LatestsNews
# আমিরাতে প্রথম বাংলাদেশির গোল্ডেন ভিসা অর্জন# 'মোবাইল রিচার্জে শুল্ক বাড়ানোয় ক্ষতিগ্রস্ত হবে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা'# কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী শহিদুল্লাহ সবুজ নির্বাচিত# লাকসামে স্কুলছাত্রী ধর্ষনের শিকার, ধর্ষনকারী গ্রেপ্তার# দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া কঠিন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম।# রাজধানীতে বিশৃঙ্খলভাবে দেয়াল লিখন ও গাছে বিজ্ঞাপন লাগালে কঠোর ব্যবস্থা'# পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ বা পঞ্চম ধাপের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে এখন চলছে গণনা।# খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি নির্ভর করছে আদালতের ওপর।# রাজধানীর কল্যাণপুরের রাজিয়া পেট্রোল পাম্পে আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।# সালথায় জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্র শিক্ষকদের মাঝে পুরস্কার বিতরন# ঝিনাইদহে মসজিদের মোয়াজ্জিনকে কুপিয়ে ও গলাকেটে হত্যা !# অবশেষে বড় অংকের অর্থের বিনিময়ে মিশরের ইজিপ্ট এয়ার থেকে লিজ নেয়া নষ্ট দুটি উড়োজাহাজ ফেরত দেয়া হচ্ছে।# শুধু সেমির আশা বাঁচিয়ে রাখার জন্যই নয়, দলের আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার জন্য জয়ই দরকার ছিল# রাজশাহীতে জমে উঠেছে হরেক রকম আমের বেচাকেনা।# রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় ব্যর্থ বলে দায় স্বীকার করেছে জাতিসংঘ।# ২৩ উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে# নোয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো ইভিএম পদ্ধতীতে ভোট গ্রহণ # নোয়াখালীর হাতিয়ায় অস্ত্র ও গুলিসহ শীর্ষ জলদস্যু ফরিদ কমান্ডারকে গ্রেপ্তার করেছে কোস্টগার্ড# বেনাপোলে হুন্ডি করে অর্থ পাচারের অভিযোগে ৩ পুলিশ ক্লোজড # নড়াইলে শিক্ষার্থীদের গুলি করে হত্যার হুমকিতে ৪ জনের নামে মামলা দায়ের
আজ বুধবার| ১৯ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

জনগণের মঙ্গলের জন্য সংবিধান সংশোধনের বিধান আছে: রিজভী



নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের বিএনপির দাবি মানার কোনো সুযোগ নেই বলে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ব্ক্তব্যের সমালোচনা করে রুহুল কবির রিজভী।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে রিজভী বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে ওই সময়ে (১৯৯৬ সাল) আপনি জ্বালাও-পোড়াও-ধ্বংসাত্মক আন্দোলন করেছিলেন- এটা তো (তত্ত্বাবধায়ক সরকার) সংবিধানে ছিল না।

আর এখন আপনার সংবিধান কি পাললিক শিলা নাকি আগ্নেয় শিলা নাকি মেটামরফিক রক নাকি ভয়ংকর রূপান্তরিত শিলা যেটাকে নাড়ানো যায়, বা সরানো যায় না।

বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, জনগণের জন্য, জনগণের পক্ষে, জনগণের মঙ্গলের জন্য সংবিধান সংশোধনের বিধান আছে।

লিখিত বক্তব্য তিনি বলেন, ১৯৯৬ সালে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনা কেন নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি সংবিধানে সংযোজন করতে ‘জ্বালাও-পোড়াও’ আন্দোলন করেছিলেন তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেন।

আওয়ামী লীগ সংবিধান সংশোধন করে তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতি বিলুপ্ত করার পর নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকার পদ্ধতি পুনর্বহালের দাবি না মানায় দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে বিএনপি।

এখন একাদশ সংসদ নির্বাচন ঘনিয়ে আসায় নির্বাচনকালীন ‘সহায়ক’ সরকারের দাবি তুললেও তার কোনো রূপরেখা এখনও দেয়নি দলটি।

এর মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ১২ জানুয়ারি জাতির উদ্দেশে ভাষণে নির্বাচনের সময় গতবারের মতো ছোট সরকার গঠনের ইঙ্গিত দিলে তা নিয়ে আলোচনার প্রস্তাব দেয় বিএনপি।

গতকাল সংসদে শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি অসাংবিধানিকভাবে সহায়ক সরকারের দাবি করে আসছে যা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

এর জবাবে রিজভী বলেন, “প্রধানমন্ত্রী যে কথাটা গতকাল সংসদে বলেছেন, এটা বাকশালী কথা, একদলীয় কথা। এটা হচ্ছে প্রভুত্বমূলক কথা, এটা হচ্ছে জনগণের ওপর একেবারে নিষ্ঠুরভাবে কর্তৃত্ব করার কথা।

রিজভী বলেন, গণতন্ত্রে সংবিধান জনগণের চাহিদা অনুযায়ী যুগে যুগে এটা সংশোধিত হয়ই। এটাই হচ্ছে প্রকৃত গণতন্ত্রের সর্বোৎকৃষ্ট দৃষ্টান্ত।

তিনি আরো বলেন, ভারত-জাপান বলুন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বলুন, পশ্চিমা দেশগুলোর কথা বলুন, প্রত্যেকটা দেশে সংবিধান সংশোধন হয়েছে জনগণের চাহিদা অনুযায়ী।

জনগনের স্বার্থে নিরপক্ষেভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠান করতে যেভাবে সংবিধান সংশোধন করা যায় তা করতে সরকারের উদ্দেশ্যে দাবি জানান বিএনপির এ জ্যেষ্ঠ নেতা।

রিজভী বলেন, সহায়ক সরকারের মাধ্যমে সব দলের অংশ নিশ্চিত হবে, প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হবে, জনগণ আস্থা পাবে- ‘হ্যাঁ, আমার ভোট আমি দেব; এই ভোটটি অদৃশ্য হয়ে যাবে না সন্ত্রাস ও ভোট ডাকাতির কাছে’- এই নিশ্চয়তার জন্যই সহায়ক সরকার। সহায়তায় বিডি নিউজ।


1