LatestsNews
# মৗলভীবাজারে মনু ও ধলাই নদীর পানি দ্রুত বাড়ছে আতংকে জেলাবাসী# ভারতে পাচার ৫ বাংলাদেশীকে বেনাপোলে ফেরত # রোহিঙ্গা সংকটের শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু সমাধানে সারা বিশ্বের সহযোগিতা চেয়েছে বাংলাদেশ।# উল্লাপাড়ায় পরিশ্রম আর পরিচর্যায় সফল পটলচাষী ফকির জয়নাল# মাগুরা শ্রীপুরে সাংবাদিকে বৃদ্ধ বাবা সহ ৫ আওয়ামীলীগ নেতা কর্মির নামে মিথ্যা মামলা# বিএনপি-জামায়ত জোটের শাসন আর কোন দিন ফিরে আসবে না# মৌলভীবাজারে দীঘলগিজি স্কুলে একটি রাস্তার কারনে ঝড়ে পড়ছে শতাধিক কোমলমতি শিশু# ২০১৯-২০ সালের অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার পরদিনই বেড়ে গেছে সোনার দাম।# ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়েও উন্নতি বাংলাদেশের# বিশ্বকাপের ১৯তম ম্যাচে উইন্ডিজকে ৮ উইকেটে হারালো ইংল্যান্ড।# অনির্বাচিত সরকারের বাজেট প্রণয়নের নৈতিক অধিকার নেই :মির্জা ফখরুল# চট্টগ্রামে ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ পুলিশের এসআই আবু বক্কর সিদ্দিককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব# সাভারে ভয়ংকর লুঙ্গিবাহিনীর ১৭ ডাকাত গ্রেফতার, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধর# ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটে নিম্নবিত্ত ও বিকাশমান মধ্যবিত্তের জন্য তেমন কোনো সুখবর নেই# রেমিটেন্সে প্রণোদনা প্রবাসীদের উৎসাহিত করবে# রাজধানীতে আজকালের মধ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।# ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।# উপজেলা নির্বাচন যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হয় বললেন নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম# গোবিন্দগঞ্জে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখী সংঘর্ষে নিহত-১, আহত-১০# উল্লাপাড়ায় ৮২ কোটি টাকার প্রকল্প রেলওয়ে ওভারপাস নির্মাণ কাজে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ও আলোচনা সভা
আজ রবিবার| ১৬ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

না ফেরার দেশে খ্যাতিমান লোকসংগীত শিল্পী বারী সিদ্দিকী



বারী সিদ্দিকী একাধারে খ্যাতিমান লোকসংগীত শিল্পী, গীতিকার ও বংশীবাদক ছিলেন—জনপ্রিয় এ লোকসংগীত শিল্পী বারী সিদ্দিকী আর নেই। গতরাত ২টার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে মারা যান তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রথম ও বাংলাদেশ টেলিভিশন ভবনে দ্বিতীয় জানাজা শেষে জনপ্রিয় লোকসংগীত শিল্পী বারী সিদ্দিকীর মরদেহ নেয়া হয় নেত্রকোনায়।

বাদ আসর নেত্রকোনা সরকারি কলেজে এই সংগীতশিল্পীর তৃতীয় ও শেষ জানাজা অনুষ্ঠিত শেষে কারলি গ্রামের বাউলবাড়িতে তাকে দাফন করা হয়।

মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর। তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। রাতেই বারি সিদ্দিকীর মরদেহ মোহাম্মদপুরে আনজুমানে মুফিদুল ইসলামে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে সকালে ধানমণ্ডির বাসায় নিয়ে আসা হয়। তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয় সকাল সাড়ে ৯টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে। পরে দ্বিতীয় জানাজা হয় সকাল সাড়ে ১০ টায় বাংলাদেশ টেলিভিশন ভবনে। বাদ আসর নেত্রকোনা সরকারি কলেজে হয় তৃতীয় ও শেষ জানাজা।

শৈশবেই গান শেখার হাতেখড়ি। এরপর আর পিছু ফিরে তাকাননি শিল্পী আবদুল বারি সিদ্দিকী। কিশোর বয়সে নেত্রকোনার শিল্পী ওস্তাদ গোপাল দত্তের কাছে তালিম নেন। পরে দেশ-বিদেশের একাধিক ওস্তাদের কাছে প্রশিক্ষণ নেন সংগীতের বিভিন্ন শাখায়। মূলত লোকসংগীত ও আধ্যাত্মিক গানের জন্য গত শতকে জনপ্রিয় একাধিক গানে শ্রোতাদের হৃদয়ে স্থায়ী আসন করে নেন তিনি। চলচ্চিত্রে তার গান এনেছে ভিন্ন মাত্রা।

বারী সিদ্দিকী একাধারে খ্যাতিমান লোকসংগীত শিল্পী, গীতিকার ও বংশীবাদক। মূলত গত শতকের শেষ দিকে তিনি সারাদেশে শ্রোতাদের কাছে পৌঁছে যান কথাসাহিত্যিতক হুমায়ুন আহমেদের হাত ধরে। পান তুখোড় জনপ্রিয়তা।

চলচ্চিত্রের প্লে ব্যাকে তার দরদী কণ্ঠের বেশ কিছু আবেগমাখা গান ছড়িয়ে যায় সারা বিশ্বে। তার জনপ্রিয় হওয়া গানগুলোর মধ্যে রয়েছে, পূবালি বাতাসে, আমার গায়ে যত দুঃখ সয়।

১৯৫৪ সালের ১৫ নভেম্বর ভাটি অঞ্চলের জেলা নেত্রকোণায় জন্ম আবদুল বারি সিদ্দিকীর। শৈশব থেকেই তার গান শেখার হাতেখড়ি। কিশোর বয়সে নেত্রকোণার শিল্পী ওস্তাদ গোপাল দত্তের কাছে তালিম নিতে শুরু করেন তিনি। পরে ওস্তাদ আমিনুর রহমান, দবির খান, পান্নাপাল ঘোষসহ বহু গুণীশিল্পীর সান্নিধ্য পান। ওস্তাদ আমিনুর রহমানের কাছে প্রশিক্ষণ নেন ছয় বছর ধরে।

সত্তরের দশকে নেত্রকোণা জেলা শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গে যুক্ত হওয়ার পর ওস্তাদ গোপাল দত্তের পরামর্শে ধ্রুপদী সংগীতের ওপর পড়াশোনা শুরু করেন তিনি। এক সময় বাঁশির প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠেন এবং উচ্চাঙ্গ বংশীবাদনের প্রশিক্ষণ নেন।

নব্বইয়ের দশকে ভারতের পুনে গিয়ে পণ্ডিত ভিজি কার্নাডের কাছে তালিম নেন বারী। দেশে ফিরে লোকগানের সঙ্গে ধ্রুপদী সংগীতের মিশেলে গান শুরু করেন। তিনি নিজেও বেশকিছু গান লিখে সুর করে নিজেই তাতে কণ্ঠ দিয়েছেন


1