LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ শুক্রবার| ২৩ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

গোয়ন্দা তথ্যে প্রকাশ"১৫৪ জন সংসদ সদস্যকে অবৈধ ঘোষনার মাধ্যমে সরকার উৎখাতের নীলনক্সা করছে রাজনৈতিক বুদ্ধিজীবিরা"



সদরুল অাইন বার্তা সম্পাদক (সহ:) চ্যানেল ফোর নিউজ, ঢাকা ।

 

১৫৪ জন সংসদ সদস্যকে অবৈধ ঘোষনার মাধ্যমে সরকার উৎখাতের নীলনক্সা করছে কথিত বুদ্ধিজীবী রাজনৈতিক নেতারা।বিভিন্ন গোয়েন্দা প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে ২০১৪ সালের নির্বাচনে অা'লীগের যে ১৫৪ জন সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয় অাইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদেরকে অবৈধ ঘোষণা করতে পারলে বর্তমান সরকারকে অবৈধ হয়ে যাবে।অবৈধ সরকারের,অবৈধ সংসদ কতৃক নিয়োগকৃত রাষ্ট্রিপতিও তখন গ্রহনযোগ্যতা ও নৈতিকতা হারাবে।দেশের রাজনীতি তৈরি হবে মহাসংকট।এই সুযোগে সুপ্রীম কোটের রুলিং এর মাধ্যমে দেশের রাজনীতিতে অাবার ফিরে অাসবে তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা।তারই সুযোগ নিয়ে রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হতে  চাচ্ছে কথিত রাজনৈতিক বুদ্ধিজীবিরা।

 

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৭ ডিসেম্বর খন্দকার আব্দুস সালাম ১৫৪ জন সংসদ সদস্যের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হবার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনে একটি রিট আবেদন করেন। রিট আবেদনে তিনি গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের ১৯ (১) ধারাকে চ্যালেঞ্জ করেন। রিট আবেদনে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের ১৯(১) কে সংবিধানের ৬৫(২) এর সঙ্গে সাংঘর্ষিক বলে দাবি করা হয়। ৬৫(২) অনুচ্ছেদে প্রত্যক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে সংসদ নির্বাচনের কথা বলা আছে। আর গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের ১৯(২) তে বলা হয়েছে অন্য কোনো প্রার্থী না থাকলে একজন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেন। হাইকোর্ট বিভাগে বিচারপতি মির্জা হোসেন হায়দার ও বিচারপতি খুরশীদ আলমের ডিভিশন বেঞ্চে শুনানি হয়। হাইকোর্ট এই রিট আবেদন নিষ্পত্তিকালে ৫জন এমিকাস কিউরির বক্তব্য শোনেন। এরা হলেন ড. কামাল হোসেন, বদিউল আলম মজুমদার, ব্যারিস্টার রফিকুল হক,আজমালুল হোসেন কিউসি এবং ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদকে এমিকাস কিউরি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হলেও, তিনি ব্যক্তিগত কারণে তাঁর মতামত দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। দীর্ঘ শুনানির পর হাইকোর্ট বিভাগ তার রিট আবেদনটি নাকচ করে দেয়। ২০১৪ সালের ১৯জুন হাইকোর্টের রায়ের পর, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হয়। কিন্ত আপিল আবেদন করা হলেও না সরকার পক্ষ না আপিল কেউই মামলা শুনানির জন্য আপিল বিভাগে তাগাদা দেননি।অার এই সুযোগটিই কাজে লাগাতে চাচ্ছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে একদল রাজনৈতিক বুদ্ধিজীবিরা।এ জন্য তারা প্রধান বিচারপতি কে হন এবং সরকার ষোড়শ সংশোধনীর রায়ের বিরুদ্ধে কবে অাপিল করেন সে সময়টির জন্য অপেক্ষা  করছে বলে জানা গেছে ।।

      

 


1