LatestsNews
# মৌলভীবাজারে ক্ষতিগ্রস্থ প্রত্যেক ঘর পাকা করে দেওয়া হবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী# কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ব্রহ্মপূত্রের ভাঙনে রৌমারী-রাজিবপুর প্লাবিত# শিক্ষা সহায়ক স্বপ্নপূরন সংগঠনের উদ্যোগে দরিদ্র দুই শিক্ষার্থীকে সহায়তা প্রদান # শৈলকুপায় কৃকদের নিকট থেকে ধান কিনছেন ইউএনও# ঝিনাইদহ জেলা জুড়েই পোষ্ট অফিসের কর্মচারী কর্মকর্তাদের চলছে বেহালদশা# খুলনার শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল অচলাবস্থা রোগী ও তাদের স্বজনদের চরম ভোগান্তি# ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় আমবোঝাই ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা নিহত ২# ভারতের গুজরাটে ১৮ বছরের নিচে মোবাইল নিষিদ্ধ# একই পাঞ্জাবির দামে হেরফেরের দায়ে আড়ংয়ে আবারও পাঞ্জাবি কাণ্ড, ফের জরিমানা# যুক্তরাষ্ট্র থেকে এক বাংলাদেশি অভিবাসন ইস্যুতে বহিষ্কার।# রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশকে গঠনমূলক সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে চীন।# রোহিঙ্গা সংকটের জন্য মিয়ানমার সরকারই দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার।# নরসিংদীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ১৩ দিন লড়াই করে হার মানলেন দগ্ধ ফুলন# নোয়াখালীতে ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড # ঝিনাইদহে প্রভাবশালীরা ঘের ও পুকুর কেটে চলেছেন, অবৈধ পুকুর খননে কৃষকরা হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত# লোহাগড়ায় ৫’শ পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারী আটক# বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মাহমুদুলকে যোগদানে দিনভর উত্তেজনা # শিরোমনি উত্তরপাড়ায় খেলতে গিয়ে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যুঃ এলাকায় শোকের ছায়া# নোয়াখালীর চৌমুহনীতে আধিপত্য বিস্তারের জেরে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীদের গুলিতে যুবকের মৃত্যু# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার
আজ বৃহস্পতিবার| ১৮ জুলাই ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

শোকাবহ জেলহত্যা দিবস আজ



বাংলাদেশের ইতিহাসের কলঙ্কময় দিন ৩ নভেম্বর – ১৯৭৫'র এ দিনে জেলখানায় বর্বর হত্যাকাণ্ডের শিকার হন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম কাণ্ডারি, চার জাতীয় নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী ও এএইচএম কামারুজ্জামান। বাঁধাগ্রস্ত হয় সদ্য স্বাধীন দেশের গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রা, প্রতিক্রিয়াশীলদের আঘাতে জর্জরিত হয় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা।

প্রতিকূল আইনি জটিলতা পেরিয়ে দীর্ঘ প্রায় চার দশক পর মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হলেও এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে হত্যাকাণ্ডের রাজনৈতিক কুশীলবরা।

পঁচাত্তরের ১৫ আগষ্ট, সপরিবারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর, দেশে যখন মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত শক্তির দাপট, ক্ষমতায় প্রতিক্রিয়াশীলরা, তারই তিন মাসের মাথায় আবারো আঘাত আসে মুক্তিযুদ্ধের কাণ্ডারিদের ওপর। ৩ নভেম্বর, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নির্মম হত্যাযজ্ঞের শিকার হন বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দানকারী চার জাতীয় নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী ও এ এইচ এম কামারুজ্জামান।

কারাগারের নিরাপত্তা সেলে রাতের অন্ধকারে ঘটে এ বর্বর হত্যাকাণ্ড। বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত সহচর, মুক্তিযুদ্ধসহ বাঙালির সকল আন্দোলন-সংগ্রামের এই পুরোধা ব্যক্তিত্ত্বদের হত্যা করে দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল প্রতিক্রিয়াশীল চক্র। যে শক্তি বাংলাদেশের জন্ম মেনে নিতে পারেনি তারাই ঘটায় এ হত্যাকাণ্ড।

জেল হত্যাকাণ্ড ছিল মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশের এগিয়ে চলার ওপর উপর্যুপরি আঘাত। বিচারহীন থাকার দীর্ঘ অপেক্ষা কেটে গেলেও এখনো সেই বিভীষিকায় আপ্লুত হন শহীদ চার নেতার স্বজনেরা।

দুই দশকেরও বেশি সময় এ হত্যাকাণ্ডের কোনো বিচার হয়নি। ২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে জেলহত্যার বিচার শুরু করে। দীর্ঘ প্রায় চার দশক পর বিচার শেষ হলেও, এ হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে যে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র ছিল তা আজও উন্মোচিত হয়নি। এজন্য কমিশন গঠনের দাবি জানান জাতীয় চার নেতার স্বজনেরা।


1