LatestsNews
# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার# গাজীরহাট ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয় # শিরোমণি স্পোর্টিং ক্লাব আয়োজিত ৮দলীয় মিনি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন# শৈলকুপায় অর্ধশত বছরেও আলোর মুখ দেখেনি স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসা!# কালীগঞ্জে পিতা হত্যার দায়ে পুত্রের যাবজ্জীবন কারাদন্ড# ‘আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের কাজে মন্থর গতি’# রাজধানীর সদরঘাটে লঞ্চের ধাক্কায় ডিঙি নৌকা ডুবে নিখোঁজ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।# ঢাকা-উত্তরবঙ্গ রেলরুটে আন্তঃনগর রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়ে সকল প্রকার ট্রেন চলাচল বন্ধ # পলিথিন থেকে জ্বালানি তেল উৎপাদন উদ্ভাবক জামালপুরের তৌহিদুল ইসলাম।# সিলিন্ডার পুনঃপরীক্ষার সনদ ছাড়া গ্যাস মিলবে না গাড়িতে# প্রতিযোগিতায় এগিয়ে রাখতে দেশীয় মোবাইল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রস্তাবিত বাজেটে বেশকিছু শুল্ক সুবিধা পাচ্ছে।# প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মান বন্ধ রয়েছে গ্রামবাসীদের আবেদন জায়গা পুনঃনির্ধারন# মেহেরপুরের গাংনীতে দু’পক্ষের গোলাগুলিতে মাদক ব্যবসায়ী নিহত# ‘নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সংহতি’ বিষয়ে আলোচনা সভা# পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে দেশীয় শ্রমিকদের ক্ষোভের নেপথ্যে চীনাদের 'অকথ্য নির্যাতন'# চাঁপাইনবাবগঞ্জে মনিরুল হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড# ডিআইজি মিজানের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের নির্দেশ# খুলনা শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের ডাক্তার-ষ্টাফদের দুই দফা দাবীতে লাগাতর কর্মসুচি শুরু# অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হারল বাংলাদেশ# দিনাজপুরের হিলিতে দেশের প্রথম লৌহ খনির সন্ধান পাওয়া গেছে।
আজ বুধবার| ২৬ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

চিরিরবন্দর উপজেলায় স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে কৃষি জমির মাটি ইটভাটায়



নুর আলম সিদ্দিক, ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃ চিরিরবন্দর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে উপজেলার ৩৭টি ইটভাটায় স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ভেকু গাড়ী দিয়ে কৃষি জমির মাটির কেটে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ইটভাটাগুলোতে প্রতি মৌসুমে উৎপাদিত হচ্ছে প্রায় ২১ কোটি পিচ ইট। এই ইট উৎপাদনের জন্য পোড়ানো হচ্ছে প্রায় ১ কোটির বেশী সিএফটি মাটি। সিংহভাগ মাটি আসছে কৃষিজমি থেকে। অভিযোগ পাওয়া গেছে, কৃষকদের ভুল বুঝিয়ে কিংবা ফুঁসলিয়ে স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ভেকু গাড়ী দিয়ে কৃষিজমির মূল্যবান অংশ ‘টপ সয়েল’ হিসেবে পরিচিত মাটি কেটে ইটভাটায় ব্যবহার করা হচ্ছে। অর্থাভাবে জমির মালিকরা স্বল্পমূল্যে জমির উর্বর মাটি ইটভাটা ও গৃহ নির্মাণে বিক্রি করায় উৎপাদন প্রায় ৩০ শতাংশ  হ্রাস পাচ্ছে বলে উপজেলা কৃষি বিভাগের ধারণা। কিন্তু বাস্তবে ৮০ শতাংশ উৎপাদন হ্রাস পাচ্ছে বলে গবেষকরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তবে ইটভাটার চাহিদা মেটাতে কৃষিজমির গুরুত্বপূর্ণ অংশের এমন বিনাস হলেও এ নিয়ে তেমন প্রতিক্রিয়া নেই সংশ্লিষ্ট কোনো প্রতিষ্ঠানের। ফলে কৃষিজমির উর্বরতা ও ফসল উৎপাদনের উপর  মারাত্মক বিরূপ প্রভাব পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এতে কৃষি অর্থনীতি ও পরিবেশ ভয়াবহ বিপর্যয়ের সম্মুখীন হচ্ছে।
অথচ ইটভাটার সর্বশেষ আইন অনুযায়ী কৃষিজমির মাটি ভাটায় ব্যবহার নিষিদ্ধ। পরিবেশ অধিদপ্তর, কৃষক ও কৃষি বিভাগ, ইটভাটা মালিকসহ একাধিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। তবে কৃষিজমির টপ সয়েল নিয়ে উদ্বেগ সম্পর্কে ধারণা নেই কৃষকদের। জানাগেছে, গ্রামের দরিদ্র কৃষকরা অর্থাভাবে, আবার কেউ কেউ সচেতনতার অভাবে ফসলি জমির উর্বর মাটি ইটভাটায় বিক্রি করছেন। সামান্য প্রয়োজনে বা কোনো প্রয়োজন ছাড়াই মাটির উপরিভাগ তুলে দিচ্ছেন ভাটা মালিকদের কাছে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ভুল ধারণা থেকেও তারা মাটি বিক্রি করছেন।
চিরিরবন্দর ইট প্রস্তুতকারীদের তথ্য অনুযায়ী, গড়ে ভাটাপ্রতি ৬০ লাখ হিসেবে উপজেলায় ৩৫ টি ইটভাটা থেকে প্রতি মৌসুমে প্রায় ২১ কোটি ইট উৎপাদিত হয়। আর এ জন্য প্রতি ভাটায় ৮ থেকে সাড়ে ৮ হাজার ট্রাক মাটি দরকার হয়।  মাটি পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ১ কোটির বেশী সিএফটি।
ইটভাটার সর্বশেষ আইন অনুযায়ী, কৃষিজমির মাটি ভাটায় ব্যবহার নিষিদ্ধ। ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ এ উল্লেখ রয়েছে, ‘আপাতত বলবৎ অন্য আইনে যাহাই  থাকুক না কেন, কোন ব্যক্তি ইট প্রস্তুত করবার উদ্দেশ্যে কৃষিজমি বা পাহাড় বা টিলা হইতে মাটি কাটিয়া বা সংগ্রহ করিয়া ইটের কাঁচামাল হিসাবে উহা ব্যবহার করিতে পারিবেন না।’ এই আইন লঙ্ঘনের জন্য সর্বোচ্চ ২ বছর কারাদন্ড বা ২ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দন্ডের বিধান রয়েছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: মাহমুদুল হাসান বলেন, ফসলি জমির উপরি ভাগের ১০ থেকে ১২ ইঞ্চি পরিমাণ মাটি উর্বর। এ মাটির সাথে জৈব উপাদান রয়েছে। ফসলি জমিতে ৫ শতাংশ জৈব সার থাকার কথা থাকলেও বাস্তবে আছে মাত্র ১ শতাংশ। ফসলি জমির মাটি এভাবে বিক্রি হয়ে ইটভাটায় গেলে আগামীতে ২০ থেকে ৩০ শতাংশ হারে ফসল উৎপাদন হ্রাস পাবে।
এ ব্যাপারে চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: গোলাম রব্বানী বলেন, গ্রামের দরিদ্র কৃষকরা অর্থাভাবে, নগদ টাকার আশায় তারা মাটি বিক্রি করছেন। মাটি বিক্রি করে সাময়িক অভাব দূর হলেও আখেরে উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় ক্ষতি হচ্ছে তাদের।


1