LatestsNews
# মৗলভীবাজারে মনু ও ধলাই নদীর পানি দ্রুত বাড়ছে আতংকে জেলাবাসী# ভারতে পাচার ৫ বাংলাদেশীকে বেনাপোলে ফেরত # রোহিঙ্গা সংকটের শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু সমাধানে সারা বিশ্বের সহযোগিতা চেয়েছে বাংলাদেশ।# উল্লাপাড়ায় পরিশ্রম আর পরিচর্যায় সফল পটলচাষী ফকির জয়নাল# মাগুরা শ্রীপুরে সাংবাদিকে বৃদ্ধ বাবা সহ ৫ আওয়ামীলীগ নেতা কর্মির নামে মিথ্যা মামলা# বিএনপি-জামায়ত জোটের শাসন আর কোন দিন ফিরে আসবে না# মৌলভীবাজারে দীঘলগিজি স্কুলে একটি রাস্তার কারনে ঝড়ে পড়ছে শতাধিক কোমলমতি শিশু# ২০১৯-২০ সালের অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার পরদিনই বেড়ে গেছে সোনার দাম।# ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়েও উন্নতি বাংলাদেশের# বিশ্বকাপের ১৯তম ম্যাচে উইন্ডিজকে ৮ উইকেটে হারালো ইংল্যান্ড।# অনির্বাচিত সরকারের বাজেট প্রণয়নের নৈতিক অধিকার নেই :মির্জা ফখরুল# চট্টগ্রামে ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ পুলিশের এসআই আবু বক্কর সিদ্দিককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব# সাভারে ভয়ংকর লুঙ্গিবাহিনীর ১৭ ডাকাত গ্রেফতার, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধর# ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটে নিম্নবিত্ত ও বিকাশমান মধ্যবিত্তের জন্য তেমন কোনো সুখবর নেই# রেমিটেন্সে প্রণোদনা প্রবাসীদের উৎসাহিত করবে# রাজধানীতে আজকালের মধ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।# ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।# উপজেলা নির্বাচন যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হয় বললেন নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম# গোবিন্দগঞ্জে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখী সংঘর্ষে নিহত-১, আহত-১০# উল্লাপাড়ায় ৮২ কোটি টাকার প্রকল্প রেলওয়ে ওভারপাস নির্মাণ কাজে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ও আলোচনা সভা
আজ রবিবার| ১৬ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

নড়াইলের এক অনন্য সূচশিল্পী ইলোরা পারভীন




এস এম আলমগীর কবির নিজস্ব প্রতিবেদক


নড়াইলের মেয়ে সূচশিল্পী ইলোরা পারভীনের (৪৪) নিপূন হাতে সূচ-সূতায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সদস্যসহ বিশ্ববরেণ্যদের দৃষ্টি নন্দন ছবি তৈরী করে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের নজর কেড়েছেন। তাঁর সেলাই করা ছবিতে সত্যিকারের জীবন্ত মানুষের প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠেছে।

ইলোরার পৈত্রিক নিবাস নড়াইল পৌর এলাকার মাছিমদিয়া গ্রামে। এ গ্রামেই বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের জন্ম। সুলতানের বাড়ির পাশেই ইলোরার জন্মভিটা। ইলোরার পিতা মরহুম আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান বরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের সমবয়সী ও বাল্যবন্ধু ছিলেন। শৈশবকাল থেকে ইলোরার ছবি আঁকার প্রতি শখ ছিল। যে কারণে এসএম সুলতানের অনুপ্রেরণায় ছবি আকার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি হয়। সেই আগ্রহ থেকেই তিনি বঙ্গবন্ধুর পরিবারসহ বিশ্ববরেণ্যদের ছবি আঁকার স্বপ্ন দেখেন। অবশেষে সে আশা বাস্তবে রুপদান করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। একটি বইয়ের কভারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি দেখে ১৯৯৮ সালে সূচ-সূতা দিয়ে বুননের মাধ্যমেই ইলোরা এ পথে হাঁটতে শুরু করেন। সূচ-সূতা দিয়ে সেলাই করে তৈরী করা ছবি যেন জীবন্ত মানুষের অবিকল রুপ। এ এক অসম্ভব বাস্তবতা। যে কোন লোক এ দৃষ্টিনন্দন ছবি দেখে সহজেই আশ্চর্যান্বিত হয়ে যাবে। তিনি ১৯৯৮ সাল থেকে অদ্যাবধী মোট ৩৫ টি শিল্পকর্ম শেষ করতে সক্ষম হয়েছেন । তাঁর সূচশিল্পে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তাঁর পরিবার ও বিশ্ববরেণ্যদের ছবি। বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের চিত্রকর্মের সংখ্যা ১৭ টি। এর মধ্যে দাঁড়ানো অবস্থায় একক বঙ্গবন্ধু, তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বঙ্গবন্ধুর বাবা-মা, শেখ রাসেল, শেখ হাসিনা ও জয়ের হাস্যোজ্জ্বল মুখ,সুলতানা কামাল, ফজিলাতুন্নেসা, শেখ হাসিনার পাঁচ ভাইবোনের গ্রুপ ছবি। বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে চিত্রকর্মটি ফ্রেমসহ দৈর্ঘ্য ৩০ ইঞ্চি আর প্রস্থ ২১ ইঞ্চি।

সম্প্রতি ইলোরার সূই সূতায় তৈরী করা শেখ রাসেলের একটি ছবি ধানমন্ডি-৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে প্রদর্শণ করা হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু পরিষদের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সূই সূতায় ইলোলার নিপূণ হাতে সেলাই করা ছবি দেখে আনন্দে অবিভূত হয়ে যান। এ ধরনের দূর্লভ ছবি সারা বিশ্বে চীন ও ভিয়েতনামে কিছু দেখা যায় বলেও মন্তব্য করেন তারা।
 সূচ-সূতার এই কারিগর সূচশিল্পী ইলোরা পারভীন নড়াইলের গৌরব। এ সকল ছবি সেলাই করতে পেরে ইলোরা গর্বিত। স্বামী, সংসার ও  দু’মেয়েসহ পরিবারের সবকাজ সামলিয়ে সূচ-সূতায় আঁকা বুননশিল্পী হিসেবে নিজেকে আত্মপ্রকাশ করেছেন নিঃঅহংকার ও প্রচার বিমূখ ইলোরা পারভীন। ইলোরা সাত ভাইবোনের মধ্যে পঞ্চম। ১৯৯৮ সালে ইডেন মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে দর্শন বিভাগে ২য়  শ্রেণিতে মাষ্টার্স পাস করার পর জন্মভূমি নড়াইলের মাছিমদিয়ায় ফেরেন তিনি। ১৯৯৯ সালে তিনি মো. ফয়জুল্লাহ বিশ্বাসের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে সংসার জীবনে পা রাখেন। তার দুই মেয়ে হুমাইয়রা ফয়েজ ৮ম শ্রেণিতে ও নাফিসা ফয়েজ ২য় শ্রেণিতে ভিকারুন্নিসা কলেজের আজিমপুর শাখায় অধ্যয়নরত। এ পর্যন্ত নিজ শিল্পকর্মগুলো কোথাও প্রদর্শনের ব্যবস্থা করেননি তিনি। তবে ইলোরার ছবিগুলো নিয়ে শিগগিরই ঢাকা আর্ট গ্যালারীতে একটি প্রদর্শণীর আয়োজনের কার্যক্রম চলছে।

ইলোরা তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর ছবি দিয়ে আমার শিল্পের হাতেখড়ি। বড় ভাই জেলা যুবলীগের আহবায়ক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। পারিবারিকভাবে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। যে কারণে বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে চিত্রকর্মের পাশাপাশি ভাষা আন্দোলন, রায়েরবাজারের বধ্যভূমি, জাতীয় সম্পদ, ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দ্রাগান্ধী, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম, চিত্রশিল্পী এসএম সুলতান, নববধূ, পাখি, নিজের মা নূরজাহান প্রমূখ ছবি আঁকার চেষ্টা করেছি মাত্র। বাল্যকাল থেকেই পাঞ্জাবী, শাড়ি, বিছানার চাদরসহ নানা রকম পোষাকে সূচ-সুতার দৃষ্টি নন্দন শৈল্পিক কাজ করে অভ্যস্ত। এ শিল্প কর্মে ছবির গলা, হাত, পরনের কাপড়ের ভাঁজ ফুটিয়ে তুলতে বেশি সময় অতিবাহিত হয়। কোনো কোনো ছবির চোখ আকতেই ১৫-২০ দিন সময় লেগে যায়।’




1