LatestsNews
# খুলনার শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতাল অচলাবস্থা রোগী ও তাদের স্বজনদের চরম ভোগান্তি# ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় আমবোঝাই ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা নিহত ২# ভারতের গুজরাটে ১৮ বছরের নিচে মোবাইল নিষিদ্ধ# একই পাঞ্জাবির দামে হেরফেরের দায়ে আড়ংয়ে আবারও পাঞ্জাবি কাণ্ড, ফের জরিমানা# যুক্তরাষ্ট্র থেকে এক বাংলাদেশি অভিবাসন ইস্যুতে বহিষ্কার।# রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশকে গঠনমূলক সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে চীন।# রোহিঙ্গা সংকটের জন্য মিয়ানমার সরকারই দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার।# নরসিংদীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ১৩ দিন লড়াই করে হার মানলেন দগ্ধ ফুলন# নোয়াখালীতে ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড # ঝিনাইদহে প্রভাবশালীরা ঘের ও পুকুর কেটে চলেছেন, অবৈধ পুকুর খননে কৃষকরা হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত# লোহাগড়ায় ৫’শ পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারী আটক# বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মাহমুদুলকে যোগদানে দিনভর উত্তেজনা # শিরোমনি উত্তরপাড়ায় খেলতে গিয়ে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যুঃ এলাকায় শোকের ছায়া# নোয়াখালীর চৌমুহনীতে আধিপত্য বিস্তারের জেরে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীদের গুলিতে যুবকের মৃত্যু# কুড়িগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ৬জন গ্রেপ্তার# গাজীরহাট ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয় # শিরোমণি স্পোর্টিং ক্লাব আয়োজিত ৮দলীয় মিনি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন# শৈলকুপায় অর্ধশত বছরেও আলোর মুখ দেখেনি স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসা!# কালীগঞ্জে পিতা হত্যার দায়ে পুত্রের যাবজ্জীবন কারাদন্ড# ‘আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের কাজে মন্থর গতি’
আজ বুধবার| ১৭ জুলাই ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী এগোচ্ছে না বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রম।



সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী এগোচ্ছে না বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রম। চলতি বছরের জুনের মধ্যে ৭০ লাখ গ্রাহককে প্রি-পেইড মিটারের আওতায় আনার পরিকল্পনা থাকলেও গ্রাহক সংখ্যা এখনো ১২ লাখেই আটকে আছে। বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে, প্রাথমিক অবস্থায় পিছিয়ে থাকলেও শিগগিরই গতি আসবে প্রি-পেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রমে। আর প্রি-পেইড মিটার গ্রাহকদের জন্য খোলা বাজারে ছেড়ে দেয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশ্লেষকরা।বিদ্যুৎ সাশ্রয়, মিটার রিডারদের দৌরাত্ম্য কমানো, ভূতুড়ে বিলের বিড়ম্বনা থেকে গ্রাহকদের মুক্তি, আগাম বিল আদায় আর অপচয় রোধ, এমন সব ভাবনা থেকেই ২০১৫ সালে বাণিজ্যিকভাবে প্রি-পেইড মিটার স্থাপনের উদ্যোগ নেয় বিদ্যুৎ বিভাগ।


লক্ষ্য ছিল ২০২১ সালের মধ্যে ২ কোটি ২০ লাখ গ্রাহককে প্রি-পেইড মিটারের আওতায় আনা। তবে সে পরিকল্পনার সঙ্গে বেশ তফাৎ রয়েছে বাস্তব চিত্রের। কথা ছিল, চলতি বছরের জুনের মধ্যে প্রি-পেইড মিটারের গ্রাহক ছাড়াবে ৭০ লাখ। কিন্তু সে অংক এখনো আটকে আছে ১২ লাখে।

প্রি-পেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রম সমন্বয়ের দায়িত্বে থাকা বিদ্যুৎ বিভাগের নীতি ও গবেষণা সংস্থা পাওয়ার সেল বলছে, প্রাথমিক পর্যায়ে ধীরগতি থাকলেও শিগগিরই কেটে যাবে এ অবস্থা।

পাওয়ার সেলের মহা-পরিচালক  প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন বলেন, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এই মেসেজটা পেয়ে গেছেন যে কাজ দ্রুত শেষ করতে হবে। এখনও পর্যন্ত যা দেরি হওয়ার হয়েছে এখন আর দেরি করার সুযোগ নেই।

তবে প্রি-পেইড মিটার স্থাপন শুধুই বিদ্যুৎ বিতরণ প্রতিষ্ঠানগুলোর হাতে না রেখে খোলা বাজারে উন্মুক্ত করে দেয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

ক্যাবের জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. এম শামসুল আলম বলেন, এটা বাজারে ছেড়ে দিলে সেখান থেকে ভোক্তা কিনে এনে ব্যবহার করতে পারতেন। এতে ভোক্তার সমস্যা হওয়ার কথা নয়।

এছাড়া প্রি-পেইড মিটার বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে গ্রাহকদের কথা বিবেচনা করে রিচার্জ সেবা আরও সহজ করার পরামর্শও বিশেষজ্ঞদের।


1