জরিমানার প্রথম কিস্তি ২ লক্ষ ১৮ হাজার টাকা পরিশোধ করে ৬ টার সময় অফিস এসে হজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে। যা সম্পুন্য অবৈধ এবং অপরাধ যোগ্য । হাজিরা দেওয়ার পর সহকারী প্রকৌশলী তাকে স্বাক্ষর বিসয়ে জিঙ্গাসা করলে তিনি উল্টা তাকে হুমকি দিয়ে বদলি করে দেবেন বলে হুমকি দেয়।তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে কেউ সাহস করে না। গত ২৯ সে আগষ্ট চট্টগ্রাম এর এবং জাতিয় কয়েকটি পত্তিকায় খবর ছাপা হলেও তার বিরুদ্ধে এখও পর্যন্ত কোন ব্যাবস্থা গ্রহন করেনি। তার অপকর্মের ব্যাপারে কেউ মুখ খুলতে গেলে তাকে নানা হুমকিতে পড়তে হয় যে কারনে কেউ মুখ খুলতে রাজি নয়। অত্র এলাকার গ্রাহক রা তার দুর্নিতি বন্ধ করে এবং তার অবৈধ সম্পদের তদন্ত করে দুদকে তার অবৈধ সম্পদের তদন্তের দাবি যানান।তার বিরুদ্ধে বদতি করে যথাযত ব্যাবস্থা গ্রহনের দাবী জানান


1