LatestsNews
# এবছর শিক্ষা খাতে বাজেটের আকার বাড়লেও তা শতাংশে কমেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।# পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে বাংলাদেশি ও চীনা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৮ চীনা শ্রমিক আহত হয়েছেন।# দেশে ফলের উৎপাদন বাড়াতে প্রতিনিয়ত চলছে নানা গবেষণা- কৃষকদের উৎসাহিত করতে যত আয়োজন# মোবাইল ফোনে বাংলায় এসএমএস (মেসেজ) পাঠালে খরচ অর্ধেক ছাড় দেয়া হবে।# বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য হলেন সেলিমা ও টুকু# মানুষের খাদ্য তালিকার প্রাণীর এসব খাবার এ যেন মানুষ মারার কারখানা# রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মার্কেটে আগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।# আমিরাতে প্রথম বাংলাদেশির গোল্ডেন ভিসা অর্জন# 'মোবাইল রিচার্জে শুল্ক বাড়ানোয় ক্ষতিগ্রস্ত হবে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা'# কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী শহিদুল্লাহ সবুজ নির্বাচিত# লাকসামে স্কুলছাত্রী ধর্ষনের শিকার, ধর্ষনকারী গ্রেপ্তার# দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া কঠিন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম।# রাজধানীতে বিশৃঙ্খলভাবে দেয়াল লিখন ও গাছে বিজ্ঞাপন লাগালে কঠোর ব্যবস্থা'# পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ বা পঞ্চম ধাপের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে এখন চলছে গণনা।# খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি নির্ভর করছে আদালতের ওপর।# রাজধানীর কল্যাণপুরের রাজিয়া পেট্রোল পাম্পে আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।# সালথায় জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্র শিক্ষকদের মাঝে পুরস্কার বিতরন# ঝিনাইদহে মসজিদের মোয়াজ্জিনকে কুপিয়ে ও গলাকেটে হত্যা !# অবশেষে বড় অংকের অর্থের বিনিময়ে মিশরের ইজিপ্ট এয়ার থেকে লিজ নেয়া নষ্ট দুটি উড়োজাহাজ ফেরত দেয়া হচ্ছে।# শুধু সেমির আশা বাঁচিয়ে রাখার জন্যই নয়, দলের আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার জন্য জয়ই দরকার ছিল
আজ বুধবার| ১৯ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

নওগাঁর নিয়ামতপুরে ভারী কুয়াশা ও শৈত্য প্রবাহের ফলে বোরোর বীজতলা নষ্ট’ দুশ্চিন্তায় চাষীরা



মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, নওগাঁ প্রতিনিধি: চলমান শৈত্য প্রবাহ ও ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়ে নিয়ামতপুরের অধিকাংশই বোরোর বীজতলা বিবর্ণ হয়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। প্রথমে হলুদ ও পরে চারা গাছগুলো লালচে হয়ে শুকিয়ে মরে যাচ্ছে। বীজতলা নষ্ট হয়ে যাওয়ায় কৃষকেরা সময়মতো বোরো আবাদ করতে পারবে কি না তা নিয়েও শঙ্কা দেখা দেখা দিয়েছে বোরো চাষীদের মাঝে। অবশ্য কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন, তীব্র শীত ও কুয়াশার কারণে পর্যাপ্ত পরিমাণ সূর্যের আলো না পাওয়ায় চারা গাছগুলো ‘কোল্ড ইনজুরি’তে আক্রান্ত হয়ে হলুদ ও লালচে হয়ে যাচ্ছে। তবে নিয়ামতপুরের চাষীরা বীজতলা আগেই তৈরী করার ফলে এ চারাগাছ গুলো প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় এ চারা রোপনে বোরোর উৎপাদনে কোন প্রভাব পড়বেনা বলছেন তারা।
নিয়ামতপুর কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, চলতি বোরোর মৌসুমে উপজেলায় বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে প্রায় ২১ হাজার হেক্টর। যা গত বছরের তুলনায় প্রায় ১ হাজার হেক্টর কম। আর চাষের সেচ সুবিধার জন্য চালু রয়েছে বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) ৬০৪ টি গভীর নলকূপ। এছাড়াও সেচের সুবিধার জন্য রয়েছে সাবমার্সেবল পাম্প, পুকুর-দীঘি ও খাল-খাড়ীর পানি।
শনিবার উপজেলার নিয়ামতপুর, হাজিনগর, ভাবিচা, রসুলপুর, পাঁড়ইল ও শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের মাঠ ঘুরে দেখা যায়, মাঠে তৈরি অধিকাংশ বোরোর বীজতলার চারাগাছগুলো হলুদ ও লালচে রং ধারণ করছে। অনেক চারাগাছ শুকনো খড়ের মত হয়ে মরে যাবার উপক্রম হয়ে পড়েছে।
রসুলপুর ইউনিয়নের বাদেচাকলা গ্রামের কৃষক জাজাল উদ্দীন, মিজান ও বাবর জানান, শৈত্য প্রবাহের আগ পর্যন্ত তাদের বীজতলার চারাগাছ ভালোই ছিল। কিন্তু শৈত্য প্রবাহের পর থেকে ধীরে ধীরে তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশার কারণে সেসব বীজতলার অধিকাংশই চারাগাছ বিবর্ণ লাল হয়ে নষ্ট হয়ে যাওয়ার উপক্রম দেখা দিয়েছে। এ চারা রোপনে ফলন বিপর্যয় ঘটবে মনে করছেন তারা।
শালবাড়ী গ্রামের কৃষক সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘১০ বিঘা জমিতে বোরো ধান আবাদের জন্য ১০ কাঠা মাটিতে বোরো বীজতলা তৈরি করেছিলাম। কিন্তু আমার বীজতলার সিংহভাগ চারাগাছই লালচে হয়ে শুকিয়ে মরে যাচ্ছে। বীজতলার যে অবস্থা তাতে মনে হচ্ছে পাঁচ বিঘা জমিতেও এখন ধান লাগাতে পারব না। বীজতলা নষ্ট হওয়ায় চারা সংকটের কারণে বাকি জমিগুলোতে ধান আবাদ করতে পারব কিনা সেই আশঙ্কায় আছি।’
রসুলপুর ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুস সাত্তার বলেন, ‘তীব্র শীত ও কুয়াশার কারণে এবং সূর্যের আলো কম থাকায় বীজতলার চারাগাছগুলো খাদ্য সরবরাহ না হওয়ার কারণে প্রথম হলুদ এবং পরে লালচে হয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় আমরা কৃষকদের বীজতলাগুলো সাদা পলিথিন দিয়ে ঢেকে দেওয়া এবং বীজতলায় প্রচুর পরিমাণে পানি জমে রাখার জন্য পরামর্শ দিচ্ছি। এছাড়া ছত্রাকনাশক থিয়োভিট পাউডার ব্যবহারের পরামর্শও দেওয়া হচ্ছে।’
নিয়ামতপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কৃষিকর্মকর্তা আমীর আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, ‘এখনও বীজতলায় তেমন ক্ষতির আশঙ্কা করছি না। আবাহাওয়া কয়েক দিনের মধ্যে ভালো হয়ে গেল যেসব চারা হলুদ ও লালচে হয়ে গেছে সেগুলো আবারও ভালো হয়ে যাবে। কিন্তু চলমান শৈত্যপ্রবাহ দীর্ঘস্থায়ী হলে বীজতলার চারাগাছ নষ্ট হয়ে কিছুটা ক্ষতি হতে পারে। তবে আমাদের মাঠকর্মীরা কাজ করছে। তাঁরা কৃষকদের এ অবস্থায় কৃষকদের কী করণীয় সে সম্পর্কে পরামর্শ দিচ্ছেন।


1