LatestsNews
# এবছর শিক্ষা খাতে বাজেটের আকার বাড়লেও তা শতাংশে কমেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।# পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে বাংলাদেশি ও চীনা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৮ চীনা শ্রমিক আহত হয়েছেন।# দেশে ফলের উৎপাদন বাড়াতে প্রতিনিয়ত চলছে নানা গবেষণা- কৃষকদের উৎসাহিত করতে যত আয়োজন# মোবাইল ফোনে বাংলায় এসএমএস (মেসেজ) পাঠালে খরচ অর্ধেক ছাড় দেয়া হবে।# বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য হলেন সেলিমা ও টুকু# মানুষের খাদ্য তালিকার প্রাণীর এসব খাবার এ যেন মানুষ মারার কারখানা# রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মার্কেটে আগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।# আমিরাতে প্রথম বাংলাদেশির গোল্ডেন ভিসা অর্জন# 'মোবাইল রিচার্জে শুল্ক বাড়ানোয় ক্ষতিগ্রস্ত হবে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা'# কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী শহিদুল্লাহ সবুজ নির্বাচিত# লাকসামে স্কুলছাত্রী ধর্ষনের শিকার, ধর্ষনকারী গ্রেপ্তার# দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া কঠিন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম।# রাজধানীতে বিশৃঙ্খলভাবে দেয়াল লিখন ও গাছে বিজ্ঞাপন লাগালে কঠোর ব্যবস্থা'# পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ বা পঞ্চম ধাপের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে এখন চলছে গণনা।# খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি নির্ভর করছে আদালতের ওপর।# রাজধানীর কল্যাণপুরের রাজিয়া পেট্রোল পাম্পে আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।# সালথায় জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্র শিক্ষকদের মাঝে পুরস্কার বিতরন# ঝিনাইদহে মসজিদের মোয়াজ্জিনকে কুপিয়ে ও গলাকেটে হত্যা !# অবশেষে বড় অংকের অর্থের বিনিময়ে মিশরের ইজিপ্ট এয়ার থেকে লিজ নেয়া নষ্ট দুটি উড়োজাহাজ ফেরত দেয়া হচ্ছে।# শুধু সেমির আশা বাঁচিয়ে রাখার জন্যই নয়, দলের আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার জন্য জয়ই দরকার ছিল
আজ বুধবার| ১৯ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

আমন ক্ষেতের পোকা দমনে আলোর ফাঁদ-পার্চিং পদ্ধতির ব্যবহার



শাহিনুর ইসলাম প্রান্ত,লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

লালমনিরহাটে এ বারের দু’দফা ভয়াবহ বন্যা থেকে রোপা আমন ক্ষেতকে রক্ষার পর এখন পোকার আক্রমণ থেকে ক্ষেতকে রক্ষা করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে চাষীরা। বিভিন্ন রকমের নামীদামী কীটনাশক স্প্রে করেও পোকা দমন না হওয়ায় আলোর ফাঁদ, জীবন্ত পার্চিং ও মৃত পার্চিং পদ্ধতি ব্যবহার করে সফলতার পাচ্ছে চাষীরা।

 

এ বছর জেলার পাঁচটি উপজেলায় ৮২ হাজার ২৫৯ হেক্টর জমিতে আমন ধান রোপণের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও অর্জিত হয়েছে ৮৪ হাজার ৭১০ হেক্টরে।

 

কৃষি বিভাগের দাবি, ৯৮ শতাংশ আমন ক্ষেতেই পার্চিং করা হয়েছে। আমন ধানের ক্ষেত থেকে বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কঁচুরিপানা ও অগাছা পরিষ্কার করে সার ব্যবহারের পর আমন ধান ক্ষেত রক্ষা করতে চেষ্টা করে যাচ্ছে জেলার হাজার হাজার চাষী।

 

চাষীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিভিন্ন কোম্পানীর নামী ও দামী কীটনাশক স্প্রে করলেও কিছুক্ষণের জন্য পোকা এক ক্ষেত থেকে অন্য ক্ষেতে চলে যায়। কীটনাশকের গন্ধ সরে গেলে ক্ষেতে আবারও পোকার অগমন শুরু হয়। এক্ষেত্রে পার্চিং ও আলোর ফাঁদ পদ্ধতি প্রয়োগ করা হচ্ছে। যাতে পোকা সরানো নয়, মেরে ফেলে বা পাখিকে দিয়ে খাইয়ে সমূলে ধ্বংস করা যাচ্ছে।

 

সরে জমিনে দেখা গেছে, জীবন্ত পার্চিং হিসেবে আমন ধানের ক্ষেতে ধৈঞ্চা গাছ লাগিয়েছেন চাষিরা। ওই সব গাছে পাখি বসে ক্ষতিকর পোকা খেয়ে ফেলছে। ধৈঞ্চার শিকড় নাইট্রোজেনের কাজও করছে। কেউ কেউ জমিতে পুঁতে দিয়েছেন বাঁশের কঞ্চি বা শুকনো গাছের ডালপালাও, যেন পাখি বসে পোকা গুলোকে খেয়ে ফেলতে পারে। আলোর ফাঁদ পদ্ধতিতে রাতে ক্ষেতে আলো জ্বালিয়ে তার নিচে পাতিলে ডিটারজেন্ট পাউডার মেশানো পানি রেখেছেন চাষিরা। আলো পেয়ে পোকা-মাকড় উড়ে এসে পাতিলের পানিতে পড়ে মারা যাচ্ছে। এতে শনাক্তও করা যাচ্ছে যে, ওই এলাকায় কোন প্রজাতির পোকা আক্রমণ করেছে। পরে তা দমনে আরও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

 

হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা এলাকার চাষী আবেদ আলী, আতিয়ার রহমান ও আব্দুস সামাদ জানান, কীটনাশক স্প্রে করে পোকা দমন সম্ভব হচ্ছে না। জীবন্ত পার্চিংয়ের গাছে পাখি বসে তাদের আমন ক্ষেতের ক্ষতিকর পোকা গুলোকে খেয়ে ফেলছে। ফলে এখন পর্যন্ত পোকার আক্রমণ দেখা যায়নি।

 

হাতীবান্ধা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, পোকা দমনে পার্চিং ও আলোর ফাঁদ পদ্ধতিতে কৃষকদের নিয়মিত উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। উঠান বৈঠক করে সমন্বিত উদ্যোগের পরামর্শ ও লিফলেট দেওয়া হচ্ছে। কৃষকরা সজাগ ও সচেতন হওয়ায় পোকার আক্রমণ তেমন একটা দেখা যাচ্ছে না বলেও দাবি করেন তিনি।

 

লালমনিরহাট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক বিধু ভূষণ রায় জানান, ধান ঘরে তোলা পর্যন্ত কৃষকরা এভাবে সজাগ ও সচেতন থাকলে আমন ক্ষেতে পোকা আক্রমণ করতে পারবে না। 

 

আমনখেতে আলোর ফাঁদ পদ্ধতি ব্যবহার করে পোকা দমন। ছবি: সংগৃহীত:

 

আমন ক্ষেতে আলোর ফাঁদ-পার্চিং পদ্ধতির ব্যবহার করে পোকা দমন। ছবি: সংগৃহীত


1