LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ বৃহস্পতিবার| ২২ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

“দেশের বৃহৎ শিল্প এলাকা হিসেবে খ্যাত গাজীপুর জেলা”



টি.আই সানি,শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ
উত্তরে গফরগাঁও উপজেলা ও ভালুকা উপজেলা, পুর্বে কাপাসিয়া উপজেলা ও কালীগঞ্জ উপজেলা, দক্ষিণে গাজীপুর সদর উপজেলা ও পশ্চিমে কালিয়াকৈর উপজেলা ও টাঙ্গাইলের কালিহাতি ... অভিধানিক অর্থে শ্রী-অর্থ সৌর্ন্দয্য,পুর -অর্থ নগরী অর্থাৎ সৌন্দর্য্যের নগরী। এদের মধ্যে গার্মেন্টস, টেক্সটাইল, সিরামিক, কাচ ও কেমিক্যাল শিল্প উল্লেখযোগ্য।

এর ধারাবাহীকতায় শ্রীপুর উপজেলার সকল কলকারখানায় রয়েছে বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত শ্রমজীবী মানুষ,কিন্তু বেকারত্ব বাড়ছে স্থানীয় যুবকদের, স্থানিয় শিল্পে চাকরি না দেওয়াই বাড়ছে চাঁদাবাজি, ছিনতাই,ধর্ষন ও মাদক সেবন। দেশের বৃহৎ শিল্প এলাকা হিসেবে খ্যাত গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলাতেও রয়েছে টেক্সটাইল, স্পিনিং,গার্মেন্টস ও সোয়েটার সহ অনেক কল-কারখানা।

সরেজমিনে দেখা গেছে কল-কারখানা গুলোতে দূরদূরান্ত জেলা উপজেলা থেকে শ্রমজীবীরা এসে জীবীকা অর্জনে ব্যাস্ত। কিন্তু বেড়েই চলছে স্থানীয় যুবকদের বেকারত্ব, সমাজের সচেতন নাগরিকদের মনে করেন,এই কারনেই এলাকায় বাড়ছে চাঁদাবাজি, ছিনতাই,ধর্ষন ও মাদক সেবন, মাদক বিক্রিসহ অসামাজিন কর্ম কান্ড। এইসব কর্ম কান্ডে জরিত বেশিরভাগই বেকার যুবকরা।

এদের জন্যই এলাকায় আসা ভাড়াটিয়ারা নির্ভয়ে পথ চলতে পারেনা। রাতে যেখানে সেখানে হচ্ছে ছিনতাই,পথ আটকিয়ে পকেটের টাকা পয়সা নেওয়াসহ মারপিটের ঘটনাও ঘটে অনেক সময়। শ্রীপুর উপজেলাতে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা শ্রমজীবীদের হার অধিক বেশি থাকার জন্য, শাকসবজি, প্রয়োজনীয় পন্য ও ঘর ভাড়া অধিক বেশি।

উপজেলার অনেক যুবকদের দাবি স্থানিয় কল-কারখানাতে চাকরীর জন্য গেলে, যখন কাগজ পত্রে দেখে যে এরা স্থানীয় লোক তখন যে কোন উপায়ে তাদের বের করে দেওয়া হয়। অনেকে নকল কাগজ পত্র তৈরি করে দীর্ঘ দিন যাবৎ চাকরী করে যাচ্ছে কারখানা গুলোতে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নোমান গ্রুপে সাধারন কর্মচারী হিসেবে কর্মরত এক যুবকের সাথে কথা বলে যানা যায়।সে স্থানীয় লোক হয়ে অন্য জেলা ও উপজেলার পরিচয় পত্র দিয়ে চাকরী করছে আজ পাঁচ বছর। কিন্তু এর আগে যখন সে স্থানিয় পরিচয় পত্র দিয়ে চাকরী নিতে চেয়েছিল তখন তার চাকরী হয়নি। এমনি আরো কয়েকজনের সাথে কথা বলে যানা যায় তারা বিভিন্ন জেলা উপজেলার পরিচয় পত্র নকল তৈরি করা অন্যায় যেনেও সংসারের হাল ধরতে তারা অন্যায় ভাবে কাগজ তৈরি করে চাকরী করে আসছে। তবু তাদের ভেতর সবসময় একটি ভয় কাজ করে যে আমরা নকল সার্টিফিকেট দিয়ে চাকরী নিয়েছি যে কোন সময় চলে যেতে পারে চাকরী। তাই এই কর্মজীবী যুবকদের দাবি তারা যেন নির্ভয়ে নিজের জেলা উপজেলার কাগজ পত্র দিয়ে কর্ম করে যেতে পারে সে ব্যাবস্থা করারা জন্য উর্ধতম কর্মকর্তাদের প্রতি বিশেষ অনুরোধ জানান তারা ।

অনেকে চাকরীর জন্য ঘুড়ে ফিরে চাকরী না পেয়ে, এলাকার বখাটেদের সাথে চলাফেরা করতেছে এবং বিভিন্ন মাদকসহ হামলা চালাচ্ছে দূর থেকে আসা শ্রমিকদের উপর লুটেপুটে নিচ্ছে তাদের সহাই সম্বল। এইসব কল-কারখানাতে আবার স্থানিয় মেয়েদের চাকরি ঠিকই অভাব নেই বলে জানা গেছে।তাই অনেকের মা,মেয়ে,বউ চাকরী করছে সংসার সামলাচ্ছে পুরুষরা।

শ্রীপুর উপজেলাতে রয়েছে ছোট বড় অনেক কলকারখানা।উপজেলার কয়েটি শিল্প কারখানার দায়িত্বরত কর্মচারী (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) রিপোর্টারর কে বলেন স্থানীয় ছেলেরা চাকরীতে ঢুকেই স্থানীয় প্রভাব বিস্তার করতে চায়। ফ্যাক্টরীর ভিতরে শ্রমিকদের নেতৃত্ব দিয়ে নানা ঝামেলার সৃষ্টি করে এতে মালিক পক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। অনেকটা এ সকল কারনেই স্থানীয় পুরুষ শ্রমিক নিতে চায়না এমনটিই তাদের বক্তব্য।


1