LatestsNews
# এবছর শিক্ষা খাতে বাজেটের আকার বাড়লেও তা শতাংশে কমেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।# পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে বাংলাদেশি ও চীনা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৮ চীনা শ্রমিক আহত হয়েছেন।# দেশে ফলের উৎপাদন বাড়াতে প্রতিনিয়ত চলছে নানা গবেষণা- কৃষকদের উৎসাহিত করতে যত আয়োজন# মোবাইল ফোনে বাংলায় এসএমএস (মেসেজ) পাঠালে খরচ অর্ধেক ছাড় দেয়া হবে।# বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য হলেন সেলিমা ও টুকু# মানুষের খাদ্য তালিকার প্রাণীর এসব খাবার এ যেন মানুষ মারার কারখানা# রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মার্কেটে আগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।# আমিরাতে প্রথম বাংলাদেশির গোল্ডেন ভিসা অর্জন# 'মোবাইল রিচার্জে শুল্ক বাড়ানোয় ক্ষতিগ্রস্ত হবে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা'# কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী শহিদুল্লাহ সবুজ নির্বাচিত# লাকসামে স্কুলছাত্রী ধর্ষনের শিকার, ধর্ষনকারী গ্রেপ্তার# দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া কঠিন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম।# রাজধানীতে বিশৃঙ্খলভাবে দেয়াল লিখন ও গাছে বিজ্ঞাপন লাগালে কঠোর ব্যবস্থা'# পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ বা পঞ্চম ধাপের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে এখন চলছে গণনা।# খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি নির্ভর করছে আদালতের ওপর।# রাজধানীর কল্যাণপুরের রাজিয়া পেট্রোল পাম্পে আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।# সালথায় জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্র শিক্ষকদের মাঝে পুরস্কার বিতরন# ঝিনাইদহে মসজিদের মোয়াজ্জিনকে কুপিয়ে ও গলাকেটে হত্যা !# অবশেষে বড় অংকের অর্থের বিনিময়ে মিশরের ইজিপ্ট এয়ার থেকে লিজ নেয়া নষ্ট দুটি উড়োজাহাজ ফেরত দেয়া হচ্ছে।# শুধু সেমির আশা বাঁচিয়ে রাখার জন্যই নয়, দলের আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার জন্য জয়ই দরকার ছিল
আজ বুধবার| ১৯ জুন ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

ধ্বংসের পথে পরিবেশ জীব বৈচিত্র্য’ ‘রোহিঙ্গাদের কারণে



মানবেতর ও দুঃসহ শরণার্থী জীবন থেকে মুক্তি চায় নির্যাতন-নিপীড়নের মুখে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা। জাতিগত স্বীকৃতি আর নাগরিক অধিকারের মর্যাদা নিয়ে স্বদেশে ফিরতে চান তারা। অন্যদিকে রোহিঙ্গাদের কারণে আর্থসামাজিক, অর্থনৈতিক, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিসহ নানাভাবে ক্ষতির সম্মুখীন স্থানীয়রাও চান দ্রুত তাদের ফেরত পাঠানো হোক। অবশ্য ত্রাণ ও শরণার্থী প্রত্যাবাসন কমিশনার জানায়, রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ-মিয়ানমার যৌথভাবে কাজ করছে।রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকা এখন কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফ। দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গা শরণার্থীরা বসবাস করছে। এদের সংখ্যা ৩৩ হাজার। আর নতুন পুরাতন মিলে রোহিঙ্গার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ লাখের বেশি। যারা এখনো শরণার্থীর মর্যাদা পাইনি। এসব রোহিঙ্গা স্বদেশে ফেরত যেতে মরিয়া। তাদের দাবি, সসম্মানে মিয়ানমার ফেরত পাঠানো হোক।  রোহিঙ্গারা বলেন, আমাদের ওপর অনেক অত্যাচার করা হয়েছে। এজন্য বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছি। আমাদের নিরাপত্তা দিলে আমরা ফিরে যেতে রাজি আছি।



রোহিঙ্গারা স্থানীয়দের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এরা সামাজিক, অর্থনৈতিক, পরিবেশ, অপরাধসহ নানা সমস্যার কারণ। তাই এদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের দাবি স্থানীয়দের।

তারা বলেন, ‘পরিবেশ জীব বৈচিত্র্য একেবারে ধ্বংসের পথে। সরকারের কাছে দাবি দ্রুত সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো হোক সরকারের কাছে আমাদের দাবি। মিয়ানমারের ইচ্ছার অভাবের কারণে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া দেরি হচ্ছে বলে অভিযোগ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির নেতাদের।’

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া দেরি হওয়ার সত্যতা স্বীকার করে জানালেন, দ্রুত প্রত্যাবাসনে কাজ করছে সরকার। ১৯৭৮ সালে মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গা আসা শুরু হয়। যার মধ্যে ২০০৫ সালে সর্বশেষ প্রত্যাবাসন হলেও তা বন্ধ হয়ে যায়। এরপর দফায় দফায় নতুন রোহিঙ্গা আসা অব্যাহত রয়েছে।


1