LatestsNews
# খুলনা শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে লাগাতর কর্মসুচি শুরু# অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হারল বাংলাদেশ# দিনাজপুরের হিলিতে দেশের প্রথম লৌহ খনির সন্ধান পাওয়া গেছে। # রাজধানীর পরিবাগে একটি ভবনে ভয়াবহ আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে।# রাজধানীতে ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে র‌্যাব ও ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।# দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় লতিফ সিদ্দিকী কারাগারে# রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভুল পদক্ষেপ নিয়েছে জাতিসংঘ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী# মানবিক কারণে আশ্রয় দেয়া হলেও রোহিঙ্গাদের কারণে বনাঞ্চল ধ্বংস হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী# ভবিষ্যতে দেশের সব নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা।# দক্ষিণ আফ্রিকাকে জিততে দিলেন না উইলিয়ামসন# খুলনার শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে অবস্থান ধর্মঘট পালিত# নড়াইলে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে লোহাগড়ায় মানববন্ধন# নওগাঁয় ২ লাখ ৩২ হাজার জাল টাকা উদ্ধার, গ্রেফতার-১# দিনাজপুর বিরলে দেওয়ানজীদিঘী পুকুরে পোনা মাছ অবমুক্তকরণ # শার্শায় অস্ত্র-গুলিসহ আটক ১ # গাজীপুর শ্রীপুরে পল্লী বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটার বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন# নোয়াখালীতে ভুয়া চিকিৎসককে আদালতের নির্দেশে কারাগারে প্রেরণ# জমি সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের বাড়ি ভাংচুর সহ গাছকর্তন # বেনাপোলে সড়ক দুর্ঘটনায় ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ী নিহত# এবছর শিক্ষা খাতে বাজেটের আকার বাড়লেও তা শতাংশে কমেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।
আজ বৃহস্পতিবার| ২০ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

যুদ্ধাপরাধের মতো’ ঘটনা ঘটেছে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে



রোহিঙ্গাদের সঙ্গে ‘যুদ্ধাপরাধের মতো’ ঘটনা ঘটেছে এমন মন্তব্য করেছেন সিনেটর জেফ মার্কলের নেতৃত্বে মার্কিন আইনপ্রণেতাদের প্রতিনিধি।

মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা গ্রামগুলোতে ব্যাপক নৃশংসতা ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে দেশটির সেনাবাহিনী দাবি করে আসছে।

তবে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে রোববার প্রতিনিধি দলটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতে গিয়ে এ কথা বলেছেন তারা।

সিনেটর জেফ মার্কলের নেতৃত্বে মার্কিন আইনপ্রণেতাদের প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গণভবনে সাক্ষাৎ করেছে।

প্রতিনিধি দলে সিনেটর রিচার্ড ডার্বিন, কংগ্রেসওম্যান বেটি ম্যাককলাম, জ্যান সাকোস্কি, কংগ্রেসম্যান ডেভিড এন সিসিলিন ছাড়াও ছিলেন বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট, ডেপুটি চিফ অব মিশন জোয়েল রেইফম্যান, সিনেটর মার্কলের এমএলএ লরা আপডেগ্রোভ, মার্কলের লেজিসলেটিভ ডিরেক্টর জেরিমিয়াহ বাউম্যান এবং সিনেটর ডারবিনের এমএলএ রব লিওনার্ড।

১০ সদস্যের মার্কিন প্রতিনিধি দলটি শুক্রবার রাতে বাংলাদেশ পোঁছায়। গতকাল সকালে কক্সবাজারে উখিয়ার বালুখালি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষের সঙ্গে কথা বলেন।

প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমার যাবে— সেখান থেকেও তারা তথ্য সংগ্রহ করবেন।

রোববার প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের সামনে শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে প্রতিনিধি দলটি রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে যে অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন তা বিস্তারিত জানান।

গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে সেনা অভিযানের নামে রোহিঙ্গাদের নির্বিচারে হত্যা-ধর্ষণ এবং বাড়ি-ঘর পোড়ানো শুরু হলে বাংলাদেশে পালাতে শুরু করে রোহিঙ্গারা; এরই মধ্যে শরণার্থীর সংখ্যা ৬ লাখ ছাড়িয়েছে।

বিশ্বজুড়ে সমালোচনার মধ্যেও মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রাখাইনে হত্যা-ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করে সম্প্রতি একটি প্রতিবেদন দিয়েছে।

ইহসানুল করিম বলেন, প্রতিনিধি দলের সদস্যরা মনে করেন এটা যুদ্ধপরাধের মতো ঘটনা। তারা এই ধরনের যুদ্ধাপরাধ ও জাতিগত নির্মূলের মতো ঘটনায় উদ্বেগের কথা প্রকাশ করেছেন।

মিয়ানমারের রাখাইনে যা হচ্ছে, তা মানবাধিকারের সুষ্পষ্ট লংঘন বলেও মত প্রকাশ করেছে মার্কিন আইনপ্রণেতাদের দলটি।

বাংলাদেশেকে এই সমস্যা থেকে উত্তরণে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তার কথাও জানান প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। মিয়ানমারের নাগরিকদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করেন তারা।

প্রতিনিধিদলের সদস্যরা শেখ হাসিনাকে জানান যে, তারা শরণার্থীদের সঙ্গে কথা বলে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর অত্যাচারের কথা শুনেছেন।

মিয়ানমার এই নাগরিকদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেয়ায় তারা শেখ হাসিনাসহ বাংলাদেশের সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন বলেও সাক্ষাতকালে উল্লেখ করেন মার্কিন আইনপ্রণেতারা।

ইহসানুল করিম বলেন, প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বলেছেন, তারা চায় এই শরণার্থীরা তাদের নিজ দেশে ফেরত যাক।

এসময় শেখ হাসিনা বলেন, মানবিক কারণেই রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেয়া হয়েছে।

ইহসানুল করিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, মিয়ানমার আমাদের নিকটতম প্রতিবেশী, আমরা চাই তারা তাদের নাগরিকদের ফেরত নিক।

রোহিঙ্গাদের আরকানে যথাযথ নিরাপত্তা দিয়ে পূর্ণবাসনের কথাও বলেন শেখ হাসিনা। পাঁচ লাখ ২৭ হাজার ৭৯৭ জন রোহিঙ্গা নিবন্ধিত হওয়ার কথাও প্রধানমন্ত্রী এসময় জানান।

কফি আনান কমিশনের প্রতিবেদন বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী।

রোহিঙ্গা সঙ্কট ছাড়াও এসময় বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন এবং জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব মোকাবেলা নিয়েও আলোচনা হয় বলে জানান প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব।

যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতাদের পর যুক্তরাজ্যের কাউন্টেস অফ ইউসেক্স সোফি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

মিয়ানমারের নাগরিকদের তাদের দেশে ফেরত পাঠাতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার কথা বলেন সোফি।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব বলেন, মিয়ানমার নাগরিকদের বাংলাদেশে আসা বন্ধ হওয়া দরকার বলে মন্তব্য করেছেন কাউন্টেস অফ ইউসেক্স।

বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের জন্য যুক্তরাজ্যের সহায়তার জন্য শেখ হাসিনা ধন্যবাদ জানান।

এই সময়ে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা গওহর রিজভী এবং মুখ্য সচিব কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।


1