LatestsNews
# ডিআইজি মিজানকে গ্রেফতার না করায় উদ্বেগ জানিয়েছেন আপিল বিভাগ।# প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর নবম ওয়েজবোর্ডের চূড়ান্ত বাস্তবায়ন ঘোষণা করা হবে।# ৭২ ঘণ্টার মধ্যে মানহীন ২২টি পণ্য বাজার থেকে সরানোর নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।# চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের সামনে রানের পাহাড় দাঁড় করিয়েছে ভারত ৫ উইকেটে তারা করে ৩৩৬ রান।# রাজধানীর ধানমন্ডি পপুলার হাসপাতালের এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ# নড়াইলে শিক্ষকের ওপর হামলার প্রতিবাদে ছাত্রদের অবস্থান কর্মসূচিতে বাধা, পিস্তল উচিয়ে ভীতি প্রদর্শন# পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা-ফুলবাড়ি সীমান্ত চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে পাচার করা ৬ কিশোরীকে বাংলাদেশে ফেরত# কুড়িগ্রামের উলিপুরে নারী উদ্যোক্তার কারণে ৭শ’ নারী পেল কর্মসংস্থানের সুযোগ# চট্টগ্রাম বন্দরে সংঘর্ষে জোড়া লেগে যাওয়া জাহাজ দু'টির অংশ বিশেষ কেটে আলাদা করা হয়েছে।# কারাগারের আড়াইশো বছরের সকালের নাস্তার মেন্যু পরিবর্তন হলো # লোকাল ট্রে‌নের ইঞ্জিন লাইনচ্যুত হ‌য়ে ময়মন‌সিংহ-ভৈরব রু‌টের সব ট্রেন চলাচল বন্ধ# সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেফতার# মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী, পেশাগত দক্ষতা ও আনুগত্য বিবেচনা করে পদোন্নতি দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।# মৗলভীবাজারে মনু ও ধলাই নদীর পানি দ্রুত বাড়ছে আতংকে জেলাবাসী# ভারতে পাচার ৫ বাংলাদেশীকে বেনাপোলে ফেরত # রোহিঙ্গা সংকটের শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু সমাধানে সারা বিশ্বের সহযোগিতা চেয়েছে বাংলাদেশ।# উল্লাপাড়ায় পরিশ্রম আর পরিচর্যায় সফল পটলচাষী ফকির জয়নাল# মাগুরা শ্রীপুরে সাংবাদিকে বৃদ্ধ বাবা সহ ৫ আওয়ামীলীগ নেতা কর্মির নামে মিথ্যা মামলা# বিএনপি-জামায়ত জোটের শাসন আর কোন দিন ফিরে আসবে না# মৌলভীবাজারে দীঘলগিজি স্কুলে একটি রাস্তার কারনে ঝড়ে পড়ছে শতাধিক কোমলমতি শিশু
আজ রবিবার| ১৬ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষা সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়েছে অসংখ্য রীটের কারনে



সদরুল অাইন / অাসমা অাফরোজ (সহ:)বার্তা সম্পাদক:  চ্যানেল ফোর নিউজ, ঢাকা।  এ নিয়ে বিব্রত সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। অন্যদিকে বেতন বৈষম্য নিরসন না হওয়ায় বিক্ষুব্ধ সারা দেশের সহশিক্ষকরা। প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে মন্ত্রনালয়ের সদিচ্ছা ও অান্তরিকতার। জানা গেছে, হাইকোটের রায়ে প্রধান শিক্ষকরা উন্নীত বেতন স্কেল প্রাপ্ত হওয়ায় সহশিক্ষকদের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।এতে প্রধান শিক্ষক ও সহশিক্ষকদের মধ্যে বেতন বৈষম্য দুই ধাপ থেকে বেড়ে ৩ ধাপে উন্নীত হয়েছে।এতে সারা দেশে প্রধান শিক্ষক সহশিক্ষকদের মধ্যে চরম দুরত্ব ও বিভাজনের সৃষ্টি হয়েছে।যার নেতিবাচক প্রভাব পড়তে শুরু করেছে শিক্ষা কার্যক্রমে। উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধুর শাসনামলে প্রধান শিক্ষক ও সহশিক্ষকদের মধ্যে বেতনের পার্থক্য ছিল ১০ টাকা।গত পে-স্কেলের পূর্বে এই পার্থক্য ছিল ১০০ টাকা।পে-স্কেলে এই পার্থক্য দাড়ায় ১৪ এবং ১২ তম ধাপে অর্থাৎ ২ ধাপে। এই বৈষম্য পরিবর্তনের জন্য সহশিক্ষকরা এতদিন অান্দোলন করে অাসছিল। এই বৈষম্য নিরসনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থমন্ত্রী অাবুল মাল অাব্দুল মূহিতকে ২ বছর পূর্বে দায়িত্ব দেন।কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতির কোন দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়নি এখনো। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুসারে প্রধান শিক্ষকদের ২য় শ্রেনীর মর্যাদা দিলেও ১০ গ্রেড না দেওয়ায় কেন্দ্রিয় প্রধান শিক্ষক সংগঠন অাদালতে যায়।অাদালত কয়েকদিন অাগে প্রধান শিক্ষকদের উন্নীত স্কেল প্রদানের রায় প্রদান করেছেন।এই রায়ের ফলে প্রধান শিক্ষক ও সহশিক্ষকদের মধ্যে বেতন বৈষম্য ৩ ধাপ বাড়ল অর্থাৎ প্রধান শিক্ষক ও সহশিক্ষকদের মধ্যে বেতনের পার্থক্য দাড়াল ১০ হাজার টাকায়।এর ফলে সারা দেশে প্রাথমিকের সহশিক্ষকরা বিক্ষুব্ধ হয় এবং অাগামি ১৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য সমাপণী পরিক্ষার পর অান্দোলনের ঘোষণা দেয়। এদিকে প্রাথমিকের সহশিক্ষকদের কেন্দ্রিয় সংগঠনের পক্ষ থেকে কয়েকদিন অাগে বেতন বৈষম্য নিরসনের জন্য উচ্চ অাদালতে রীট করা হয়েছে।রীটের মাধ্যমে সহশিক্ষকরা তাদের ন্যায্য অধিকার পাবেন বলে কেন্দ্রিয় সংগঠনগুলো অাশা প্রকাশ করেছেন।তারা জানিয়েছেন, বর্তমানে দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে অধিকাংশ সহশিক্ষকই বিএ বা এমএ পাশ।রেজিস্ট্রার বিদ্যালয়গুলো জাতিয়করণ করায় অনেক স্কুলের প্রধান শিক্ষকের শিক্ষাগত যোগ্যতা সহশিক্ষকদের সমান বা কম।সমশিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে ১০ হাজার টাকার বেতন বৈষম্য নিয়ে একই বিদ্যালয়ে এক সাথে চাকরি করা চরম অবমাননাকর বলে সহশিক্ষকরা মনে করেন।তাদের দাবি প্রধান শিক্ষকদের বেতন স্কেল ও সহশিক্ষদের বেতন স্কেলের মধ্যে এক ধাপ পার্থক্য যথাযথ ও যৌক্তিক।কিন্তু সরকার ও মন্ত্রনালয়ে যথাযথ উদ্যোগ, অান্তরিকতার অভাবে সহশিক্ষকদের ন্যায্য দাবি পূরণ না হয়ে গত ২ বছর ধরে শুধু অাশ্বাসের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রয়েছে।বিভাজন সৃষ্টি করে সরকার ও মন্ত্রনালয় প্রধান শিক্ষক ও সহশিক্ষকদের মধ্যে দুরত্ব সৃষ্টি করেছে, যার প্রভাব পড়ছে পুরো প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থায়। অন্যদিকে শতভাগ পদন্নোতির পথ বন্ধ রেখে এবং চলতি দায়িত্বের রীটের গ্যাড়াকলে পড়েও মন্ত্রনালয় চরম সমালোচিত হয়েছে সারা দেশে।বর্তমানে অাইনী জটিলতায় চলতি দায়িত্বও বন্ধ অাছে সদ্য জাতিয়করণকৃতদের রীটের কারনে।সেখান থেকেও বেরিয়ে অাসতে পারছে না প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রনালয়।অদক্ষতা, অদূরদর্শিতার কারনে মন্ত্রনালয়ের সকল কার্যক্রমে বাগড়া সাধছে সদ্য জাতিয়করণকৃতরা।ফলে প্রাথমিক মন্ত্রনালয় না পারছে পদন্নোতি দিতে, না পারছে চলতি দায়িত্বে শুন্য পদ পূরণ করতে এবং না পারছে উন্নতমানের ও অাকর্ষনীয় বেতন স্কেল দিয়ে বিসিএসের মাধ্যমে বেছে নেওয়া নন ক্যাডার শিক্ষদের পদায়নে।ফলে প্রাথমিক মন্ত্রনালয়ের সকল কার্যক্রম এখন লেজেগবুরে অবস্থা বিরাজ করছে। অন্যদিকে বেতন বিভাজন, পদন্নোতি অাটকে যাওয়া, চলতি দায়িত্ব প্রদানে ব্যর্থ হওয়ায় মন্ত্রনালয়ের চরম ব্যর্থতায় সারা দেশের সহশিক্ষকরা এখন রীট ও অান্দোলনের দিকে ধাবিত হচ্ছে।অার এর প্রভাব যে পড়বে পরিক্ষা, অাগামি বছরের শিক্ষা কার্যক্রম এবং অাসন্ন সংসদ নির্বাচনেও তাতে কোন সন্দেহ নেই।।


1