LatestsNews
# সামান্য তর্কের জেরে প্রাণ হারালো এক কারখানা শ্রমিক। # উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবেই প্রিয়া সাহা অসত্য বক্তব্য দিয়েছেন দেশে ফিরলেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।# দেশদ্রোহী বক্তব্যের জন্য প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেই হবে : কাদের# বেনাপোল সীমান্তে ভারতীয় রুপিসহ আটক ১ # কুষ্টিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত অস্ত্র,গুলি ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার # বৃষ্টিতে না ভিজতে গাছতলায় আশ্রয়, বজ্রপাতে ৮ শিশুর মৃত্যু# ডিজিটাল গরু' ফেসবুকে ভাইরাল হবিগঞ্জের ‘শিক্ষিত গরু’! # অস্ট্রিয়ায় বিমান বিধ্বস্তে ৩ জনের মৃত্যু# ই মিটিশন চালু হওয়ায় পাল্টে যাচ্ছে গাংনী ভুমি অফিসের চিত্র# নেত্রকোনায় ব্যাগ থেকে শিশুর মাথা উদ্ধারের ঘটনাটি হত্যাকাণ্ড।# শ্রীলঙ্কা সফরই ক্যারিয়ারের শেষ বিদেশ সফর টাইগার অধিনায়ক মাশরাফী বিন মুর্তজার।# বাংলাদেশ থেকে যাওয়া রোহিঙ্গার প্রশ্নে ‘অবাক’ উত্তর ট্রাম্পের # ধর্ষককে বিদেশ থেকে দেশে ফিরিয়ে আনছেন যে নারী আইপিএস# নুহাশপল্লীতে নানা আয়োজনে হুমায়ূন আহমেদকে স্মরণ ও ৭ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হচ্ছে।# পদ্মা সেতুতে বলির গুজবে বাড়ছে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা।# টাঙ্গাইলে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে তলিয়েছে আরও ২০ গ্রাম# রিফাত হত্যা মামলার তিন নম্বর আসামি রিশান ফরাজীর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর "# আইনি লড়াই ছাড়া বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির কোনো বিকল্প পথ নেই মন্তব্য তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।# ডেঙ্গু মোকাবিলায় সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করেছে উত্তর সিটি করপোরেশন।# মুন্সীগঞ্জে শারীরিক প্রতিবন্ধী ও দারিদ্রতা দমাতে পারেনি জুলিয়ার পড়াশোনা
আজ শনিবার| ২০ জুলাই ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

নীলফামারীতে শীতের প্রকোপে আলু ক্ষেতে পচন রোগ



জিয়াউর রহমান 
শীতের প্রকোপ কমছেনা উত্তরের জেলা নীলফামারীতে। টানা ১৩ দিন চলা শৈত্যপ্রবাহে নাকাল হয়ে পড়েছে মানুষের জীবন। আজ শুক্রবারও নীলফামারীতে তাপমাত্রা ৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অফিস। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডিমলা আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক জামাল উদ্দিন।
ঘন কুয়াশার সাথে হিমেল বাতাস চরম বিপাকে ফেলেছে সাধারণ মানুষকে। সেই সাথে কয়েকদিন থেকে সূর্যের দেখা না মেলায় স্থবিরতা নেমে এসেছে জনজীবনে।
কনকনে এই শীতে একান্ত প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বেড় হচ্ছেনা মানুষ। এদিকে তীব্র শীতে চরম বিপাকে পড়েছে জেলার শ্রমজীবী মানুষেরা। ইচ্ছে না থাকলেও জীবনের প্রয়োজনে বাধ্য হয়ে প্রচন্ড এই শীতেও যেতে হচ্ছে কাজে।
এদিকে কনকনে এই শীতে শিশু ও বৃদ্ধরা ঠান্ডাজনিত নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা।
আধুনিক সদর হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ দিলিপ কুমার রায় জানান, সর্দি, কাশি, জ্বর ও মাথাব্যথাসহ নানান রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা। প্রকোপ বেড়েছে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়ারও। প্রতিদিন শত শত রোগী হাসপাতালে ভীড় করছেন। শয্যা সংকুলান না হওয়ায় রোগীদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ এবং ব্যবস্থাপত্র দেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
আবহাওয়া অফিসের সুত্র মতে, নীলফামারীর সৈয়দপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্ব্বোচ তাপমাত্রা ছিল ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জেলার অপর ডিমলা উপজেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্ব্বোচ তাপমাত্রা ছিল ১৬ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়া দিনাজপুর ও কুড়িগ্রামের রাজারহাটে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্ব্বোচ তাপমাত্রা ছিল ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্ব্বোচ তাপমাত্রা ছিল ১৭ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রংপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্ব্বোচ তাপমাত্রা ছিল ১৬ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
তাপমাত্রার হিসাবটি গত কয়েকদিন ধরেই এমনটি চলছে। ফলে শীতের তীব্রতা বেশী অনুভুত হচ্ছে। এ ছাড়া আকাশে মেঘ ও উত্তুরী হিম বাতাসের কামড়ে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, অফিসে হাজিরা কমেছে। উধাও হয়েছে হাটবাজার পথঘাটের বিভিন্ন স্থানের চেনা ভিড়।
এদিকে গত কয়েক দিনের অব্যাহত ঘন কুয়াশা ও কনকনে তীব্র শীতের সঙ্গে শৈত্য প্রবাহের কারণে আলু ক্ষেতে ব্যাপক হারে আলুর মড়ক বা পচন রোগ দেখা দিয়েছে। এতে করে এলাকার কৃষকরা চরম দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। ফলে ওই রোগের কারণে আলুর পাতা ও কালো কালো ফোসকা পড়ে মরে যাচ্ছে তরতাজা সবুজ গাছ। এ রোগ মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়লে উৎপাদনের ল্যমাত্রা পূরণ করা সম্ভব হবেনা বলে ধারণা করছেন আলু চাষিরা।
স্থানীয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরে নীলফামারীতে ২২ হাজার ২৭০ হেক্টর, রংপুর জেলায় ৫১ হাজার ২৭৫ হেক্টর, লালমনিরহাটে ৫ হাজার ৩৮৫ হেক্টর, কুড়িগ্রামে ৬ হাজার ২৩১ হেক্টর ও গাইবান্ধায় ৭ হাজার ৫৮৭ হেক্টর জমিতে আলু আবাদ হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় বেশী। কৃষকরা ওই সব জমিতে বিভিন্ন জাতের আলু চাষ হয়েছে।
শনিবার খোঁজ নিয়ে জানা যায় নীলফামারী সদর, ডোমার, ডিমলা, জলঢাকা কিশোরীগঞ্জ ও সৈয়দপুর উপজেলার অধিকাংশ কৃষক আলুতে রায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে। কৃষকরা আক্রান্ত ক্ষেতে ছত্রাক নাশক স্প্রে করেও সুফল পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন তারা।
কিশোরীগঞ্জ উপজেলার আলু চাষী শামীম হোসেন বাবু, শাহজাহান, আজাদ, নুর আলম ও আইয়ুব আলী জানান, তারা প্রত্যেকে প্রতি বছর ৫ থেকে ৬ বিঘা করে জমিতে আলু লাগিয়ে থাকেন। কিন্তু এখন আলুর বাড়ন্ত মুহূর্তে বৈরী আবওহাওয়ার কারণে পচন রোগে আলুর ফলন নিয়ে শঙ্কিত তারা।


1