LatestsNews
# গুলশান-১ এর ডিএনসিসি মার্কেটে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য # এডিসের লার্ভা ধ্বংসে বাড়ি বাড়ি অভিযানে নগরবাসীর অসহযোগিতার অভিযোগ# চামড়া নিয়ে টানাপোড়েন থামছেই না - নিয়মিত ক্রেতাদের তৎপরতা দেখা যায়নি। # কাশ্মীর ইস্যুতে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বিবৃতি প্রকাশ# দাবি-দাওয়া মানলেই মিয়ানমারে ফিরবে রোহিঙ্গারা# ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিচারকের কক্ষে বিরিয়ানি খান রাজসাক্ষী জজ মিয়া# গাইবান্ধার ঝিনুকের তৈরী চুন উৎপাদনকারি যুগি পরিবারগুলো এখন বিপাকে# শিক্ষা নীতিমালা অনুমোদন করায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের অভিনন্দন# এডিস মশার দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসছেন উচ্চ পর্যায়ের বিদেশি বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদল। # শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। # মেঘনা নদীর ভাঙন গাফিলতি করা সেই প্রকৌশলীকে কী শাস্তি দেওয়া হয়েছে? : প্রধানমন্ত্রী# সংসদ সদস্য না হয়েও বিলাসবহুল গাড়িতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পেলেন মুহিত# দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) দুর্নীতির বস্তাভর্তি টাকাসহ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার# নায়াখালীতে সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ আহত ১২# পচা মাছ মজুদ ও বিক্রির দায়ে স্বপ্ন এক্সপ্রেস সুপার শপকে জরিমানা# ভারতীয় দলের ওপর হামলার শঙ্কা, পিসিবিকে মেইল# ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরের খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা# মিন্নির জামিন শুনানি, যা বললেন হাইকোর্ট# ভারতের বহুল আলোচিত ইসলামিক বক্তা ডা. জাকির নায়েক এবার মালয়েশিয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে# নেত্রীকে মুক্ত করতে ব্যর্থ বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে মন্তব্য : ওবায়দুল কাদের।
আজ বৃহস্পতিবার| ২২ আগস্ট ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
# ঝিনাইদহে সেনা সদস্য হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন# নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি :দেশের প্রথম শ্রেণীর অনলাইন টিভি চ্যানেল"চ্যানেল ফোর নিউজ" যা খুব দ্রুতই স্যাটেলাইট টেলিভিশনে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। উক্ত চ্যানেলের জন্য নিম্ন বর্ণীত বিভাগসমুহে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ১ জন করে ব্যূরো প্রধান এবং বর্ণীত বিভাগগুলোর প্রতি জেলা ও থানাসমুহে ১ জন করে জেলা ও থানা প্রতিনিধি দ্রুত ও জরুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিভাগসমুহ :চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা , রাজশাহী , রংপুর - অাগ্রহীগণকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতিয়তা NID, পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ১ কপি ছবি ও অভিজ্ঞতার প্রমানপত্রসহ পূর্ণ জীবন বৃত্

শার্শা পাইলট হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি ও অর্থ আত্নসাতের বিষয় প্রমান পাওয়া গেছে



শহিদুল ইসলাম,বেনাপোল প্রতিনিধি

শার্শা পাইলট হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অবৈধ নিয়োগ, অনিয়ম, দুর্নীতি ও অর্থ আত্নসাতের বিষয়টি তদন্তে প্রমানিত হলেও অদ্যবধি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি সংশি­ষ্ট কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে ০৪ বছর অতিবাহিত হতে চললেও কারও কোন উচ্চ বাচ্চ নেই।

দায় সারা ও গোজামিল দিয়ে চলছে শার্শা পাইলট হাই স্কুলের কর্মকান্ড। জাল জালিয়াতির মাধ্যমে অবৈধ ভাবে নিয়োগ প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোটা অংকের বিনিময়ে নিয়োগ বোর্ড ও বেইনবেইজ কর্মকর্তাদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে এমপিও ভুক্তি হয়।

এরপর থেকে লাগামহীন দুর্নীতি, ভূয়া ভাউচারের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা অর্থ আত্নসাত বিদ্যালয়ের অব্যবহারিত নতুন ও পুরাতন বোর্ডের বই খাতা বিক্রয়সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। আইনের শাষন ও প্রয়োগ না থাকায় হাতে নাতে একাধীক ঘটনা ধরা পড়লেও পার পেয়ে যাচ্ছে ঐ দূর্নীতিবাজ শিক্ষক। একাধিক পত্রিকায় এ ব্যপারে সংবাদ প্রকাশের পর তৎকালিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম শরিফুল আলম সার্টিফিকেট জালিয়াতি সহ অনিয়ম দূর্নীতির বিষয়টি তদন্তে সত্যতা প্রমানিত হওয়ায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা)র মধ্যমে যশোর জেলা শিক্ষা  অফিসারকে ৪৭ ফর্দ্দের তদন্তে প্রতিবেদন প্রেরণ করেন।

যাহার স্মারক নং ০৫.৪৪.৪১০০.০৮.০১.০১৩.২০১৫-(৫৮৮), তারিখ: ১২/০৭/২০১৮ ইং। রহস্য জনক কারনে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শার্শা পাইলট হাই স্কুলের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকদের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে।

বিশিষ্টজনেরা বলছেন ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা না নিলে যে কোন সময় বিদ্যালয়ে পরিবেশ কলুশিতসহ ঘটতেপারে অনাকাক্ষিত ঘটনা। এছাড়া ঐ দূর্নীতিবাজ শিক্ষক গত ২৯ শে মে ২০১৮ তারিখে স্কুল বন্ধের দিনে বিদ্যালয় পরিচলানা পর্ষদ ও শিক্ষকদের কাউকে না জানিয়ে শিক্ষা  বোর্ডের নতুন ও পুরাতন পাঠ্য বই ও খাতা বিক্রয় কালে স্থানীয় অভিভাবকদের হাতে নাতে ধরা পড়ে। আলমসাধু গাড়ি যোগে পাঠ্য বই ও খাতা নিয়ে যাওয়ার সময় নাভারন পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ সার্জেন্ট পলিটন মিয়া হাইওয়ে সড়ক থেকে জব্দ করেন।

যা ঘটনাটি উপজেলা প্রশাসনের তদন্তনাধিন রয়েছে। প্রধান শিক্ষক হিসাবে অবৈধ ভাবে নিয়োগের পর থেকে ভূয়া ভাউচারের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের অর্থ তোসরুপ নিয়ম নীতি উপেক্ষা করে, বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে  সনদ বিক্রয়, প্রশাংসা পত্র বিক্রয়, পরীক্ষার ফিস এর টাকা ও সরকারী বিধি উপেক্ষা করে স্কুলে গাইড বই বিক্রয় করে আত্নসাত করেন। যা বিগত ২০১৪ ইং সালে বিদ্যালয়ের আভ্যান্তিরীন অডিটে ভূয়া ভাউচারের মাধ্যমে ১২ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা আত্নসাতের বিষয়টি উঠে আসে। আজও তার কোন সুরাহা হয়নি। ইতি মধ্যে শার্শা পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সরকারী করনের সকল কর্মকান্ড সম্পন্ন হয়েছে।

বিদ্যালয়টি জাতীয় করণ হলে শিক্ষার পরিবেশ ও গুনগতমান বৃদ্ধি করতে হলে অচিরেই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানিয়েছেন সচেতন অভিভাবক মহল। এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাসান হাফিজুর রহমান চৌধুরী এক সাক্ষাতকারে বলেন শার্শা পাইলট হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নিয়োগে সনদ জালিয়াতির বিষয়টি তদন্তধীন আছে। এবং শিক্ষা বোর্ডের পাঠ্য বই ও নতুন-পুরাতন খাতা বিক্রয়ের বিষয়টি তদন্ত সম্পন্ন হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


1