LatestsNews
# আমিরাত থেকে বিশাল বিনিয়োগ আসছে বাংলাদেশে# ঈদের খরচ হিসেবে ‘ন্যায্য পাওনা’ চেয়েছিলাম: রাব্বানী# বন্যার কারণ দেখিয়ে পেঁয়াজ রপ্তানির মূল্য প্রায় তিনগুণ বাড়িয়েছে ভারত।# আগামীকাল রাজশাহী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী# ছাত্রলীগকে দেওয়া দেড় কোটি টাকার বিষয়টি ‘সাজানো গল্প’: জাবি ভিসি# মন্ত্রিত্ব গেলে আবার সাংবাদিকতায় ফিরব: সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।# নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ, ৮৫ শতাংশ বৃদ্ধি করে নতুন বেতন কাঠামো# টঙ্গীতে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের অধীনে প্রশিক্ষণকেন্দ্রের জন্য কম্পিউটার সামগ্রী বিতরণ# বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে আজ যুক্ত হচ্ছে চতুর্থ বোয়িং ড্রিমলাইনার # কর ফাঁকির মামলায় গুগলকে ৫৫ কোটি ডলার জরিমানা# মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পৃষ্ঠপোষকতায় কক্সবাজারের ক্যাম্পকে ঘিরে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে রোহিঙ্গাসন্ত্রাসীরা# অবশেষে কাশ্মীর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলো মোদি সরকার# বিশাল সুখবর পেলেন পুলিশ সদস্যরা- কমিউনিটি ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের কার্যক্রম শুরু # হজ-ওমরাসহ সব ধরনের ভিসা ফি নির্ধারণ করেছে সৌদি# প্রতিহিংসার রাজনীতি করে বিএনপি ও খালেদা জিয়া: তথ্যমন্ত্রী# আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী# আফিফের ব্যাটে লজ্জা এড়িয়ে জয় পেল বাংলাদেশ# প্রধানমন্ত্রী ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করবেন মঙ্গলবার# এক কিলোমিটার দৌড়ে ছিনতাইকারী ধরলেন ম্যাজিস্ট্রেট# ৮৬ কোটি টাকার লোভ কাল হলো শোভন-রাব্বানীর!
আজ মঙ্গলবার| ১৭ sep ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

ঝিনাইদহ জেলা জুড়ে টানা বৃষ্টিতে কৃষকদের পাকা ধানে মই! আমন মৌসুমের ধান ঘরে তুলে খুশি না কৃষকরা



জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ

কৃষকদের জমি থেকে নতুন ধান ঘরে আসার সাথে সাথে বাড়িতে শুরু হয় নানা উৎসব। তৈরি করা হয় বাহারি পিঠা। গ্রামে গ্রামে শুরু হয় নবান্ন উৎসব। কিন্তু এবার আমন মৌসুমের ধান ঘরে তুলে খুশি না ঝিনাইদহ জেলার কৃষকরা। বাড়িতে কোনো রকম উৎসবের আমেজ নেই তাদের। কারণ ধান পাকার সময় বৃষ্টিতে তাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে। ঝিনাইদহ জেলার বিভিন্ন গ্রামের কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, অক্টোবর মাসে টানা ৩/৪ দিনের বৃষ্টিতে ধান গাছ পানিতে তলিয়ে যায়। সে সেময় ধানের শিষ বের হচ্ছিল। কিন্তু হঠাৎ টানা বৃষ্টিতে আমন মৌসুমে ধানের ফলন যেমন আশা করছিলেন তেমনটা তারা পাননি। পড়া ধান কেটে বাড়িতে এনে ঘরে তুলতে বেশ কষ্ট করতে হচ্ছে। বিঘা প্রতি আশানুরূপ ফলন পাচ্ছেন না বলে জানান তারা। ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ উপজেলার এনায়েতপুর গ্রামের কৃষক সোনা মন্ডল ও পাইকপাড়া  গ্রামের সাখাওয়াত হোসেন জানান, ৫ বিঘা জমিতে ধান লাগিয়েছি। প্রায় সব জমির ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলন ভালো ছিল কিন্তু মাঝে টানা ৩/৪ দিনের বৃষ্টিতে ক্ষতি হয়ে গেছে। বিঘা প্রতি ২০ থেকে ২২ মণ ধান পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ৮/১০ মণের বেশি এবার পাবেন না বলে জানান তিনি। উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের এক কৃষক বলেন, মাঠের পানি এখনো শুকায়নি। পানির মধ্যেই ধান কেটে রাখতে হচ্ছে। মাঠ শুকনো না হওয়ায় গাড়িতে ধান টানা যাচ্ছে না। মাথায় করে ধান বাড়িতে নিয়ে যেতে হচ্ছে। এবার তিনিও ভালো ফলন পাবেন না বলে জানান। ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুর উপজেলার এলাঙ্গী গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গির আলম জানান, এবার তিনি ৩ বিঘা জমিতে আমন ধান রোপণ করেছিলেন। প্রথম দিকে ধানের বাম্পার ফলনের আশা করে ছিলেন। কিন্তু ধান পাকার সময় টানা বৃষ্টিতে তার ২ বিঘা জমির ধান পানিতে পড়ে যায়। ওই ২ বিঘা থেকে তিনি ভালো ফলন পাবেন না বলে জানান। ঘোষনগর গ্রামের কৃষক আমজাদ হোসেন বলেন, বিঘা প্রতি বিঘায় ২৫ মণ ধান ঘরে তুলতাম। কিন্তু এবার ১০/১২ মণের বেশি পাব না। বৃষ্টিতে আমাদের অনেক ক্ষতি হয়ে গেছে।উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহিদুল করিম জানান, এ বছর কালীগঞ্জে আমন ধানের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৫ হাজার হেক্টর। কিন্তু এবার লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে ১৮ হাজার ৬০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ করা হয়েছে। কৃষকরাও বাম্পার ফলনের আশা করছিল। কিন্তু হঠাৎই এই বৃষ্টিতে কৃষকদের বেশ ক্ষতি হয়েছে। ঝিনাইদহ জেলা কৃষি অফিসার শংকর চন্দ্র জানান, ঝিনাইদহ জেলার ৬ উপজেলায় এবার প্রায় ৯৯ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষ করেছে কৃষকরা। আমন ধানে এবার বাম্পার ফলন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অক্টোবর মাসে টানা ২/৩ দিনের বৃষ্টিতে জেলার অধিকাংশ জমিতে পানি জমে ও হালকা বাতাসে ধান গাছ পড়ে গেছে। যে সকল জমিতে ধান গাছ পড়ে গেছে সে জমির ফলন অনেক কম হবে।

 


1