LatestsNews
# পেঁয়াজের দাম বাড়ায় চলতি বছরের নভেম্বরে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।# পদ্মা ব্যাংক থেকে ৪ কোটি টাকা জালিয়াতি ও আত্মসাতের অভিযোগে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট# প্রিয়াঙ্কা-ফারহানের অন্তরঙ্গ ভিডিও ফাঁস! # ২৮ দিন ধরে হাসপাতালে নিউমোনিয়া চিকিৎসা নেওয়ার পর রোববার বাড়ি ফিরেছেন লতা # ২০১৯ বেগম রোকেয়া পদক পাচ্ছেন এবার যারা # সচিবালয়ের আশপাশে হর্ন বাজালেই জেল# ইন্টারনেট থেকে মিথিলা-ফাহমির ছবি সরানোর নির্দেশ# মোশতাকদের বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকা কথা বলেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।# কর শনাক্তকরণ নম্বর বা ‘টিআইএনধারী সবাইকে রিটার্ন দাখিল করতে হবে’# স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ছাত্রী রুম্পা হত্যা: প্রেমিক সৈকত ৪ দিনের রিমান্ডে# সিনেমার উন্নয়নের জন্য মফস্বল শহরের হলগুলোর প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে - প্রধানমন্ত্রী# শ্রীমঙ্গলে ৬ ডিসেম্বর মুক্ত দিবস বধ্যভ‚মি-৭১ প্রাঙ্গণে মুক্তিযুদ্ধের যাদুঘর করার দাবি # শার্শার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পৌছে গেছে নতুন বই# খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে চিকিৎসকদের অবাধ ও নিরপেক্ষ প্রতিবেদন দাখিল নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বিএনপি# মুজিববর্ষের (২০২০) অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকা আসবেন মোদি, প্রণব ও সোনিয়া# মহেশপুরের ঐতিহ্যবাহী ইছামতি নদী দখল করে মাছ চাষ # আজ যশোর মুক্ত দিবস# ইনজেকশন দেওয়ার পর প্রসূতির মৃত্যু, স্বজনদের অভিযোগ ভুল চিকিৎসা# প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছে চলতি মাসেই বসছে মেট্রোরেলের লাইন# সব জল্পনার অবসান সৃজিত-মিথিলার বিয়ে সন্ধ্যায়
আজ বুধবার| ১১ ডিসেম্বর ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

জনগন এ সরকারকে অার ভোট দেবে না কাজী ফিরোজ রশিদ



সদরুল অাইন

জাতিয় সংসদের অধিবেশনে জাতিয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ পয়েন্ট অব অর্ডয়ারে দাড়িয়ে বলেন, হঠাৎ করে হাজার গুণ হোল্ডিং ট্যাক্স বাড়ানোর কারণে জণগন এ সরকারকে আর ভোট দেবে না।

 

তিনি বলেন, হঠাৎ এবারে হোল্ডিং ট্যাক্স বাড়িয়ে সমস্ত ঢাকা শহরকে অশান্ত করে দিয়েছে সিটি কর্পোরেশন। অথচ  সামনে নির্বাচন, এখন ট্যাক্স বাড়ান হলো কেন? জনগণ আর আপনাদের ভোট দেবে না।   স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্বে  সংসদের অধিবেশনে পয়েন্ট অব ওয়ার্ডারে দাঁড়িয়ে তিনি এসব কথা বলেন। ফিরোজ রশিদ বলেন, এতদিন কেন তাদের (আমলাদের) মনে পড়লো না, যখন ভোট এগিয়ে আসছে, তখন তাদের মনে পড়লো হাজার গুণ ট্যাক্স বাড়াতে হবে। মগের মুল্লুক আর কি। এই বিষয়ে মামলা হবে।

 

এখন যখন আমরা ভোটে যাব তখন এটা ফেস করতে হবে। এখানে মাননীয় খাদ্যমন্ত্রীসহ অনেকেই রয়েছেন, যারা ঢাকা শহরের এমপি, তারা সরকারী দল করেন বলে এখন কিছু বলছেন না। কিন্তু যখন নির্বাচনের জন্য ভোট চাইতে যাবেন তখন কে সরকারী দলের আর কে অন্য দলের তা কিন্তু ভোটাররা দেখবে না। তারা বলেবে, আপনারা সরকারের মন্ত্রী, আপনাদের নির্দেশে ট্যাক্স বাড়িয়ে দিয়েছে আপনাদের ভোট দেব না। আমাকেও তারা এখনি এসব কথা বলছেন। কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, সম্প্রতি ধানমন্ডি একালায় ৬টি থানার নাগরিকরা বসেছিল, তারা বলেছে ট্যাক্স যদি বাস্তব সম্মত না হয়, যদি সিটি করপোরেশনের কোন নাগরিক সুবিধা না পাওয়া যায়, তাহলে তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা কোন ট্যাক্স দেবেন না।

 

তারা বলছেন, আপনারা ভোট নেবেন না ট্যাক্স নেবেন। আজ তো আমাদের কোন কথা আপনারা শুনছেন না, কিন্তু ভোটের বেলায় তো ঠিক আমাদের কাছে আসতে হবে। তখন কিন্তু এ বিষয়টি ফেস করতে হবে। কোন কোন এলাকায় প্রায় হাজার পার্সেন ট্যাক্স বাড়ানো হয়েছে, যা কোন ভাবেই বাস্তব সম্মত নয়। তিনি বলেন, পুরান ঢাকার একজন বাড়ির মালিকের ট্যাক্স ছিল  ৯ লাখ তা বেড়ে হয়েছে ৬৫ লাখ টাকা। যা বাস্তব সম্মত নয়। এটা কি সম্ভব?

 

কাজী ফিরোজ রশিদ  বলেন, সিটি কর্পোরেশন যদি ট্যাক্স ধরেন তো তাদের ধরেন, যারা অনেক বেশী নাগরিক সুবিধা পায়। তাদের ট্যাক্স ৫ লাখ-১০ লাখ গুণ বাড়ান আপত্তি নেই। গুলশান-বারিধারায় ১০ লাখ টাকা বাড়ি ভাড়া পাওয়া যায়। তারা সবার চেয়ে বেশী নাগরিক সুবিধা ভোগ করে। তাদের ট্যাক্স বসান। যারা ওয়াসার অর্ধেক পানি গাড়ি ধুয়ে ও বাগানে পানি দিয়ে নষ্ট করে। তাদের বেশী ট্যাক্স বসান।

ফিরোজ রশিদ বলেন, আগে ঢাকার বাড়িওয়ালা বাড়ি ভাড়া দিয়ে আয় করতো, খেত, আজ আর সে সুবিধা তারা পাচ্ছেন না। কেননা, এখন অনেক বেশী বাড়ি হয়ে গেছে। তাই অনেক বেশী ট্যাক্স বাড়ানোর ফলে তারা অসুবিধায় পড়েছেন। এটা অগ্রহণযোগ্য।


1